স্বাভাবিক কাউন্সিলর খোরশেদ,পত্মী লুনার শারীরিক পরিস্থিতির উন্নতি


স্টাফ করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৬:৫১ পিএম, ০১ জুন ২০২০, সোমবার
স্বাভাবিক কাউন্সিলর খোরশেদ,পত্মী লুনার শারীরিক পরিস্থিতির উন্নতি

করোনার দাফন কাফনে এগিয়ে আসা ও নানা কার্যক্রমে আলোচিত কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ করোনায় আক্রান্ত হলেও স্বাভাবিক রয়েছেন। অপরদিকে তাঁর স্ত্রী আফরোজা খন্দকার লুনার শারীরিক পরিস্থিতির উন্নতি ঘটেছে।

১ জুন সোমবার সকালে লুনা কথাবার্তা বলা শুরু করেছেন। ধীরে ধীরে তার কথার জড়তা কাটতে শুরু করেছে। পরিবারের সঙ্গে ভিডিও কলে কিছুক্ষণ কথা বলেছেন। অপরদিকে খোরশেদ হাসপাতালে ভর্তি থাকলেও তিনি পুরোপুরি স্বাভাবিক।

খোরশেদের পারিবারিক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। এদিকে খোরশেদের বড় ভাই বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন।

রোববার বিকেলে খোরশেদ ও তার স্ত্রী লুনা রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি হন। শনিবার রাত ১২টার দিকে স্ত্রীর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে নিয়ে কাচপুরের সাজেদা ফাউন্ডেশনে ভর্তি করান খোরশেদ।

দেশে করোনা সংক্রমণের শুরু থেকেই স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে আক্রান্তদের সেবা দেওয়া এবং এ যাবৎ এতে আক্রান্ত হয়ে ও এ জাতীয় উপসর্গে মারা যাওয়া ৬১ ব্যক্তির দাফনকার্যে অংশ নিয়ে দেশব্যাপী আলোচিত নারায়ণগঞ্জের কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ।

শনিবার (৩০ মে) বিকেলে তার করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর জানান যায়। এর আগেই গত ২৩ মে করোনা আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হন তার স্ত্রী আফরোজা খন্দকার লুনা। এ কয়েকদিন স্থিতিশীল থাকলেও শনিবার শারীরিক অবস্থার অবনতি হয় লুনার। এক পর্যায়ে রাত পৌনে ১২টার দিকে তাকে কাঁচপুরের সাজেদা ফাউন্ডেশনে ভর্তি করা হয়।

করোনার শুরু থেকেই খোরশেদ নিজ উদ্যোগেই তার ওয়ার্ডের আওতাধীন বিভিন্ন এলাকার মোড়ে মোড়ে হাত মানুষের সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করেন। হ্যান্ড স্যানিটাইজার সঙ্কট হওয়ার পর নিজেই হাজার হাজার বোতল স্যানিটাইজার তৈরি করে বিতরণ করেন। ঘরে ঘরে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা নেন। এসবের বাইরেও করোনায় আক্রান্তদের দাফন ও সৎকার কাজে অংশ নিয়ে আসছিলেন তিনি।

করোনা প্রতিরোধের অংশ হিসেবে এলাকায় এলাকায়, সড়কে সড়কে, মানুষের ঘরে ঘরে জীবাণুনাশক স্প্রে করছেন খোরশেদ। যানবাহন জীবাণুমুক্ত করতে এখনও জীবাণুনাশক স্প্রে করা অব্যাহত রেখেছেন। মানুষকে সচেতন করতে নিয়মিত প্রতি এলাকায় মাইকিং করাচ্ছেন। স্বেচ্ছাসেবীদের নিয়ে টিম গঠন করে এলাকায় এলাকায় আড্ডা বন্ধ করতে মানুষজনকে অনুরোধ করছেন। শুধু তাই নয়, তার ওয়ার্ডবাসীর স্বাস্থ্যসেবা ও পরামর্শের জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের নিয়ে চালু করেছেন টেলি মেডিসিন সেবা। করোনা থেকে সেরে ওঠাদের কাছ থেকে প্লাজমা সংগ্রহের কাজও শুরু করেছেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
মহানগর এর সর্বশেষ খবর
আজকের সবখবর