করোনাকালে ‘মানবতার মা’ দিনার সহযোগিতায় ৮ শিশুর জন্ম


সিটি করেসপন্ডেন্ট | প্রকাশিত: ০৯:৪৭ পিএম, ১৪ জুলাই ২০২০, মঙ্গলবার
করোনাকালে ‘মানবতার মা’ দিনার সহযোগিতায় ৮ শিশুর জন্ম

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর আয়শা আক্তার দিনা প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসের কারণে বিপর্যস্ত মানবতার মাঝে একের পর এক মানবতার উদাহারণ সৃষ্টি করে যাচ্ছেন। করোনা ভাইরাসের কারণে যখন কেউ কারও সহযোগিতায় এগিয়ে আসছেন না ঠিক তখনই আয়শা আক্তার দিনা বিভিন্ন কর্মসূচির পাশাপাশি গর্ভবতী মায়েদেরও নানাভাবে সহযোগিতা করে যাচ্ছেন।

আর তার এই সহযোগিতায় নবজাতকরা দেখছে পৃথিবীর আলোর মুখ। সেই সাথে প্রসূতি মায়েরা দেখছে তাদের সন্তানের প্রিয় মুখ এবং আত্মীয় স্বজনদের মুখে ফুটে উঠছে হাসি। এসকল ভূমিকায় ইতোমধ্যে তাকে ‘মানবতার মা’ রূপে ভূষিত করা হয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় ১৪ জুলাই মঙ্গলবার ‘মানবতার মা’ খ্যাত নারী কাউন্সিলর আয়শা আক্তার দিনার সহযোগিতায় ৮ম বারের মতো আরো এক ফুটফুটে শিশু জন্ম হয়েছে।

ওই ঘটনার বিবরণ দিতে গিয়ে আয়শা আক্তার দিনা জানান, আল্লাহর রহমতে ও আমরা সার্বিক সহযোগিতায় ৮ম বারের মত আরো একটি পুত্র সন্তানের জন্ম হয়েছে। এদিন সকালে যখন বৃষ্টি হচ্ছিলো তখনই ছোট ভাই হাসিবের ফোন এলো। সে জানায়, ৮ নং ওয়ার্ড আইলপাড়ার এক অসহায় বোন প্রসব ব্যাথায় ছটফট করছে। তার স্বামী আগে গার্মেন্টসে চাকরি করতো কিন্তু রোজার ঈদের পর থেকে বেকার। গার্মেন্টস থেকে অনেককেই ছাঁটাই করেছে তার মধ্যে ঐ মহিলার স্বামীও ছাঁটাই হয়ে এখন বেকার জীবন যাপন করছে। এই খবর পেয়ে বোনটিকে নিয়ে ডন চেম্বার আল-মক্কা হাসপাতালে গেলাম। এইটি তার দ্বিতীয় সন্তান জন্ম। প্রথম সন্তান সিজারের মাধ্যমে জন্ম হয়। তাই দ্বিতীয় সন্তান ও সিজার করাতে হবে। তাই দেরি না করে সাথে সাথে রোগীকে নিয়ে ওটিতে চলে গেলো। কিছুক্ষণ পরে জন্ম নিলো ফুটফুটে একটি পুত্র সন্তান।

দিনা বলেন, এই পর্যন্ত আমার সহোযোগিতায় ৮ টি ডেলিভারি হয়েছে এবং ৮ টিই পুত্র সন্তান জন্ম হয়েছে। মা ও শিশু দুজনই আল্লাহর রহমতে ভালো আছেন। এজন্য ধন্যবাদ জানাই ছোট ভাই হাসিবকে সার্বক্ষণিক ভাবে সাথে থাকার জন্য। সেই সাথে ধন্যবাদ জানাই আল-মক্কা হাসপাতালের মালিক, ডাক্তার, নার্স সহ সকল স্টাফদের। পাশপাশি ধন্যবাদ জানাই সাংবাদিক ও মানবাধীকার কর্মী সোনিয়া দেওয়ান প্রীতি। বিশেষ কৃতজ্ঞতা নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কাউসার আশাকে। প্রতিবারের মতো এবারও তিনি পাশে ছিলেন।

প্রসঙ্গত, এর আগেও কাউন্সিলর আয়শা আক্তার দিনার সহযোগিতায় পৃথিবীর আলোর মুখ আরও কয়েকজন শিশু। সেই সাথে প্রসূতি মায়েরও সহযোগিতায় এগিয়ে এসেছেন তিনি। চলমান লকডাউনের কারণে আর্থিক সমস্যা ও চিকিৎসার অভাব মিটিয়েছেন আয়শা আক্তার দিনা।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর