rabbhaban

যা বললেন বিএনপি নেতারা


সিটি করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:২৩ পিএম, ০৫ জুলাই ২০১৮, বৃহস্পতিবার
যা বললেন বিএনপি নেতারা

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি ও মহানগর বিএনপি পূর্ব নির্ধারিত কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে প্রতিবাদ সমাবেশ পালন করেছে।

৫ জুলাই বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় ও দুপুর ১২ টায় প্রেসক্লাবের গলিতে এই কর্মসূচী পালন করে জেলা ও মহানগর বিএনপি ও দলের অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। কর্মসূচীতে মূল দলের সহ সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, সাংগঠনিক সম্পাদক, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক, জেলা ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতৃবৃন্দ দলের দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্যে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মামুন মাহমুদ বলেন, আমরা এখন গণতন্ত্রহীন অবস্থায় রয়েছি। এই অবস্থা থেকে সাধারণ মানুষ মুক্তি চায়। বর্তমান সরকার মানুষের ঘাড়ে চেপে বাক স্বাধীনতা হরণ করে রেখেছে। এই সরকার জালিম সরকারে রুপ নিয়ে একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে কারাগারে বন্দি করে রেখেছে। এসব করে টিকে থাকবেন ভাবছেন তা হবেনা।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান বলেছেন, নির্বাচন দিতে বর্তমান সরকারের ভয়। জিয়া পরিবারকে ভয় পেয়ে ও জিয়া পরিবারের প্রতি মানুষের ভালোবাসায় অবৈধ সরকার আতঙ্কিত। তাই ক্ষমতা কিভাবে টিকিয়ে রাখবে তার ষড়যন্ত্র করতে করতে সরকার এখন কি রেখে কি করবে তাই খুঁজে পাচ্ছেনা। ক্ষমতার উন্মাদনায় সরকার দিশেহারা হয়ে পড়েছে।

তিনি বলেন, অত্যাচার নির্যাতন গুম খুনের শীর্ষে তো অনেক আগেই আপনারা উঠেছেন এখন বিরোধী মত দমনের পাশাপাশি সাধারণ মানুষও যারা আপনাদের বিপক্ষে তাদেরকেও দমন শুরু করেছেন। এই জাতি আপনাদে ক্ষমা করবেনা। এখনো সময় আছে জনগনের কাছে ক্ষমা চেয়ে জনগনের আস্থা ও ভালোবাসার প্রতীক সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিন। যদি তা না দেন তাহলে মুক্তিকামী মানুষই নিজেদের নেত্রীকে মুক্ত করে নিরপেক্ষ নির্বাচন আদায় করে নেবে।

জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদ হাসান রোজেল বলেন, মানুষকে মেরে, গুম খুন করে যারা ক্ষমতায় টিকে থাকতে চায় তাদের কাছে মুক্তি চেয়ে কোন লাভ হবেনা। অন্যায়ের প্রতিবাদে রাজপথে নেমেই বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। ঐক্যবদ্ধ হয়ে বিএনপির পাশাপাশি সাধারণ মানুষও এখন চায় এই দুঃশাসন অপশাসনের সমাপ্তি।

সহ সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল আমিন শিকদার বলেন, এ সরকার অমানবিক আচরণ করে গণতন্ত্রের মাকে অন্ধকার ঘরে বন্ধি করে রেখেছে। হাজার হাজার কোটি টাকা দুর্নীতি, চুরি, ব্যাংক ডাকাতি করে নিয়ে যাচ্ছে তাদের কোন কিছু করতে পারে না। আর খালেদা জিয়ার নামে মিথ্যা ২ কোটি টাকার মামলা দিয়ে কারাগারে বন্দি করে রাখা হয়েছে। এটা দেশের মানুষ বুঝে। বিএনপির জনপ্রিয়তায় ভীত হয়েই এসব কিছু করছে এ সরকার। এজন্যই জামিন হবার পরও তাকে মুক্তি দেওয়া হচ্ছে না। অবিলম্বে খালেদা জিয়ার মুক্তি দেওয়া না হলে নারায়ণগঞ্জ থেকে কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমে গণতন্ত্রের মাকে মুক্ত করা হবে।

জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আনোয়ার সাদাত সায়েম বলেন, কোথায় আজ বাক স্বাধীনতা, কোথায় আজ গণতন্ত্র। গণতন্ত্র এখন কারাগারে বন্দি। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার আগ পর্যন্ত স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা রাজপথে থাকবে। দেশের মানুষের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দিতে বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশ পালন করেই এদেশের মানুষের অধিকার ফিরিয়ে আনা হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
সাক্ষাৎকার এর সর্বশেষ খবর
আজকের সবখবর