‘প্রতিদিন এমন ডাক্তার পাইলে ভালো হইতো’


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:২৬ পিএম, ১৪ আগস্ট ২০১৮, মঙ্গলবার
‘প্রতিদিন এমন ডাক্তার পাইলে ভালো হইতো’

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার জালকুড়িতে শিশু মাতৃ স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা সপ্তাহ শেষ হয়েছে।

মাতুয়াইলে অবস্থিত শিশু মাতৃ স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটের গাইনী ও শিশু বিশেষজ্ঞ ডাক্তাররা ১১ আগস্ট শনিবার থেকে ১৪ আগস্ট মঙ্গলবার পর্যন্ত উক্ত ৪ দিন সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দিয়েছেন।

সেবাদানের উক্ত কার্যক্রমে নিয়োজিত ছিলেন চার জন গাইনী বিশেষজ্ঞ ডাক্তার, একজন জন গাইনী বিশেষজ্ঞ মেডিকেল অফিসার, দুই জন শিশু বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ও এক জন শিশু বিশেষজ্ঞ মেডিকেল অফিসার।

গাইনী বিশেষজ্ঞ ডাক্তার রাসিদা আক্তার বলেন, ‘এখানে আমরা গত ৪ দিন ধরে রোগীদের সেবা দিয়েছি। এটা যদিও শুধুমাত্র মা ও শিশুদের জন্য। তবে এখানে জেনারেল বিভাগের রোগীরাও আসছে। আমরা তাদের ও সাধারণভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা দিচ্ছি। তাদের সামান্য সমস্যার জন্য তাদের তো আর বলতে পারছি না যে অন্য হাসপাতালে যান।’

ফরিদা বেগম নামের একজন নারী হাসপাতালের উদ্যোগের প্রতি সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, ‘এমনিতে এই হাসপাতালে ডাক্তার পাওয়া যায় না। মাঝে মধ্যেই আইসা ফিরা যাই। তবে এখন এতগুলা ডাক্তার থাকায় আজকে কোনো সমস্যা হয় নাই। প্রতিদিন এমন ডাক্তার পাইলে ভালো হইতো।’

আনিসা আক্তার নামের একজন গার্মেন্টস কর্মী নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘আমার বাচ্চাটা খুব ছোট। তার জন্য কয়দিন পর পর ডাক্তার লাগে। আর এইখানে নিয়োমিত ডাক্তার না পাওয়ায় প্রায়ই বেসরকারী ক্লিনিকে যাইতে হয়। আমাদের জন্য অতো খরচা পোষায় না। এইখানে বছরে মাত্র ৪ দিনে ৮ জন ডাক্তার না দিয়া এইভাবে সারাবছর নিয়োমিত ২ জন ডাক্তার দিলেও হইতো। সরকারী টিকেটের ১৫ টাকা তো দেওনই যায়।’

মাতুয়াইলে অবস্থিত শিশু মাতৃ স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটের গণসংযোগ কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘শোকের মাস উপলক্ষে আমরা এই আয়োজনটা করেছি। আসলে আমাদের আয়োজন ৫দিনের। প্রথম ৪ দিন হয়েছে জালকুড়িতে আর শেষ দিন হবে মাতুয়াইলে। জালকুড়িতে আর্থিক অসচ্ছল রোগীদের সংখ্যা বেশি। তাই প্রথম ৪ দিনের আয়োজন আমরা জালকুড়িতে করেছি।’

আপনার মন্তব্য লিখুন:
-->
newsnarayanganj24_address
মানুষ মানুষের জন্য এর সর্বশেষ খবর
আজকের সবখবর