rabbhaban

বৃহৎ ঈদ জামাত সফল, যা বললেন শামীম ওসমান


সিটি করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ১২:৩৪ পিএম, ২২ আগস্ট ২০১৮, বুধবার
বৃহৎ ঈদ জামাত সফল, যা বললেন শামীম ওসমান

এবার নারায়ণগঞ্জের ইতিহাসের প্রথম এতো বড় ঈদের জামাতে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে মানুষের উপস্থিতি দেখে আগামী ঈদুল ফিতরে বাংলাদেশের মধ্যে বড় ঈদের জামাতের আয়োজন করার আশ্বাস দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান। একই সঙ্গে এবারের আয়োজনে সকল ভুল ত্রুটির জন্য মুসল্লিদের কাছে তিনি ক্ষমা চেয়েছেন।

বুধবার সকাল সাড়ে ৮টায় শহরের ইসদাইর এলাকায় ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ পুরাতন সড়কের উত্তর পাশে একে এম সামছুজ্জোহা স্টেডিয়াম এবং দক্ষিণ পাশে কেন্দ্রীয় ঈদগাহ সমন্বয়ে ঈদের জামাতের আগে শুভেচ্ছা বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন যিনি নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের একজন প্রভাবশালী নেতাও।

শামীম ওসমান বলেন, এখানে আমি সব থেকে বাজে মানুষ। গত ঈদের (ঈদুল ফিতরের) নামাজে দেখেছি মানুষ খুব কষ্ট করে নামাজ আদায় করেছেন। তা দেখে আমার খুব কষ্ট লেগেছে। তখন নিয়ত করেছিলাম সবাইকে নিয়ে, ইসলামী চিন্তাবিদ, বিভিন্ন মসজিদের ইমামদের নিয়ে তাদের সকলের সঙ্গে আলোচনার ভিত্তিত্বে সহি ভাবে আল্লাহর হুকুম হলে আমরা এখানে জামাত করবো। আল্লাহ দয়া করে আমাদের সকলকে মিলিয়ে কাজটি করিয়েছে। তারপরও আরো সুন্দর করার ইচ্ছা ছিল। আগামীতে ইনশাল্লাহ আরো ব্যাপক করবো।

কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে শামীম ওসমান বলেন, আমি জেলা প্রশাসন থেকে শুরু করে সকল প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের কাছে কতৃজ্ঞতা প্রকাশ করছি যারা এর মধ্যে পরিশ্রম দিয়েছেন। এটা নিরাপত্তার ব্যবস্থা রেখেছেন। এছাড়াও নারায়ণগঞ্জে ৭০০ মসজিদের ইমাম, জেলা প্রশাসক, রাজনীতিবিদ, চেয়ারম্যান মেম্বার ও কয়েকজন কাউন্সিলর সহ সবাইকে আমি দাওয়াত দিয়েছিলাম। আর সবাই মিলে সহযোগিতা করেছেন। আমি সব দলের নেতাদেরও দাওয়াত দিয়েছিলাম। আমি নিজে ফোনে ফোনে দাওয়াত দিয়েছি।

তিনি বলেন, এখানে সিসি টিভি ক্যামেরা, টয়লেট সহ বিভিন্ন ব্যবস্থা করা আছে। যাতে মানুষের কোন সমস্যা না হয়। এটা প্রথম হয়েছে তাই ত্রুটি বিচ্যুতি থাকতেই পারে। তবে আশা করছি আগামীতে আল্লাহর হুমক হলে ত্রুটি বিচ্যুতি থাকবে না। এসবে আমাদের সাহয্য করেছেন বিকেএমইএ, চেম্বার অব কমার্স ও আমার বড় ভাই এমপি সেলিম ওসমান অর্থিক বিষয়টি সাহায্য করেছেন।

শামীম ওসমান আরো বলেন, আমরা এবার শুরু করেছি। এবার আমরা ঈদগাহ, স্টেডিয়াম ও মধ্যের রাস্তাটা সহ করছি। আমি জানি না আগামীবার বাঁচবো কিনা। আজকেই বাঁচবো কিনা জানি না। নিশ্বাসের কোন বিশ্বাস নাই যখন খুশি চলে যাবো। হয়তো এ জামাতও আমার পড়া হবে না। যদি আল্লাহর হুকুম হয় আর অগামী রমজান মাসে রোজা রাখার শক্তি রাখে। তাহলে ইনশাল্লাহ এবার হয়েছে নারায়ণগঞ্জের বৃহত্তম জামাত। আগামীবার বাংলাদেশের অন্যতম বৃহত্তম জামাত হবে। যদি আল্লাহ চায় তাহলে এটা আমরা করবো।

তিনি আরো বলেন, আমি জেলা প্রশাসক, আমার বন্ধু ও বড় ভাই সেলিম ওসমানের পরামর্শ নিয়েছি। আগামীবার রমজান মাসে এ ঈদগাহটা রমজানের আগেই কাজ শেষ হয়ে যাবে। আমরা চেষ্টা করবো যাদের আল্লাহ অর্থিক ভাবে সামর্থ দিয়েছেন খরচ করার কিংবা যাদের মন আছে তাদের নিয়ে শুরু করি। আস্তে আস্তে পরবর্তী প্রজন্ম করবে। ঈদগাহতে শুরু হবে রমজান মাসের প্রথম ৩০ দিন আমরা মদিনা শহরে যেভাবে মানুষকে ডেকে ডেকে ইফতার করায় সেই ভাবে ঈদগাহে নামাজ পরে ইফতারের আয়োজন করবো। ধনী গরিব সবাই বসে ওইখানে ইফতার করবো এবং রমজান মাসের ঈদের জামাতটা হবে ওসমানী স্টেডিয়াম, এ স্টেডিয়াম, ঈদগাহ ও মধ্যে রাস্তা মিলিয়ে। যদি আল্লাহ চায় তাহলে সবখানে লাখ লাখ মানুষ হবে। সবার পক্ষে মদিনা যাওয়া সম্ভব না তাই এ সৌন্দর্যটা যেন চালু করতে পারি এ দোয়া করবেন।

মুসল্লিদের কাছে ক্ষমা চেয়ে শামীম ওসমান বলেন, এখানে সবাই কাজ করেছে এর মধ্যে যদি ভুল হয়ে থাকে তাহলে আমার হয়েছে। যদি কোন ত্রুটি হয়ে থাকে সেটা আমার হয়েছে। তাই ক্ষমা করে দিবেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর