paradise

বন্দর প্রেসক্লাবের বার্ষিক সাধারণ সভায় স্থায়ী সদস্য নির্ধারণ


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ১০:০০ পিএম, ০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, শনিবার
বন্দর প্রেসক্লাবের বার্ষিক সাধারণ সভায় স্থায়ী সদস্য নির্ধারণ

সাংবাদিকদের মাঝে ঐক্য এবং কাজের মধ্যদিয়ে ভাবমুর্তি উজ্জল করার আহ্বানের মধ্যদিয়ে বন্দর প্রেসক্লাবের বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

৮ সেপ্টেম্বর শনিবার সকাল ১০টায় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত সাধারণ সভায় নেতৃবৃন্দরা এ আহ্বান জানান। প্রেসক্লাব সভাপতি মোবারক হোসেন কমল খানের সভাপতিত্ব এবং সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন সিদ্দিকীর সঞ্চালনায় সাধারণ সভায় বক্তব্য রাখেন প্রধান উপদেষ্টা জিএম মাসুদ, উপদেষ্টা সরদার মোহাম্মদ আলীম, সহ সভাপতি কবির হোসেন, কাজীম আহমেদ, সহ সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ নাসিরউদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক আমির হোসেন, প্রচার ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মেহেবুব মিয়া, নির্বাহী সদস্য জিএম মজনু, নুরুজ্জামান মোল্লা সহ প্রমুখ।

সভার শুরুতে সাংবাদিক নাসিরউদ্দিনের মাতার মৃত্যুতে শোক প্রস্তাব গ্রহণ, পূর্ব সভার সিদ্ধান্ত পাঠ ও অনুমোদন, বার্ষিক হিসাব অনুমোদন, প্রাথমিক সদস্য ৬ জনকে সাধারণ সদস্য পদ প্রদান এবং নতুন আবেদনকারী ২ জনকে প্রাথমিক সদস্য পদ প্রদান করা হয়। এছাড়া বন্দর প্রেসক্লাবের দুই যুগ পূর্তি উপলক্ষ্যে জমকালো অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি সহ প্রেসক্লাব সম্প্রসারিত ভবন নির্মাণ কাজ শুরুর বিষয়ে আলোচনা করা হয়।

সভাপতি মোবারক হোসেন কমল খান বলেন, আজকে ঐক্য না থাকার কারণে সারাদেশে সাংবাদিক সমাজ নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। পাবনায় সাংবাদিক হত্যাসহ সারাদেশে সাংবাদিক নির্যাতনের তীব্র নিন্দা এবং দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। এছাড়া সাংবাদিকদের নিরাপত্তা রক্ষায় কঠোর আইন করতে হবে। মুক্ত সাংবাদিকতা ও মত প্রকাশের স্বাধীনতা আমাদের সাংবিধানিক অধিকার সেই অধিকার রক্ষায় বর্তমান সরকারকে সচেষ্ট হতে হবে। নির্যাতন হামলা-মামলা দিয়ে সাংবাদিকের কন্ঠ রোধ করা যাবেনা।

প্রধান উপদেষ্টা জিএম মাসুদ বলেন, গতানুগতিক সংবাদ সবাই তৈরী করতে পারে কিন্তু একজন সাংবাদিক তখনই সফল হয়, যখন সে নিজে সংবাদ তৈরী করতে পারে। ভিন্নধর্মী এবং সমাজ ও দেশের উপকার হয়, সমাহের অসঙ্গতি চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়ে প্রতিকারের ব্যাবস্থা করতে পারাই প্রকৃত সাংবাদিকতা। এমন সংবাদ তৈরীর মধ্যেই কৃতিত্ব রয়েছে।

সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন সিদ্দিকী বলেন, ১৯৯৩ সালে প্রতিষ্ঠার পর অনেক চড়াই উৎরাই পেরিয়ে বন্দর প্রেসক্লাব আজকের অবস্থানে এসেছে। এক সময় এখানে ময়লার ভাগাড় ছিলো। আর এখন পূর্ণাঙ্গ প্রেসক্লাব ভবন হয়েছে। আমাদের সাংবাদিকতা এবং প্রেসক্লাবের ভাবমূর্তি উজ্জল হয় এমন কাজ করতে হবে। কোন সদস্যের দ্বারা যেন প্রেসক্লাবের ভাবমূর্তি নষ্ট না হয় সেদিকে সবাইকে খেয়াল রাখতে হবে। অন্যায় কাজে কেউ সম্পৃক্ত থাকলে ছাড় পাওয়ার সুযোগ নেই।

সাধারণ সভার ২য় অধিবেশনে ৬ জন সাধারণ সদস্য এবং ২ জনকে প্রাথমিক সদস্য পদ প্রদান করা হয়। সাধারণ সদস্য পদে যাদের অনুমোদন দেয়া হয়েছে তারা হলেন জিএম সুমন (দৈনিক যুগের চিন্তা), মাহফুজুল আলম জাহিদ (বাংলাদেশ সময়), দ্বীন ইসলাম দিপু (দৈনিক অগ্রবানী), শাহজামাল (স্বাধীন বাংলা টিভি), আরিফ হোসাইন কনক (নিউজ নারায়ণগঞ্জ), হৃদয় হোসেন জয় (সকাল বার্তা)। এছাড়া প্রাথমিক সদস্য হিসেবে অনুমোদন দেয়া হয়েছে দৈনিক সমকাল পত্রিকার ফটো সাংবাদিক মেহেদী হাসান সজীব এবং দৈনিক খোলা কাগজের জেলা প্রতিনিধি মো. মামুন মিয়াকে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
rabbhaban
আজকের সবখবর