rabbhaban

নৌকার মাঝি হচ্ছেন শামীম ওসমান


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:৪৩ পিএম, ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, রবিবার
নৌকার মাঝি হচ্ছেন শামীম ওসমান

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে আগামীতেও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে যাচ্ছেন বর্তমান এমপি শামীম ওসমান এমন ইঙ্গিত দিয়ে গেছেন নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান এমপি। সরকারের এ প্রভাবশালী মন্ত্রী বলেছেন, ‘ইতোমধ্যে আমরা ১০০ আসনে একটি তালিকা তৈরি করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ প্রাথমিকভাবে ১০০ জনের একটি তালিকা করেছে। প্রাথমিক তালিকাতে শামীম ওসমানের নাম আছে। তাই আপনাদের ধরে নিতে হচ্ছে আগামীতে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে প্রার্থী হচ্ছেন শামীম ওসমান। সুতরাং আগামীতে উন্নয়নের স্বার্থে শামীম ওসমানকে আবারো নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করবেন। শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হলে তাঁে মনোনীত প্রার্থীকে আমাদের জয়ী করতে হবে।

৯ সেপ্টেম্বর রোববার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার আলীগঞ্জে মেরি এন্ডারসনে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) এর স্টাফ কোয়ার্টার নির্মাণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ওই অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এমপি শামীম ওসমান।

নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান এমপি বলেছেন, বিএনপির জন্মই হয়েছিল খুনের মধ্য দিয়ে। তারা শুধু জাতির জনককেই স্বপরিবারে হত্যা করেনি। ক্যু ঠেকানোর নামে মুক্তিযোদ্ধা কর্ণেল তাহেরকেও হত্যা করেছিল। তারা ক্ষমতায় থাকলেও মানুষ হত্যা করে ক্ষমতায় না থাকলেও মানুষ হত্যা করে। ২০১৩ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত পেট্রোল বোমা মেরে অসংখ্য মানুষকে হত্যা করেছে। আমরা শ্রমিক পেশাজীবী মুক্তিযোদ্ধাদের সমন্বিত করে আন্দোলন করাকালীন আমাদের উপরেও একাধিকবার বোমা নিক্ষেপ করা হয়েছে। খালেদা জিয়া অসৎ সঙ্গ অর্থাৎ জামায়াতকে ত্যাগ করতে না পারলে রাজনীতির মাঠ থেকে হারিয়ে যাবে। কারণ যুদ্ধাপরাধী জামায়াত হলো পাপে দুষ্ট। খালেদা জিয়া হলো মিথ্যায় বিশ্বচ্যাম্পিয়ন। তার জন্মতারিখ হলো ৬ টা। যদি বিএনপি প্রমান করতে পারে আমি মিথ্যা বলছি তাহলে আমি প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইবো। আর মিথ্যাবাদিকে ক্ষমতায় আনলে দেশের বারোটা বাজবে। বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালীন একটি ড্রেজারও ক্রয় করে নাই। অথচ আমরা ২০টি ড্রেজার ক্রয় করার পাশাপাশি প্রাইভেট সেক্টরেও শতাধিক ড্রেজার রয়েছে। দেশের অনেক নদীই আমরা খনন করছি যা বহু বছরেও কেউ খনন হতে দেখে নাই। বিএনপির দৌড় সালাউদ্দিনসহ অনেকেই নদী দখল করে রেখেছিল। আমরা নদী দখলমুক্ত করেছি। নদীর পাড়ে ২০ কিলোমিটার ওয়াকওয়ে নির্মাণ করেছি। আরো ৫০ কিলোমিটার ওয়াকওয়ে নির্মাণ কাজ শীঘ্রই শুরু হবে। ঢাকার চারিপাশে মোট ২৮০ কিলোমিটার ওয়াকওয়ে নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে। নদীগুলোকে দখল ও দূষণমুক্ত রাখতে হবে। এটা শুধু মন্ত্রনালয় কিংবা সরকারের একার কাজ নয় আমাদের সবাইকেই এ বিষয়ে এগিয়ে আসতে হবে। শ্যামপুরে ও নারায়ণগঞ্জে দু’টি ইকোপার্ক নির্মাণ করা হয়েছে। আরো দু’টি ইকোপার্ক নির্মাণের কাজ শীঘ্রই শুরু হবে। বিএনপি পদ্মাসেতু নির্মাণে অনেক বাধা সৃষ্টি করেও না পেরে বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া বলেছেন আমরা নাকি জোড়াতালি দিয়ে পদ্মা সেতু নির্মাণ করছি। তাই আমি বলতে চাই পদ্মাসেতু চালু হলে বিএনপির নেতাকর্মীরা যাতে পদ্মা সেতুতে না ওঠে। কারণ তাদের নেত্রী নির্দেশ দিয়েছেন পদ্মাসেতুতে না ওঠার জন্য। বিএনপি ৫ বছর ক্ষমতায় থাকাকালীন দেশকে দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন করেছিল। আর শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকাকালীন সেটা ১৩-১৪ নম্বরে নেমে এসেছে। শেখ হাসিনার পক্ষেই সম্ভব দেশকে দুর্নীতি মুক্ত রাখা। দেশকে উন্নয়নের পথে ধাবিত করা। তাই শেখ হাসিনার মনোনীত প্রার্থী যারা হবেন তাদেরকে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। এসময় তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে আপনারা কাকে আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে দেখতে চান।

বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমোডর এম মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) জসিমউদ্দিন হায়দার, ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাইফউল্লাহ বাদল, সাধারণ সম্পাদক শওকত আলী, মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজাম, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, নগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন সাজনু, বিআইডব্লিউটিএ’র ঢাকা সদরঘাটের যুগ্ম পরিচালক আরিফ উদ্দিন, আলমগীর কবির প্রমুখ।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
rabbhaban
আজকের সবখবর