মাথাপিছু ১০০ টাকায় চলছে শ্রমিক আন্দোলন


সিটি করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:৪৭ পিএম, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বুধবার
মাথাপিছু ১০০ টাকায় চলছে শ্রমিক আন্দোলন

পাওনা টাকার দাবিতে আন্দোলনরত বেকা গার্মেন্ট অ্যান্ড টেক্সটাইল লিমিটেড শ্রমিকদের কাছ থেকে ১০০ টাকা করে চাঁদা নিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি সেলিম মাহমুদের বিরুদ্ধে।

বুধবার (১২ সেপ্টেম্বর) সকালে নারায়ণগঞ্জ শহীদ মিনারে উক্ত গার্মেন্ট শ্রমিকদের সমাবেশ চলাকালে শ্রমিকেরা সাংবাদিকদের কাছে এসব অভিযোগ করেছেন।

এ সময় তারা বলেন, ‘আমরা সকালে তাগো অফিসে যাই। ওখানেই আমাগো কাছ থেকে ১০০ টাকা করে রাখছে। টাকা নেওয়ার সময় আমাগো কিছু কয় নাই। খালি কইছে আন্দোলনের জন্য ১০০ টাকা কইরা দিতে হবে।’

এদিকে শ্রমিকদের দেয়া চাঁদার ব্যাপারে সেলিম মাহমুদ বলেন, ‘আমি নিজে কোনো টাকা নেইনি। শ্রমিকদের মধ্যেই কেউ তাঁদের কাছ থেকে টাকা নিয়েছে। মূলত তাদের আন্দোলনের খরচ নিশ্চয় আমরা ব্যাবহার করবো না। তাই যাদের আন্দোলন তারাই এসব টাকা সকলে মিলে সরবরাহ করে থাকেন।’

অপর এক আন্দোলনরত শ্রমিক কামাল হোসেন নিউজ নারায়ণগঞ্জকে জানান, ‘টাকাটি আমরা নিজেরাই তুলেছি। আমদের ব্যানার কিনবা মাইকের খরচের জন্য। তাছাড়া আমরা শ্রমিকরা সবাই একসাথে সকালের চা নাস্তাও খেয়েছি। সেই কাজেই আমাদের টাকা খরচ হয়েছে।’

এদিকে সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের প্রেরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, আদমজী ইপিজেড এ অবস্থিত বেআইনীভাবে বন্ধ বেকা গার্মেন্টস ও টেক্সটাইল লিঃ অবিলম্বে চালুসহ ১২ দফা দাবিতে বেলা ১১ টায় নারায়ণগঞ্জ শহরে কারখানার শ্রমিকরা বিক্ষোভ মিছিল ও নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে সমাবেশ করে। কারখানার শ্রমিক সংগ্রাম কমিটির আহ্বায়ক সোহরাব হোসেনের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি আবু নাঈম খান বিপ্লব, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি সেলিম মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম গোলক, সহ-সভাপতি সাইফুল ইসলাম শরীফ, দপ্তর সম্পাদক কামাল পারভেজ মিঠু, সিদ্ধিরগঞ্জ থানার সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন সোহাগ, কাঁচপুর শিল্পাঞ্চল শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক মোঃ সোহেল, বিসিক শাখার সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ সাইদুর, সংগ্রাম কমিটির সদস্য সচিব নাহার, যুগ্ম আহ্বায়ক দুলালী, সদস্য পাখি, সোহাগী, বিউটি, সীমা, কামাল, রহিমা।

নেতৃবৃন্দ বলেন, ইপিজেড আইনে ৭ কমর্ দিবসে বেতন দেয়ার আইন থাকলেও বেকা গামেন্টসে কখনো আইন অনুযায়ী বেতন দেয়া হয় না। গত এক বছরেরও বেশী সময় ধরে ১০ ঘন্টা সময়ের পরে অতিরিক্ত ওভারটাইমের টাকা দেয়া হয় না। ১০ ঘন্টার পরের ওভারটাইম কার্ডে তোলা হয় না। মাতৃত্বকালীন ছুটির টাকা দেয়া হয় না। এগুলো নিয়ে কর্তৃপক্ষের সাথে শ্রমিকরা কথা বলতে চাইলে তাদের গালিগালাজ, ভয়-ভীতি প্রদর্শন করা হয়। শ্রমিকরা তাদের ন্যায্য দাবির কথা বলায় আজ অবৈধভাবে কারখানা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। শ্রমিকরা তাদের অভিযোগ লিখিতভাবে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, শিল্প পুলিশ, বেপজাকে জানিয়েছে। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে শ্রমিকদের ১২ দফা দাবি মেনে নিয়ে কারখানা খুলে দেয়ার দাবি জানান।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
-->
newsnarayanganj24_address
মহানগর এর সর্বশেষ খবর
আজকের সবখবর