rabbhaban

রোববার ডিজিটাল বার ভবন উদ্বোধন, জুয়েল ও মোহসীনের মাইলফলক


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:৩৯ পিএম, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, শনিবার
রোববার ডিজিটাল বার ভবন উদ্বোধন, জুয়েল ও মোহসীনের মাইলফলক

অবশেষে বহুল প্রতিক্ষিত নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির ডিজিটাল বার ভবন উদ্বোধন হতে যাচ্ছে রোববার ২৩ সেপ্টেম্বর। এদিন দুপুর ১টায় জেলা আইনজীবী সমিতি মিলনায়তনে ওই উদ্বোধন করা হবে। এতে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক থাকবেন প্রধান অতিথি হিসেবে। এছাড়া জেলার ৫জন এমপিকে রাখা হয়েছে বিশেষ অতিথির তালিকাতে।

রাজনীতিতে সম্পৃক্ত কিন্তু পেশা হিসেবে আইনজীবী এমন কয়েকজন জানিয়েছেন, সমিতির সবশেষ নির্বাচন ছিল অনেক নাটকীয়তায় ভরা। অনেক কূটকৌশলের পর সেখানে গতবার সভাপতি হিসেবে হাসান ফেরদৌস জুয়েল ও সেক্রেটারী পদে মোহসীন মিয়া জয়ী হয়েছেন। সমিতির ১৭টি পদের মধ্যে ১১টিতেই হেরেছে আওয়ামীলীগ। ফলে আগামীতে বৈতরণী পার হতে হলে বর্তমান কমিটির বিরুদ্ধে প্রচার চালানোর মত কোন ইস্যু প্রয়োজন বিশেষ করে ব্যর্থতার। কিন্তু সমিতির যদি নতুন ৮ তলা বিশিষ্ট আধুনিক ডিজিটাল বার ভবনের কাজ শুরু হয়ে উঠে তাহলে সেটা হবে আওয়ামী লীগের জন্য বেশ পজেটিভ দিক। কারণ ইতোমধ্যে দুই কোর্ট আলাদা নিয়ে আইনজীবীদের মধ্যে যে উৎকণ্ঠা ছিল সেটা অনেকটাই চাপা দিয়ে রেখেছে বর্তমান কমিটি ও আওয়ামী লীগের এমপি সহ নেতারা। কারণ দুই কোর্ট আলাদা হলে সেটার জন্য ক্ষমতাসীন দলের প্যানেলকে বেশ কাঠখোড় পোহাতে হতো। কিন্তু দুই কোর্ট এখন পর্যন্ত একত্রিত থাকার কারণে বর্তমান সভাপতি জুয়েল ও সেক্রেটারী মোহসীনের ভান্ডারে এমনিতেই পজেটিভ দিকগুলো জমা পড়ে আছে। আর এর মধ্যে যদি নতুন বার ভবনের কাজ শুরু হয়ে যায় তাহলে সেটা হবে অগ্রগামী একটি বিষয়। এসব কারণে বর্তমান সভাপতি ও সেক্রেটারীকে সামনের নির্বাচন অনেকটাই জয়ের পথ সহজ করে দিবে নতুন বার ভবন।

তবে আওয়ামী লীগের কয়েকজন আইনজীবী জানান, জুয়েল ও মোহসীনের এ তৎপরতাকে ভালো চোখে নিচ্ছেন না প্রভাবশালী আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতা। তারা ভেতরে ভেতরে চেয়েছিলেন কোন একটি কূটকৌশল করে এ প্রক্রিয়াকে ভেস্তে দিতে। তবে তারা এখনো কেউ প্রকাশ্য না হলেও ভেতরে ভেতরে নানা ধরনের কৌশল করলেও সফল হয়নি।

জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির বহুতল বিশিষ্ট ডিজিটাল বার ভবনের জন্য গত ১৮ আগস্ট সয়েল টেস্ট তথা মাটি পরীক্ষা করা হয়। এর আগে এমপি সেলিম ওসমান এখানে বহুতল ভবন করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। এরই মধ্যে গত জানুয়ারীতে সমিতির নির্বাচন হওয়ার পর ইতোমধ্যে চলে গেছে ৮ মাস। বর্তমান কমিটির মেয়াদ আছে আর মাত্র ৪ মাস। এ সময়ের মধ্যে সভাপতি হাসান ফেরদৌস জুয়েল ও সেক্রেটারী মোহসীন মিয়া আরেকবার নিজেদের নেতৃত্ব পোক্ত করতে এ মেয়াদের মধ্যেই সমিতির বহুতল ভবন নির্মাণের শুরু কাজটি করতে চাচ্ছেন।

আইনজীবী সমিতির সভাপতি হাসান ফেরদৌস জুয়েলও পুরো ব্যাপারটি পরিষ্কার করে জানান, আইনজীবীদের ফান্ডে কোন হাত দেয়া হবে না। আর ভবন নির্মাণ চলাকালীন অবস্থায় আইনজীবীরা জজকোর্টে অবস্থান করবেন। জেলা জজকে অনুরোধ করা হলে তিনি আইনজীবীদের স্বার্থে আমাদের কথায় রাজি হয়েছেন। আশা করা যায় ৬ মাসের ভেতরেই ভবনের নিচতলা সম্পন্ন হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর