rabbhaban

নারায়ণগঞ্জ ডেকারেটর শ্রমিকদের ১০ দফা


সিটি করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৬:৫৮ পিএম, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, রবিবার
নারায়ণগঞ্জ ডেকারেটর শ্রমিকদের ১০ দফা

নারায়ণগঞ্জ ডেকোরেটর শ্রমিকদের ১০ দফা দাবী আদায়ের লক্ষ্যে ২৩ সেপ্টেম্বর রোববার সকাল ৯টায় নারায়ণগঞ্জ শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে নারায়ণগঞ্জ ডেকোরেটর শ্রমিক ইউনিয়নের উদ্যোগে শ্রমিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন শ্রমিক ইউনিয়ণের সভাপতি তপন কুমার রায়। বক্তব্য রাখেন, শ্রমিক ইউনিয়নের উপদেষ্টা বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের কেন্দ্রীয় নেতা হাফিজুল ইসলাম, জেলার সাধারণ সম্পাদক বিমল কান্তি দাস, গার্মেন্টস শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের জেলা সভাপতি এম এ শাহীন, ডেকোরেটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহ আলম, ইউনিয়নের কোষাধ্যক্ষ মোঃ নূরুল ইসলামসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

সমাবেশে শ্রমিক নেতা হাফিজুল ইসলাম বলেন, আমরা মালিক সমিতি বরাবরে ১০ দফা দাবীনামা দিয়েছি। মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ আমাদের দাবী মানার আশ্বাস দিয়েছেন। এখনো বৈঠকের সময় দিতে পারেননি। আশা করি মালিক সমিতি তাদের কথা রাখবেন। দুই এক দিনের মধ্যে আমাদের সাথে বসে দাবীর ব্যাপারে শান্তিপূর্ণ সমাধান করবেন। দেশে প্রচলিত শ্রম আইন অনুযায়ী আমাদের সকল প্রকার আইনী অধিকার ও সুযোগ সুবিধা দিতে হবে। আইনের বাইরে আমরা কিছু চাইব না। আলোচনার মাধ্যমে শান্তিপূর্ণ সমাধান না হলে ধর্মঘটের জন্য সকল শ্রমিক বন্ধুদের প্রস্তুত থাকতে হবে।

সরকারী কর্মচারীদের বেতন বাড়িয়ে দ্বিগুন করা হয়েছে। দ্রব্য মূল্য, বাড়ী ভাড়া, গাড়ী ভাড়া সবকিছুর মূল্য বেড়েছে। এমতাবস্থায় আমাদের দৈনিক হাজিরা ৯৫০/- টাকা নীচে কোনমতেই চলা সম্ভব নয়। তাই দৈনিক হাজিরা ৯৫০/- টাকার দাবী দিয়েছি।

এছাড়াও অন্যান্য দাবীর মধ্যে দুই ঈদে দুটি উৎসব বোনাস দিতে হবে। সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত কাজের পর কোন কাজ করালে প্রচলিত শ্রম আইন মেনে ওভারটাইম দিতে হবে।

ঝড় বৃষ্টি ও প্রাকৃতিক দুর্যোগে শ্রমিকদের জোর করে কাজ করতে বাধ্য করা যাবে না।

আর্জেন্ট কোন কাজের ক্ষেত্রে অল্প সময়ের জন্য কাজ করালেও একদিনের সম্পূর্ণ হাজিরা দিতে হবে।

ঈদ ও দুর্গা পূজার আগে ৩ দিন ও পরে ৩ দিন মোট ৬ দিন উৎসব ছুটি দিতে হবে।

কর্মরত অবস্থায় কোন শ্রমিক মৃত্যুরবরণ করলে বা কোন দুর্ঘটনায় আহত হলে প্রচলিত শ্রমআইন অনুযায়ী ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। কথায় কথায় শ্রমিক ছাঁটাই বন্ধ করতে হবে।

শ্রমিকের উপর কোন শারীরিক নির্যাতন করা যাবে না। ডেকোরেটরের সকল প্রতিষ্ঠানে দেশের প্রচলিত শ্রম আইন ও আইএলও কনভেনশনে গৃহীত শ্রমিক স্বার্থ সংরক্ষন করতে হবে। এসকল দাবী দুই একদিনের মধ্যে মেনে না নিলে বৃহত্তর আন্দোলনের কর্মসূচী ঘোষনা করা হবে। প্রয়োজনে জেলাব্যাপী ধর্মঘট আহ্বান করা হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর