rabbhaban

উচ্ছেদের চক্রান্তের প্রতিবাদে শেয়ারহোল্ডারদের মানববন্ধন


সিটি করেসপন্ডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:৪৯ পিএম, ২৬ মে ২০১৯, রবিবার
উচ্ছেদের চক্রান্তের প্রতিবাদে শেয়ারহোল্ডারদের মানববন্ধন

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১০ নং ওয়ার্ডের সিদ্ধিরগঞ্জের গোদনাইলে অবস্থিত বেসরকারী করণকৃত নিউ লক্ষ্মী নারায়ণ কটন মিলটির আন্দোলনরত শেয়ারহোল্ডারদের আবারো উচ্ছেদের চক্রান্তের প্রতিবাদে রোববার ২৬ মে সকালে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেছে মিলটির শেয়ারহোল্ডাররা। এদিকে দুপুরে মিলটির অভ্যন্তরে শেয়ারহোল্ডারদের উচ্ছেদ করতে ভেকুসহ মহড়া দিয়েছে নিট কনসার্নের লোকজন। এছাড়া সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে নিরীহ শেয়ারহোল্ডারদের হয়রানি করারও অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় উচ্ছেদ আতঙ্কের পাশাপাশি উত্তেজনা বিরাজ করছে।

নিউ লক্ষ্মী নারায়ণ কটন মিল শেয়ারহোল্ডার স্বার্থরক্ষা সংগ্রাম কমিটির আহবায়ক জাহাঙ্গীর হোসেনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন মোহাম্মদ আইয়ুব আলী, অনিল চক্রবর্তী, মুক্তিযোদ্ধা বিজয় চন্দ্র সরকার, নিধু কমল দে, তামলেক মিয়া, আরমান মিয়া প্রমুখ।

মানববন্ধনে নেতৃবৃন্দ বলেন, ২০০১ সালে ২১ মার্চ ৫১০ জন শেয়ার হোল্ডারদের মালিক বানিয়ে মিলটি হস্তান্তর করে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার। পরে পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান শামসুদ্দিন প্রধানের নেতৃত্বাধীন পরিচালনা পর্ষদ দীর্ঘ এক যুগ ধরে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতি করে বলে অভিযোগ শেয়ারহোল্ডারদের। সাবেক পরিচালনা পর্ষদ মিলটিতে একজন বিনিয়োগকারী নিয়োগের কথা বলে প্রতারণার মাধ্যমে ৩৮২ জনের শেয়ার হাতিয়ে নিয়ে নিট কনসার্ন গ্রুপের কাছে হস্তান্তর করে।

১৮ একর ৬৫ শতাংশের উপর গড়ে ওঠা শতবছরের পুরনো এই মিলটির আনুমানিক মূল্য ৭০০ কোটি টাকা হলেও মাত্র ৩৫ কোটি টাকায় মিলটি দখলে নেয়ার চেষ্টা করছে নিট কনসার্ন গ্রুপের জয়নাল আবেদীন মোল্লা ও তার লোকজন এমনটিই অভিযোগ শেয়ারহোল্ডারদের। ৫৩ জন শেয়ারহোল্ডার শেয়ার বিক্রি করতে রাজী না হওয়ায় তাদের উপর গত ৬ বছর ধরে চালানো হয়েছে নির্যাতনের স্টীম রোলার।

২০১৩ সালের ৩১ আগষ্ট বকেয়া বিলের অজুহাতে মিলের বিদ্যুৎ, গ্যাস ও পানির সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয় মিলের দুর্নীতিবাজ পরিচালনা পর্ষদ। সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্য দিবালোকে অস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়ে কলোনীতে আগুনও ধরিয়ে দেয়। এক শেয়ারহোল্ডারের রিট পিটিশন অনুযায়ী ২০১৫ সালের ২১ জানুয়ারী হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চের জাস্টিস মোঃ রেজাউল হাসান নির্বাচন দেয়ার আদেশ দেন।

নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত নিরপেক্ষ হিসেবে নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসককে নিউ লক্ষ্মী নারায়ণ কটন মিলের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান পদে ও শেয়ারহোল্ডারদের সরাসরি ভোটে পরিচালনা পর্ষদের পরিচালক পদে নির্বাচনের নির্দেশ দিয়েছেন। যে কারণে হাইকোর্টের আদেশে অদ্যাবধি মিলটির চেয়ারম্যান পদে রয়েছে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক।

তবে গত ১৬ মে মিলটির প্রবেশ ফটক সংলগ্ন দেয়ালে একটি নোটিশ সাটানো হয়েছে যাতে চেয়ারম্যান হিসেবে উল্লেখ করা হয় নিট কনসার্ন গ্রুপের জয়নাল আবেদীন মোল্লাকে। ওই নোটিশে আমাদেরকে ৪৮ ঘন্টার আলটিমেটাম দেয়া হয়। কিন্তু আমরা কেউই নোটিশে কোন ধরনের কর্নপাত না করায় গত ১৯ মে মাইকিং করা হয় ২৪ ঘন্টার মধ্যে আমাদেরকে শেয়ার জমা দিতে হবে। বারবার নোটিশ ও মাইকিং এর পরেও আমরা এতে কোন কর্নপাত না করায় বুধবার ২২ মে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে নিট কনসার্ন গ্রুপের নিয়োজিত শতাধিক ক্যাডার মিলটির অভ্যন্তরে অবস্থান নেয়।

এসময় তারা ফিল্মি স্টাইলে মাইকিং করে ২ ঘন্টার মধ্যে কলোনী খালি করার হুমকী দেয়। এতে করে শেয়ারহোল্ডারদের মধ্যে উচ্ছেদ আতঙ্ক দেখা দেয়। ভূমিদস্যু জয়নাল আবেদীন মোল্লা, তার ভাই জাহাঙ্গীর ও মনা এবং তাদের ক্যাডার বাহিনী প্রতিনিয়ত শেয়ারহোল্ডারদের হুমকী ধমকী দিচ্ছে।

এদিকে রোববার সকালে নিট কনসার্নের লোকজন মিলটির শেয়ারহোল্ডারদের কলোনীর সামনে একটি এক্সাভেটর (ভেকু) নিয়ে অবস্থান করতে থাকে। রোববার দুপুরে শেয়ারহোল্ডারদেরকে আবারো বসতবাড়ি থেকে বের করে দেয়ার চেষ্টা করতে থাকে। এসময় তাদের সঙ্গে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশের পরিদর্শক (অপারেশন) জসিমের নেতৃত্বে একটি টিমও ছিল। এতে করে আবারো শেয়ারহোল্ডারদের মধ্যে উচ্ছেদ আতঙ্ক দেখা দেয়।

এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহীন শাহ পারভেজ জানান, নিউ লক্ষ্মীনারায়ণ কটন মিলে কোন ধরনের উচ্ছেদের সিদ্ধান্ত হয়নি। এ বিষয়ে আদালতের কোন নির্দেশনা আমাদেরকে দেয়া হয়নি। তবে এর আগে একটি জিডি দায়ের হয়েছিল। ওই জিডির সূত্র ধরে আমাদের একটি টিম তদন্তে গেছে। তবে মিলের ভিতরে শেয়ারহোল্ডারদের কলোনীর সামনে ভেকু থাকার বিষয়টি আমার জানা নেই।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর