বর্ধিত বাসভাড়া প্রত্যাহারের দাবি


প্রেস বিজ্ঞপ্তি | প্রকাশিত: ০৬:০৬ পিএম, ০১ জুন ২০২০, সোমবার
বর্ধিত বাসভাড়া প্রত্যাহারের দাবি

১ জুন যাত্রী অধিকার সংরক্ষণ ফোরামের আহবায়ক রফিউর রাব্বি প্রেরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, করোনা দুর্যোগের কারণে কর্মহীন সাধারণ মানুষ যখন জীবন ও জীবিকা নির্বাহে আতঙ্কগ্রস্ত ভীত ও বিপর্যন্ত; তখন বাসভাড়া ৬০% বৃদ্ধি করা অত্যন্ত অন্যায় ও অযৌক্তিক একটি সিদ্ধান্ত। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এইটি পরিবহন মালিকদের একতরফা সুবিধা দেয়ার জন্য সরকারের গণবিরোধী নীতির প্রতিফলন।

৫০% আসন খালি রেখে পরিবহন চালানোর যে সিদ্ধন্ত সরকার ঘোষণা করেছে, তা কখনোই বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে না বলে আমরা মনে করি। এ সব তদারকি করার সক্ষমতা সরকারের আছে বলে আমরা মনে করিনা। মেয়াদোত্তির্ণ, ফিটনেসবিহীন-গাড়ি চলাচল বা লাইসেন্সবিহীন চালক নিয়ন্ত্রণ করা যেখানে সরকারের পক্ষে সম্ভব হয় না সেখানে এ তদারকি অসম্ভব। আমরা লক্ষ্য করেছি সরকারী প্রতিষ্ঠান বিআরটিএ সব সময়ই জনগণের স্বার্থ উপেক্ষা করে পরিবহন মালিক-সিন্ডিকেটদের স্বার্থ সংরক্ষণে সচেষ্ট থেকেছে, এ খেত্রেও তার ব্যতিক্রম হয় নি।

আমরা দেখেছি এই করোনা দুর্যোগে সরকার বিভিন্ন ব্যাবসায়ী প্রতিষ্ঠান, সংগঠন ও ব্যক্তিদেরকে প্রনোদনা দিয়েছে এবং দিচ্ছে; সে ক্ষেত্রে পরিবহন মালিকদের যদি প্রনোদনা দিতে হয় তা সরকারকেই বহন করতে হবে। সরকারকে এ ক্ষেত্রে ভর্তুকি দিতে হবে। বর্তমানে প্রায় সব দেশেই তা করা হচ্ছে। কিন্তু এ প্রনোদনার ভার গরিব জনগণের উপর চাপিয়ে দেয়া সম্পূর্ণ অন্যায়।

দেশে বিমান ও রেলের ক্ষেত্রেও অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলাচলের নির্দেশনা দিয়েছে সরকার, অথচ এ সবের ভাড়া বারেনি। ধনীদের ক্ষেত্রে সরকার ভর্তুকী দেবে আর গরিব নি¤œবিত্তদের ঘারে তার বোঝা চাপবে তা অন্যায়। আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাই। অবিলম্বে বর্ধিত বাসভাড়া প্রত্যাহার করে নতুন প্রজ্ঞাপন জারির দাবি জানাচ্ছি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর