৯৫ বছর বয়সী মোস্তফাকে নিতে নারাজ স্বজনরা


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:১৮ পিএম, ২৩ ডিসেম্বর ২০১৯, সোমবার
৯৫ বছর বয়সী মোস্তফাকে নিতে নারাজ স্বজনরা

ট্রেন দুর্ঘটনার কবলে পড়ে নারায়ণগঞ্জের বাসিন্দা ৯৫ বছর বয়সী আলী মোস্তফার স্বজনবিহীন অবস্থায় ১৬দিন যাবৎ ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি খবরটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠেনের পক্ষ থেকে তাঁর পরিবার ও আত্মীয় স্বজনদের খোঁজ শুরু হয়। দীর্ঘ খোঁজাখুজির পর বন্দরে মোস্তফার চাচাতো ভাই ও আপন দুই ভাগ্নের খোঁজ মিললেও তাঁরা আলী মোস্তফাকে নিবে না বলে সাফ জানিয়ে দেয়।

জানা যায়, গত ১৯ নভেম্বর ব্যক্তিগত কাজে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী দেলোয়ার হোসেন রনি ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজে গেলে আলী মোস্তফার খোঁজ পান। এখনো আলী মোস্তফার সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন।

২২ নভেম্বর রোববার নারায়ণগঞ্জে একাধীক সংগঠনের সদস্যদের সাথে কথা বলে জানা যায় আলী মোস্তফার জন্মস্থান নারায়ণগঞ্জের কলাগাছিয়া ইউনিয়ন পরিষদের মদনগঞ্জের চুনাবুড়া গ্রামে। দীর্ঘদিন ধরে আলী মোস্তফা তাঁর ভাগ্নে সাঈদুরের সাথে পুরান বন্দর এলাকায় বসবাস করতো। তাঁর স্ত্রী আছে কি না জানা যায়নি। তবে সাইফুল নামে এক ছেলে আছে। তবে এলাকাবাসীর মাধ্যমে জানা সে মাদকাসক্ত।

স্বেচ্ছাসেবী মনিরুল ইসলাম মুন্না নিউজ নারায়ণগঞ্জকে জানান, আমরা অনেক খোঁজাখুজি করে আলী মোস্তফার ভাগ্নে খোকন ও সাঈদুর রহমানকে বের করেছিলাম। কিন্তু তিনি তারা দুইজনেই তাঁকে রাখতে অস্বীকার করে। এত দিন নাকি সাঈদুর রহমানের সাথে ছিল। পরে ঝগড়া করে বন্দরের কোনো জায়গায় আলাদা থাকতো। পরে নাকি সেখান থেকেও চলে যায়। এর পরেই সে নিখোঁজ হয়।

তিনি আরো বলেন, এলাকাবাসী অভিযোগ করেছে যে সাঈদুর নাকি তাঁর কাছ থেকে অনেক টাকা নিয়েছে। এখন আর টকা দিতে পারে না তাই তাঁকে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে। আর এখন আর রাখতে চায় না। বন্দরে সাঈদুরের দুইটা বাড়ি আছে। কিন্তু তারপরেও সে রাখবে না।

স্বেচ্ছাসেবী নবী হোসেন বলেন, তাঁর বয়সের বিষয়টি দেখিয়ে ভাগ্নেকে অনেক বুঝিয়েছি। কিন্তু তিনি কোনো ভাবেই তাঁকে রাখতে রাজি হয়নি। সরাসরি বলে দিয়েছেন যে তাঁর নাকি কিছু করার নাই। তবে আমরা এখনো তাঁকে রাজি করার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর