বন্দরে স্বামী ও স্ত্রীকে ১৪ ঘণ্টা আটক রেখে নির্যাতন


সিটি করেসপন্ডেন্ট | প্রকাশিত: ০৭:৫৭ পিএম, ০৪ এপ্রিল ২০২০, শনিবার
বন্দরে স্বামী ও স্ত্রীকে ১৪ ঘণ্টা আটক রেখে নির্যাতন

মোবাইল চুরি আখ্যা দিয়ে স্বামী ও স্ত্রীকে একটি বাড়িতে প্রায় ১৪ ঘণ্টা আটক রেখে রাতভর নির্যাতন চলানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত ৩ এপ্রিল (শুক্রবার) রাত ৯টায় বন্দর থানার আনন্দ নগরস্থ সহর আলী মিয়ার বাড়ীতে এ নির্যাতনের ঘটনাটি ঘটে। নির্যাতিতরা হলো সালেক মিয়া (৪০) ও তার স্ত্রী দিলরোবা (৩৫)।

নির্যাতনের ঘটনার সংবাদ পেয়ে ধামগড় ফাঁড়ির ইনচার্জ ইসতিয়াক আশফাক রাসেলসহ সঙ্গীয় ফোর্স ৪ এপ্রিল (শনিবার) সকাল ১১টায় দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে বন্দীশালা থেকে দম্পতিকে উদ্ধার করে। এ ঘটনায় নির্যাতিত সালেক মিয়া বাদী হয়ে ৪ এপ্রিল (শনিবার) দুপুরে পাষান্ড কালাম মিয়া ও তার ৩ সন্ত্রাসী ছেলের নাম উল্øেখ্য করে বন্দর থানায় এ অভিযোগ দায়ের করেন।

জানা গেছে, গত ৩ এপ্রিল (শুক্রবার) দুপুরে বন্দর থানার আনন্দ নগর এলাকার মৃত সহর আলী মিয়ার ছেলে কালামের ঘর থেকে একটি মোবাইল চুরি হয়। পরে কালাম মিয়া ও তার তিন ছেলে মহসিন, তানভীর ও জসিম ওই দিন রাত ৯টায় মোবাইল চুরি সন্দেহে প্রতিবেশী সালেক মিয়া ও তার স্ত্রীকে চাল পড়া খাওয়ানোর কথা বলে বাড়ি থেকে ডেকে আনে। উক্ত দম্পতিকে একটি ঘরে আটক রেখে রাতভর শারীরিকভাবে নির্যাতন করে। এলাকাবাসী বিষয়টি ধামগড় ফাঁড়ির ইনচার্জ ইশতিয়াক আশফাক রাসেলকে অবগত করে। পরে ধামগড় ফাঁড়ী পুলিশ ৪ এপ্রিল শনিবার বেলা ১১টায় পাশান্ড কালামের বন্ধীশালা থেকে ওই দম্পত্তীদের উদ্ধার করে।

বন্দর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, অপরাধীদের কোন ছাড় নেই। নির্যাতনের ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। আমরা অভিযোগটি তদন্ত করে দেখছি। অব্যশই দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর