বিএনপির তুখোড় বক্তা বিল্লালের হার্টে ৪ ব্লকে জীবন সংকটাপন্ন


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৯:৪০ পিএম, ০৪ অক্টোবর ২০১৭, বুধবার
বিএনপির তুখোড় বক্তা বিল্লালের হার্টে ৪ ব্লকে জীবন সংকটাপন্ন

বেশীদিন আগের কথা না। বিএনপির কোন অনুষ্ঠান শুরুতেই একজন অনর্গল বক্তার বক্তব্য শুনতে পেত সবাই। নেতাকর্মীদের আগমনের আগে থেকেই তিনি অনর্গল বক্তব্য দিয়ে চাঙ্গা রাখতো ময়দান, সভাস্থল। আর নেতাদের আগমনের সঙ্গে সঙ্গে পদবী আর যথার্থ উপস্থাপনে পারদর্শী ছিলেন বিল্লাল হোসেন যাঁকে সবাই ‘তুখোড় বক্তা’ হিসেবেই জানেন।

তবে রাজনীতির ময়দানে এখন দেখা যায় না তাঁকে। কারণ হার্টের চারটি ব্লক নিয়ে এখন তিনি শয্যাশয়ী। নিজের জীবন নিয়ে শংকিত তিনি। ওপেন হার্ট সার্জারির প্রস্তুতি নিয়েও চিকিৎসক অপারেশনে নিতে পারছে না। হার্টবিট কম থাকায় উন্নতি চিকিৎসা শেষে অপারেশন করতে হবে তাঁর। কিন্তু তবুও রাজপথের জন্য তার মন কাদে। দীর্ঘ ৮মাস যাবত বিছানায় কাতরালেও মন পরে থাকে তার রাজপথে। অসুস্থতা নিয়েই আদালতে হাজিরা দিতে হয় তাঁর।

বুধবার ৪অক্টোবর আদালতে হাজিরা দিয়েছেন বিএনপি নেতা বিল্লাল হোসেন। দীর্ঘক্ষন কথা হয় নিউজ নারায়ণগঞ্জের প্রতিবেদকের সঙ্গে।

অতীতের রাজনীতিতে শুধু বক্তব্য নয় বরং অনুষ্ঠান পরিচালনার গুরু দায়িত্বও ছিল তাঁর উপর। পার্টি অফিসের তালা খুলে কর্মসূচি শুরু করা এবং শেষ করে পার্টি অফিস তালা লাগানোর কাজটাও করতেন তিনি। পোস্টার ব্যানার ফ্যাস্টুন লাগানো কাজেও দক্ষ এ নেতা। মাঠ পর্যায়ের একজন সাধারণ কর্মী থেকে হয়ে ওঠা বিএনপি নেতা বিল্লাল হোসেন। আজ কঠিন পরিস্থিতিতে তিনি। জীবন মৃত্যুর সন্নিকটে তিনি।

তিনি নিউজ নারায়ণগঞ্জকে জানালেন, দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে বেশকবার কারাভোগ করেছেন। রাজপথে আন্দোলন সংগ্রাম করতে গিয়ে পুলিশের হামলা মামলার শিকার হয়েছেন। হয়েছেন প্রতিপক্ষ রাজনৈতিক দলের হামলা নির্যাতনের শিকার। তবুও দলের মায়া ছাড়েনি। ছাড়েননি রাজপথ। রাজপথের আন্দোলন সংগ্রামে ছিলেন সামনের সারিতেই। শহর বিএনপির সাবেক যুগ্ম সম্পাদকের পদে থাকলেও মহানগর বিএনপির আংশিক কমিটিতে পদ পাননি তিনি। এ নিয়ে দুঃখ থাকলেও আক্ষেপ নেই তাঁর। কারো বিরুদ্ধে নেই তার কোন অভিযোগ। সকলের কাছে তার একটাই চাওয়া তা হলো সকলের দোয়া তিনি যেনো সুস্থ হয়ে আবারো ফিরে আসতে পারেন রাজপথে। আবারো শ্লোগান দিবেন রাজপথে। মাইক নিয়ে ঘন্টার পর ঘণ্টা বক্তব্য দিবেন এবং সেই স্বপ্নই দেখছেন তিনি।

হার্টের চারটি ব্লক নিয়ে এখনও একাধিক মামলায় আদালতের কাঠগড়ায় হাজিরা দিতে হয় তাঁর। হার্টবিট বাড়িয়ে পরবর্তীতে ওপেন হার্ট সার্জারি করতে হবে। কিন্তু তা যে ব্যয়বহুল। ব্যয়বহুল চিকিৎসা করাটাও দূরহ ব্যাপার। সেই সঙ্গে রয়েছে ঝুঁকি। ওপেন হার্ট সার্জারি করতে হলে আগে তাকে উন্নতি চিকিৎসা দিয়ে হার্টবিট বাড়াতে হবে। তারপর ওপেন হার্ট সার্জারি করতে হবে। যদিও একাধিকবার সার্জারির প্রস্তুতি নিলেও চিকিৎসকরা ঝুঁকি নিতে চায়নি।

তিনি আরো জানান, স্বৈরাচার এরশাদ বিরোধী আন্দোলন করতে গিয়ে দুইবার কারাগারে গিয়েছিলেন বিল্লাল হোসেন। এরশাদের শাসনামলের শুরুতেই কারাভোগ করেন ১৭ দিন পরবর্তীতে এরশাদের পতনের শেষের দিকে ৭দিন কারাভোগ করেন। কারামুক্ত হলে রহমতউল্লাহ ইনস্টিটিউশনের সামনে গণসংবর্ধনাও দেয়া হয় তাকে। ওই সময় প্রয়াত নেতা নাজির প্রধানের সঙ্গে কারামুক্ত হন তিনি। আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর একাধিক মামলার শিকার হয়েছেন। রাজপথে হামলা নির্যাতনের শিকার হয়েছেন।

তবে তিনি দাবি করেছেন বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকারের রাজনৈতিক দূরদর্শিতার কারণে তাকে জেল খাটতে হয়নি অসুস্থ শরীর নিয়ে।

মহানগর বিএনপিতে পদ না পাওয়া নিয়ে দুঃখ নিয়ে বলেন, আমার কোন আক্ষেপ নেই। কারন রাজপথে যাদের সঙ্গে আমিও আন্দোলন সংগ্রামে ছিলাম তারাও পদ পাননি। ফলে আমিও তাদের মধ্যেই পড়ে গেছি। এখন আমি শুধু সকলের দোয়া কামনা করি এবং আমি যাদের সঙ্গে রাজপথে আন্দোলন সংগ্রাম করেছি কেবল তাদের সহযোগীতাই কামনা করি।

বিল্লাল হোসেন সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের গড়া প্রথমে জাগো দল ও পরবর্তীতে প্রতিষ্ঠিতি বিএনপির প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকে রাজনীতি শুরু করেন। বিএনপির প্রতিষ্ঠাকালীন সময়ে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার গোগনগর ইউনিয়ন বিএনপির ১১ সদস্যের কমিটিতে সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন তিনি। পরবর্তীতে তিনি গোগনগর ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হন। পরে শহর কেন্দ্রীক রাজনীতিতে সক্রিয় হলে তিনি নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের সদস্য, পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে সিনিয়র সহ-সভাপতি ও পরের কমিটিতে সহ-সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হন। সদর থানা যুবদলের সভাপতি ও পরে শহর বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। একই পদে ছিলেন পরের কমিটিতেও। এরপর সদর থানা যুবদলের কমিটিতে তাকে সদস্য সচিব করা হয় যে কমিটি মহানগর যুবদল বিলুপ্ত করেছে। এখন তিনি দাবিু করেন আমি বিএনপির একজন কর্মী হিসেবে গর্ববোধ করি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
-->
newsnarayanganj24_address
রাজনীতি এর সর্বশেষ খবর
আজকের সবখবর