rabbhaban

রনি সহ বিপদগ্রস্ত নেতাদের রেখে গা ঢাকা শাহআলমের


সিটি করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:৪৪ পিএম, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার
রনি সহ বিপদগ্রস্ত নেতাদের রেখে গা ঢাকা শাহআলমের

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) থেকে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতা হচ্ছেন শাহ আলম। আর তার ঘনিষ্টজনদের মধ্যে অন্যতম একজন হচ্ছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মশিউর রহমান রনি। কিন্তু ঘনিষ্টজন হওয়া সত্ত্বেও রনির মুক্তিতে তার তেমন কোন ভূমিকা লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। যদিও তিনি বর্তমানে দেশের বাহিরে অবস্থান করছেন। তবে তার দেশের বাইরে অবস্থান নিয়ে রয়েছে বিতর্ক।

দলীয় নেতাকর্মীদের সূত্রে জানা যায়, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি থেকে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী হচ্ছেন শিল্পপতি খ্যাত শাহ আলম। দলীয় প্রায় সকল কর্মসূচিতেই তার অংশগ্রহণ থাকে না। নিজে উপস্থিত না থেকে টাকার বিনিময়ে ঘনিষ্টজনদের দিয়ে দলীয় কর্মসূচি পালন করে থাকেন। স্থানীয় পর্যায়ের কোন কর্মসূচিতে তার অংশগ্রহণ না থাকা সত্ত্বেও বিশাল অংকের টাকার বিনিময়ে জেলা বিএনপির সহ সভাপতির পদটি বাগিয়ে নিয়েছেন।

জনশ্রুতি রয়েছে, সর্বশেষ নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সভাপতির পদটিও টাকার বিনিময়ে তার শিষ্য ও ঘনিষ্টজন হিসেবে পরিচিত মশিউর রহমান রনিকে দিয়ে বাগিয়ে নিয়েছেন। অঢেল টাকার প্রভাবে কর্মী সমর্থকদেরকেও তিনি তার কর্মচারি মতোই বিবেচনা করে থাকেন। দলীয় কোন কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ না করেও কেন্দ্রীয় নেতাদের সুনজরে রয়েছেন তিনি। তার প্রভাবের কাছে স্থানীয় পর্যায়ের ত্যাগী নেতারাও মূল্যায়িত হচ্ছেন না।

এদিকে গত ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে ১৭ সেপ্টেম্বর সকাল পর্যন্ত নিখোঁজ থাকেন নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মশিউর রহমান রনি। প্রায় দুইদিন নিখোঁজ থাকার পর ১৭ সেপ্টেম্বর সকালে রনিকে পিস্তল ও গুলি সহ গ্রেফতার দেখানো হয়। কিন্তু রনির পরিবারের সদস্যরা বলছেন, পিস্তল ও গুলি সহ গ্রেফতারের ঘটনা সাজানো। মশিউর রহমান রনিকে রাজধানীর বাড্ডা এলাকা থেকে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে মশিউর রহমান রনিকে মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর থেকেই নিখোঁজ ছিলেন তিনি।

এরই মধ্যে ২০ সেপ্টেম্বর রনির দেওয়া তথ্যমতে আরো একটি অস্ত্র উদ্ধার দেখানো হয়। তবে মশিউর রহমান রনির এই দুর্দিনে পাশে নেই তার রাজনৈতিক গুরু খ্যাত শাহ আলম। যার আশ্রয়ে প্রশ্রয়ে বেড়ে উঠেছেন রনি। অথচ এই রনির মুক্তির দাবিতে তার কোনো ভূমিকাই লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। জেলা বিএনপির সহ সভাপতি শাহআলম বর্তমানে দেশের বাইরে অবস্থান করছেন। মূলত মামলা থেকে বাঁচতেই তিনি দেশের বাইরে রয়েছেন মনে করছেন নেতারা।

অন্যদিকে তারই শিষ্য খ্যাত মশিউর রহমান রনি কারাগারে দিন কাটাচ্ছেন। আর এই রনিকে দিয়ে শাহ আলম ছাত্রদলের সমর্থন ধরে রেখেছিলেন। যে সমর্থনকে কাজে লাগিয়ে শাহ আলম আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে বিএনপি থেকে মনোনয়ন নিশ্চিতের প্রচেষ্টায় ছিলেন। কিন্তু রনির মুক্তিতে দৃশ্যত তার কোন ভূমিকা না থাকায় কিছুটা ক্ষোভ লক্ষ্য করা যাচ্ছে জেলা ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের মধ্যে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
রাজনীতি এর সর্বশেষ খবর
আজকের সবখবর