rabbhaban

জেলা ছাত্রদলকে দুই আল্টিমেটাম, অন্যথায় আলাদা কর্মসূচীর সিদ্ধান্ত


সিটি করেসপন্ডেন্ট | প্রকাশিত: ১১:১০ পিএম, ১৫ মে ২০১৯, বুধবার
জেলা ছাত্রদলকে দুই আল্টিমেটাম, অন্যথায় আলাদা কর্মসূচীর সিদ্ধান্ত

নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলকে দুটি বিষয়ে আল্টিমেটাম দিয়েছে জেলা ছাত্রদলের অধীনস্থ ৫টি থানা কমিটির শীর্ষ নেতারা। দুটি বিষয়ে দৃষ্টিপাত না করা হলে কিংবা নেতৃবৃন্দের বাইরে গিয়ে সংগঠন বিরোধী নিজস্ব স্বার্থ হাসিলে কোন সিদ্ধান্ত নিলে বর্তমান নেতৃত্বের প্রতি অনাস্থাসহ আলাদাভাবে কর্মসূচী পালনের সিদ্ধান্ত নেন নেতারা।

বুধবার (১৫ মে) ৫টি থানার শীর্ষ নেতারা রুপগঞ্জের গাউছিয়া এলাকায় একটি রেস্টুরেন্টে ছাত্রদলের একটি ইফতার মিলনীতে এসব সিদ্ধান্ত নেন নেতারা। একই সাথে তৃণমূল ও রাজপথের নেতাকর্মীদের জেলার অধীনস্থ সকল কমিটিতে মূল্যায়ন করতে নেতারা সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

ইফতার মাহফিল ও আলোচনার পর একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে নিজেদের সিদ্ধান্ত জানান ৫ থানার শীর্ষ নেতারা।

বিবৃতিতে তারা বলেন, ১৮ থেকে ১৯ বছরে থানা কমিটির বন্ধ্যাত্ব না গুছিয়ে জেলা ছাত্রদলের শীর্ষ নেতাদের একাধিক পদের উচ্চ লালসা ও থানা কমিটি গঠনে চরম অনীহা আমরা পাঁচটি থানা ছাত্রদলের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ মোটেও ভালো চোখে দেখছি না। থানা ও ইউনিট কমিটিগুলো গঠন না করে জেলা ছাত্রদলের পদধারী নেতারা আবার নেতা হওয়ার চরম লজ্জাজনক ও ঘৃণিত গোপন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। জেলার শীর্ষ দুই নেতা ইতোমধ্যে জেলা বিএনপির দুটি গুরুত্বপূর্ণ পদ যথাক্রমে জেলা ছাত্রদলের ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক ও সহ ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক পদ দুটি তাদের দখলে নিয়ে নিয়েছেন। এছাড়া জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটিতে গুরুত্বপূর্ণ পদ পাওয়ার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছেন তারা। এই লক্ষ্যে দেশ বিদেশে জোরালো লবিং করছেন তারা। তৃণমূলকে সাংগঠনিকভাবে পরিচয়হীন রেখে তাদের ক্ষমতা কুক্ষিগত করার উচ্চবিলাসী মনোভাব ও চরম স্বেচ্ছাচারিতা আমরা কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছি না। এমন অদ্ভূত পরিস্থিতিতে আমরা নারায়ণগঞ্জ জেলার অধীনস্থ ৫টি থানা ছাত্রদলের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ উল্লেখিত সিদ্ধান্ত সমূহ ঐক্যমতে পৌঁছেছে।

আল্টিমেটাম দুটি হল, আগামী কয়েক দিনের মধ্যে দ্রুততম সময়ে পাঁচটি থানা কমিটি একসাথে ঘোষণা করতে হবে। অন্যটি কেন্দ্র কর্তৃক ঘোষিত জেলা কমিটিতে যে বা যারা পদ পেয়েছে তারা থানা কমিটিতে আসতে পারবেন না।

যদি উপরের সিদ্ধান্ত দুটি যথাসময়ে বাস্তবায়িত না হয় তাহলে থানা ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দ ২২ মে থেকে জেলা ছাত্রদলের সাথে যৌথভাবে কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ থেকে বিরত থাকবে। পাঁচটি থানা ছাত্রদলের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ সম্মিলিতভাবে ব্যানারে কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচিসমূহ যথাযথ মর্যাদায় পালন করবে।

উল্লেখ্য থাকে যে, সিদ্ধান্ত দুটি যথাসময়ে যদি বাস্তবায়িত না হয় তাহলে বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে ২২ শে মে থেকে ৩১ মে পর্যন্ত কেন্দ্র ঘোষিত প্রোগ্রাম সমূহ থানা ছাত্রদল তাদের নিজস্ব ব্যানারে করার নৈতিক সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো।

এতে উপস্থিত থেকে বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেছেন রুপগঞ্জ থানা ছাত্রদল নেতা আবু মোঃ মাসুম, সুজন আহম্মেদ, আল আমিন, আল মামুন, আল আমিন ২, মাসুম মোল্লা, মাসুম বিল্লাহ, সোনারগাঁও থানা ছাত্রদল নেতা মোঃ কাউসার, বিন ইয়ামিন, নোবেল মীর, সোহেল রানা, নিপুন হোসাইন, করিম রহমান, আমিনুল ইসলাম জাফর আহমেদ তুষার, ওসমান গনি, শরীফুল ইসলাম, শাকিল, ফতুল্লা থানা ছাত্রদল নেতা রেজা সালমানী খান, শাহাদাৎ হোসেন, আড়াইহাজার থানা ছাত্রদল নেতা নয়ন পারভেজ ভূইয়া, মেহেদী হাসান রানা, মোতাহার হোসেল রাফেল, মোঃ এনামুল, বন্দর থানা ছাত্রদল নেতা রাকিব প্রমুখ।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর