rabbhaban

নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের ইফতার বর্জন একাংশের


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৩:২৭ পিএম, ২৭ মে ২০১৯, সোমবার
নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের ইফতার বর্জন একাংশের

নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের ইফতার মহফিল ও দোয়া অনুষ্ঠান বর্জন করেছেন সভাপতি মশিউর রহমান রনি ও সাধারণ সম্পাদক খাইরুল ইসলাম ব্যতিত কমিটির সুপার ফাইভসহ অনেকেই। নেতাকর্মীদের সাথে আলোচনা না করে ইফতার মহফিল অনুষ্ঠান, দলের নেতাকর্মীদের সাথে আলোচনা না করেই সাংগঠনিক বিভিন্ন কাজকর্ম করার প্রতিবাদে তারা এ ইফতার মহফিল বর্জন করেন।

সোমবার (২৭ মে) বিকেলে শহরের বাংলা ভবন কমিউনিটি সেন্টারে এ ইফতারের আয়োজন করে জেলা ছাত্রদল। এর আগে দুপুরে নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে সভাপতি সাধারণ সম্পাদক ব্যতীত কমিটির বাকি নেতারা ইফতার অনুষ্ঠান বর্জনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন।

ইফতার বর্জন করা এক নেতা জানান, সংগঠনের সিদ্ধান্ত ও থানা কমিটিসহ বিভিন্ন কাজ সভাপতি সাধারণ সম্পাদক একাই করছেন। তারা কারো সাথে কোন আলোচনা করছেন না আবার কাউকে ডাকছেনও না। নিজেরা নিজেরাই সিদ্ধান্ত নিয়ে সংগঠনের নেতৃত্ব নিয়ে যা ইচ্ছে করছেন। এমন অবস্থায় তাদের ইফতার আমরা বর্জন করেছি। দলের অভ্যন্তরে নানা বিষয় নিয়ে এখন সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে, মূলত এর মধ্যে সভাপতি সাধারণ সম্পাদকের স্বেচ্ছাচারিতা একটি প্রধান ইস্যূ। এখানে যার তার হাতে নেতৃত্ব তুলে দিতে সভাপতি সাধারণ সম্পাদক উঠে পড়ে লেগেছেন। কমিটি নিয়ে দুজন কাজ করলেও এ ব্যাপারে বাকিদের অন্ধকারে রাখা হয়েছে। অথচ আমাদেরকে দিয়েই কমিটি গঠনের ব্যাপারে সার্চ কমিটি গঠন করেছিল সভাপতি সাধারণ সম্পাদক।

তিনি আরো জানান, ইফতার নিয়ে দলীয় ফোরামে কোন আলোচনাই করা হয়নি। কোন কিছু না জানিয়ে ইফতার অনুষ্ঠান ঘোষণা করে ফেলা হয়েছে। সমন্বয়হীনতার কারণেই ইফতার বর্জন করছি আমরা।

নাম প্রকাশ না করে ইফতার বর্জনের সিদ্ধান্ত জানিয়ে জেলা ছাত্রদলের একজন যুগ্ম সম্পাদক জানান, আমরা ইফতার অনুষ্ঠান নয়, মূলত বর্জন করেছি সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের অনুষ্ঠান। তা ছাড়া এই ইফতার অনুষ্ঠান কোথায় হবে কিভাবে হবে এসব নিয়েও আমাদের সাথে কোন আলোচনা করা হয়নি। স্বেচ্ছাচারিতা করে সংগঠন চালাচ্ছেন সভাপতি সাধারণ সম্পাদক। এভাবে একটি সংগঠন চালালে সেখানে দ্বন্দ্ব ব্যতীত ভালো কিছু আশা করা যায়না।

বৈঠকে উপস্থিত থাকা নেতারা জানিয়েছেন, আলোচনা না করে এভাবে অনুষ্ঠান করা ও স্বেচ্ছাচারিতার প্রতিবাদে আজকে আমরা ইফতার বর্জন করেছি, এভাবে চলতে থাকলে আমরা সংগঠনের স্বার্থে আগামীতে আরো কঠিন ও কার্যকরী সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হবো।

ইফতার বর্জন করেছেন সিনিয়র সহ সভাপতি মাহমুদুল্লাহ, সহ সভাপতি আরিফুর রহমান মানিক, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক ইসমাইল মামুন, যুগ্ম সম্পাদক মেহেদী হাসান, মশিউর রহমান শান্ত, নাজমুল হাসান বাবু, রাকিব হাসান রাজ, রফিকুল ইসলামসহ জেলা ছাত্রদলের একটি বৃহৎ অংশ।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর