rabbhaban

জেলায় ব্যর্থ হয়ে কেন্দ্রে লবিং ছাত্রদল সভাপতির


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৯:৪০ পিএম, ১৬ জুন ২০১৯, রবিবার
জেলায় ব্যর্থ হয়ে কেন্দ্রে লবিং ছাত্রদল সভাপতির

একের পর এক দেশব্যাপী বিভিন্ন জেলার ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের সাথে দেখা করছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মশিউর রহমান রনি। জেলা ছাত্রদলের সভাপতি রনি কেন্দ্রীয় কমিটিতে শীর্ষ পদের জন্য এবার লড়বেন বলে প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তারই অংশ হিসেবে বিভিন্ন জেলা ছাত্রদলের সভাপতি সাধারণ সম্পাদক সহ শীর্ষ পর্যায়ের নেতাদের সাথে দেখা সাক্ষাৎ করে শুভেচ্ছা বিনিময় করছেন তিনি। তবে এ শুভেচ্ছা বিনিময়ে বিরূপ প্রভাব পড়েছে জেলা ছাত্রদলের প্রতিটি ইউনিটের নেতাকর্মীদের মধ্যে।

নেতাকর্মীদের সুত্রে জানা যায়, রনি দীর্ঘদিন ধরেই জেলার সকল ইউনিট কমিটি করবেন বলে নেতাকর্মীদের আশা দিয়ে টালবাহানা করেছেন। ঈদ ও রমজানের সময় নেতাকর্মীদের কোন ধরনের খোঁজ খবর তিনি নেননি। ঈদের পর জেলার অধীনে কোন থানায় তিনি সফর করেননি, কারো খোঁজ খবর রাখেননি। কিন্তু ঈদের পর থেকে তিনি দেশের বিভিন্ন জেলার নেতাদের সাথে যোগাযোগ করে নিয়মিত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছবি দিয়ে যাচ্ছেন। এতে স্থানীয় নেতাকর্মীদের হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হয়েছে।

নেতাকর্মীরা জানান, সারাদেশে নেতাদের সাথে এমন ছবি তুলে রাজনীতি না করে জেলায় আমাদের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে যদি একটি মিছিল রনি করতে পারতো তাহলে সেটি বেশি আলোচিত হতো ও কাজে দিতো। নেতাকর্মীদের নিয়ে কারাবন্দি অসুস্থ্য বেগম খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় একটি দোয়ার আয়োজনও করেনি। অথচ নিজের স্বার্থে অন্য জেলার ছাত্রদলের শীর্ষ নেতাদের সাথে যোগাযোগ করছেন তিনি। জেলার নেতাকর্মীদেরকে যিনি মূল্যায়ন করতে পারেন না তিনি কেন্দ্রে কি করবেন।

জেলা ছাত্রদলের কয়েকজন যুগ্ম সম্পাদক জানান, রনি তো এখন কেন্দ্রে পদের জন্য এদিক সেদিক তদবির লবিং করছেন। অথচ তার জন্য আমাদেরকে কথা শুনতে হচ্ছে। রনি নিজে জেলার একজন ব্যর্থ নেতা হয়ে তিনি আবার কিভাবে কেন্দ্রে নেতৃত্ব দেবেন। তার কথায় বিভিন্ন ইউনিট ছাত্রদলকে গুছানো হয়েছে কিন্তু কাউকে কোন দলীয় পরিচয় না দিয়ে কারো সাথে যোগাযোগ না করে তিনি অন্য জেলার নেতাদের সাথে যোগাযোগ করছেন। এভাবে তিনি সংগঠনকে পরিচালনা করতে পারেন না।

জেলার নেতাকর্মীদের দিকে মনযোগী হতে অনুরোধ করে জেলার নেতাকর্মীরা জানান, নিজ জেলার নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন না করলে এক সময় রনিকে রাজনীতি থেকে ঝরে পড়তে হবে। এভাবে নিজের খুটি শক্ত না করে, দলীয় কাজ না করে শুধু পদের জন্য লড়লেই হবেনা। ইতোমধ্যে সে জেলা বিএনপির ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি হিসেবে রয়েছেন। আবার এখন তিনি কেন্দ্রেও পদের জন্য লড়ছেন। তাকে এখন সংগঠনের দিকে নজর দিতে হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর