rabbhaban

৭ সেপ্টেম্বর লাখো মানুষের সমাবেশে ষড়যন্ত্রকারীদের বুক যেন কাঁপে


স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | প্রকাশিত: ০৬:৪৯ পিএম, ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার
৭ সেপ্টেম্বর লাখো মানুষের সমাবেশে ষড়যন্ত্রকারীদের বুক যেন কাঁপে

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমান বলেছেন, ‘একটা গভীর ষড়যন্ত্র সারা দেশে হচ্ছে। নারায়ণগঞ্জও তার চেয়ে বিচ্ছিন্ন না। ওই ষড়যন্ত্রের সঙ্গে স্থানীয় ষড়যন্ত্র যোগ হয়েছে। এর পেছনে টাকাও রয়েছে। মোটা অংকের টাকা হয়তো এসেছে নারায়ণগঞ্জে। ১৬ জুন কেন মরি নাই। হয়তো সেই ষড়যন্ত্রকারীরাই এ কাজটি করছে। আমাকে হত্যার জন্য ২০ জনকে হত্যা করা হলো। কিন্তু সফল হলো না। এখন কারা কি করছে আমি সব খবরই পাচ্ছি। একটু আগেই পাচ্ছি। কোন হোটেলে মিটিং হচ্ছে, কোথায় ষড়যন্ত্র হচ্ছে সব জানি। সব বললে অনেকে চেহারা দেখাতে পারবেন না। কারা জামায়াতের সঙ্গে কথা বলছেন আলোচনা করছেন সবই জানি। বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনীতে বার বার নারায়ণগঞ্জ লেখা আছে। এ নারায়ণগঞ্জ নিয়ে খেলতে দেওয়া হবে না। ষড়যন্ত্র মোকাবেলায় যে ভাষায় জবাব দেওয়া দরকার সেই ভাষাতেই কড়া জবাব দেওয়া হবে।’

তিনি বলেন, ‘খেলা তো হবেই। যাদের সঙ্গে ছাত্র জীবনে খেলে আসছি তারা এখন মনে করছেন নাটক খেলবেন। আগে বয়স কম ছিল তখন চিন্তা করি নাই। এখনো চিন্তা করি। সব কিছুর বক্তব্য দেওয়া হবে ৭ তারিখে (৭ সেপ্টেম্বর)। চাষাঢ়া শহীদ মিনার অথবা আশেপাশে সেখানেই সমাবেশটি হবে। যারা নারায়ণগঞ্জকে নিয়ে ষড়যন্ত্র করে তাদের বিরুদ্ধেই এ সমাবেশ হবে যাতে তাদের বুক থর থর কাঁপে। সে সমাবেশে লাখ লাখ মানুষের উপস্থিতি ঘটাতে হবে। এ সমাবেশ দেখে শেখ হাসিনা যেন গর্ববোধ করতে পারে।’

তিনি বলেন, ‘২০০৬ সালের ২৬ ডিসেম্বর আমি নারায়ণগঞ্জ এসেছিলাম। তখন অনেকেই অনিশ্চয়তায় ছিলেন। সেদিন লাখ লাখ মানুষের সমাবেশ ঘটেছিল। সে রাতেই সেনাবাহিনী, র‌্যাব, বিজিবি, পুলিশ আমাকে গ্রেপ্তার করতে ঘেরাও করেছিল তখন আপনাদের মত হাজার হাজার হাজার মানুষ খেয়ে না খেয়ে আমাকে ১৭দিন পাহারা দিয়েছিলেন। তাই আমি সবাইকে অনুরোধ করবো কারো ডাকের অপেক্ষায় না থেকে সমাবেশে যোগ দিবেন।’

তিনি বলেন, ‘বিগত এক সময়ে আমি দেশে ছিলাম না। তখন ঢাকাতে অনেক সমাবেশ হতো। তখন আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা এও নেতাদের বলেছেন আমি তখনই বাসা থেকে সমাবেশের উদ্দেশ্যে রওনা দিতাম যখন শুনি নারায়ণগঞ্জ থেকে শামীমের মিছিল এসে পৌছেছে। আমরা সেই নারায়ণগঞ্জকে নিয়েই গর্ব করি। জাতির পিতার কন্যা জাতীয় সংসদে আমাদের পরিবার নিয়ে যা বলেছে সেটাই বড় পাওনা। আমরা প্রমাণ করবো নারায়ণগঞ্জ শেখ হাসিনা ছিলেন, আছে ও থাকবে।’

৩ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার বিকেলে পঞ্চবটিতে আকবর টাওয়ারে ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মতবিনিময় সভায় ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি এম সাইফউল্লাহ বাদলের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শওকত আলী, সিনিয়র সহসভাপতি আসাদুজ্জামান, সহসভাপতি শহীদুল্লাহ, এমএ আউয়াল, যুগ্ম সম্পাদক বিএম শফি, সাংগঠনিক সম্পাদক ওয়ালী মাহামুদ, বদিউল আলম বদু, মহানগর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজাম, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভানেত্রী শিরিন বেগম, জেলা কৃষকলীগের সভাপতি নাজিম উদ্দিন, নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা মনির, ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক মোমেন শিকদার, প্রচার সম্পাদক জাহিদুল হক খোকন, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আবুল হোসেন প্রধান, শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন সাজনু, কাশিপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আইয়ুব আলী, বক্তাবলী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আফাজ উদ্দিন ভুইয়া, কুতুবপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন, এনায়েতনগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি রাজ্জাক মাস্টার, ফতুল্লা থানা যুবলীগের সভাপতি মীর সোহেল, মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মো: জুয়েল হোসেন, ফতুল্লা থানা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি ফরিদ আহম্মেদ লিটন, সাধারন সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, থানা ছাত্রলীগের সভাপতি আবু মোহাম্মদ শরীফুল হক, সাধারন সম্পাদক এমএ মান্নান, সাংগঠনিক সম্পাদক মোশারফ হোসেন, সহসভাপতি শরিয়তউল্লাহ বাবুসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর