rabbhaban

ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে হাই বাদল ইকবাল, ছিলেন শামীম ওসমানও


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:৫০ পিএম, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, রবিবার
ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে হাই বাদল ইকবাল, ছিলেন শামীম ওসমানও

সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন বিষয়কে কেন্দ্র করে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগে নতুন মেরুকরন পরিলক্ষিত হতে শুরু করেছে। একসময় নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা ও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য জেলা আওয়ামী লীগকে কিছুটা এড়িয়ে চললেও সেই আওয়ামী লীগকেই এবার তিনি কাছে টানতে শুরু করেছেন। তার সমর্থিত নেতাকর্মী সমর্থকরা জেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন কর্মসূচিগুলো সফল করে দিচ্ছেন। সেই সাথে শামীম ওসমানও জেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের সাথে সাংগঠনিক বিষয় নিয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের আলাপ আলোচনায় অংশগ্রহণ করছেন। আর সেই আলোচনায় এমন নেতাদেরও দেখা মিলছে যাদেরকে বিগত দিনে শামীম ওসমানের সাথে দেখা যায়নি।

জানা যায়, গত কয়েকদিন পূর্বে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই এবং সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ বাদল সাংগঠনিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সাথে মিলিত হন। এসময় তাদের সাথে ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইকবাল পারভেজ। সে সময় তাদের সাথে যোগ দেন নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা ও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান।

পরবর্তীতে সবাই একসাথেই নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন সাংগঠনিক বিষয় নিয়ে কথা বলেন। যদিও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেছেন, শামীম ওসমান অন্য একটি কাজে গিয়েছিলেন ওবায়দুল কাদেরের সাথে সাক্ষাৎ করার জন্য। তবে বের হওয়ার সময় তারা সকলেই একসাথে বের হয়েছেন এবং তাদের মাঝে হৃদ্যতাপূর্ণ সম্পর্ক ফুঁটে উঠে এসেছে।

ওবায়দুল কাদেরের সাথে ওই বৈঠকে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের ঘোষিত থানা কমিটি ও বাকী থাকা কমিটির সম্মেলন নিয়ে আলাপ আলোচনা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই।

নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই নিউজ নারায়ণগঞ্জকে জানান, আমাদের মধ্যে নারায়ণগঞ্জের সাংগঠনিক বিষয় নিয়ে আলাপ আলোচনা করা হয়েছে। কিভাবে কি করা যায়, বাকী ৪ টি থানা কমিটির সম্মেলন রয়ে গেছে। সেগুলো কিভাবে করা যায়। যদিও আগের কমিটিগুলো তৃণমূল না করে আগেই ঘোষণা দেয়া হয়েছে। মন্ত্রী হয়ে গেছে থানার সভাপতি, তিনবারের এমপি হয়েছে থানা সভাপতি। তবে বাকী ৪টি থানা কমিটির আগে তৃণমূল থেকে করে আসার কথা বলা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় নেতাদের সাংগঠনিক সফরের গুরুত্বরোপের কথা তুলে ধরে শামীম ওসমান বলেছেন, কেন্দ্রীয় নেতারা যায় যায় করে সাংগঠনিক সফরে যায় না। সাংগঠনিক সফরে গেলে আলাপ আলোচনা করে অনেক সমস্যার সমাধান করা যায়। ৬ জনকে একসাথে পাঠাতে না পারলে একজন কে পাঠান কিংবা দুইজনকে পাঠান। কেন্দ্রীয় টিম পাঠান, কেন্দ্রীয় টিম আসলে ভুল বোঝাবুঝির অবসান হয়।

তাদের এসকল বক্তব্যের প্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ঠিক আছে কোন সমস্যা নাই। আপনারা যে কোন সমস্যায় আমার অফিসে আসবেন। আমি প্রতিদিন দুইবার আসি। আপনারা আসবেন। আওয়ামী লীগ যেহেতু বড় দল, সমস্যা থাকাটাই স্বাভাবিক। আমরা তো আর অন্য দল না। বিশাল দল, সমস্যা থাকতেই পারে। আবার ভুল বুঝাবুঝিও হইতেই পারে। সমস্যা হলে সমাধান তো অবশ্যই আছে। সাংগঠনিক সমস্যা হলে গঠনন্ত্র মোতাবেক মীমাংসা হবে।

নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ পর্যায়ের নেতাদের সাথে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেররের বৈঠকে শামীম ওসমানের মিলিত হওয়া নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগে নতুন মেরুকরণেরই ইঙ্গিত বহন করে। এর আগের কর্মসূচিগুলোতেও শামীম ওসমান জেলা আওয়ামী লীগ প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সমর্থন দিয়ে এসেছেন। সেই সাথে জেলা আওয়ামী লীগও শামীম ওসমানকে কিছুটা সমর্থন দিয়ে আসছেন। ইকবাল পারভেজকে বিগত দিনের শামীম ওসমানের বিরোধী পক্ষের সাথে থাকলেও এবারও তিনিও শামীম ওসমানের বিভিন্ন জায়গায় একত্রিত হচ্ছেন।

সূত্র বলছে, ২০১৬ সালের ৯ অক্টোবর ৩ সদস্য বিশিষ্ট নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের কমিটির ঘোষণা দেয়া হয়। এর ১৩ মাস পর ২০১৭ সালে ২৫ নভেম্বর ৭৪ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দেয়া হয়।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর