rabbhaban

বাদল হেলাল পরবর্তীরা মেলে ধরতে পারে নাই


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:২০ পিএম, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার
বাদল হেলাল পরবর্তীরা মেলে ধরতে পারে নাই

প্রাচ্যের ড্যান্ডি খ্যাত নারায়ণগঞ্জের অন্যতম প্রসিদ্ধ বিদ্যাপীঠ তোলারাম কলেজ। ছাত্র আন্দোলন, নব্বইয়ের গণ অভ্যুত্থানের, স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনসহ বিভিন্ন সামাজিক আন্দোলনের সূতিকাগাড় বলা হয়ে থাকে কলেজটিকে।

সরকারি তোলারাম কলেজের ছাত্র ছাত্রী সংসদের কথা আসলে এখনও উঠে আসে আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহীদ বাদল ও জাকিরুল আলম হেলালের নাম। তাদের মধ্যে বাদল ভিপি ও হেলাল ছিলেন জিএস। তাদের পরে অনেকেই কলেজে কর্তৃত্ব নিলেও এ দুইজনকেই নির্বাচিত হিসেবেই সবাই গণ্য করে থাকে। কলেজের রাজনীতির কারণেই এ দুইজন এখন আওয়ামী লীগের রাজনীতিতেও পোক্ত। বাদল এখন জেলা আওয়ামী লীগের সেক্রেটারী আর হেলাল মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বাদল ও হেলাল পরিষদের পর অন্য কেউ আর ঠিকমত নিজেদের মেলে ধরতে পারেনি।

সূত্র মতে, কলেজটিতে সর্বশেষ ছাত্র সংসদ নির্বাচন হয়েছে ১৯৯১ সালে। যেখানে বাদল-হেলাল পরিষদ নির্বাচিত হয়। কিন্তু তারা দায়িত্ব ছাড়ার পর থেকে কলেজটিতে নির্বাচিত কোনো প্রতিনিধি আসেনি। দীর্ঘ সময়ে এমন নিয়ম বর্হিভূত পদ্ধতিতে ছাত্র সংসদের প্রতিনিধি নির্ধারণ হচ্ছে বলে নতুন নেতৃত্ব সৃষ্টিতে তৈরি হচ্ছে বাধা। এমনকি ছাত্ররাও নিজেদের নির্বাচিত প্রতিনিধি না পেয়ে তাদের দাবি জানাতে পারছে না। ফলে নানা সমস্যায় জর্জরিত হয়ে আছে কলেজটি।

জানা গেছে, ২০০৪ সালের ১৬ অক্টোবর কলেজটিতে সবশেষ বিতর্কিত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওইসময় নির্বাচিত হয় রাজীব-শাহ আলম পরিষদ। তবে এ নির্বাচন নিয়ে রয়েছে নানা প্রশ্ন। একতরফা নির্বাচন বলা হয়ে থাকে। ওই নির্বাচনে ছাত্রলীগের কাউকে অংশ নিতে দেওয়া হয়নি। কিন্তু এর আগে বাদল ও হেলাল পরিষদ নির্বাচনই ছিল সব থেকে আলোচিত পরিষদ।

বাদল হেলালের আগে বর্তমান জেলা আওয়ামীলীগে আহবায়ক কমিটির সদস্য আরজু ভূইয়া, জেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক রোকনউদ্দিন ও নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান এ কলেজের ভিপি নির্বাচিত হয়েছিলেন। কিন্তু রাজনৈতিক ও কলেজের বিভিন্ন কিছুর কারণেই এ ছাত্র সংসদ নির্বাচন স্থগিত রয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, রাজীব ও শাহআলমরা কলেজের ছাত্র ছাত্রী সংসদে থাকলেও নারায়ণগঞ্জের বেশীরভাগ মানুষ সেটা ঠিকমত জানতো না। বিশেষ করে যারা কলেজে যাতায়াত করতো সেইসব শিক্ষার্থীরাই বিষয়টি জানে। আপমর জনতা তথা সাধারণ নারায়ণগঞ্জবাসী এ দুইজন সম্পর্কে ওয়াকিবহাল না। তারা এখনও বাদল ও হেলালের নামই উচ্চারণ করে কলেজের ক্ষেত্রে কোন বিষয়ে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর