rabbhaban

তৌহিদী জনতার আগুন বঙ্গোপসাগরের পানিতেও নিভবে না


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৫:২৯ পিএম, ২১ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার
তৌহিদী জনতার আগুন বঙ্গোপসাগরের পানিতেও নিভবে না

ভোলায় ইসলাম ধর্ম অবমাননার ঘটনায় সৃষ্ট সংঘর্ষে হতাহতের ঘটনায় সমাবেশ করেছে নারায়ণগঞ্জ ওলামা পরিষদ। সোমবার ২১ অক্টোবর বাদ আছর শহরের ডিআইটি জামে মসজিদ এলাকাতে ওই সমাবেশটি অনুষ্ঠিত হয়।

এতে উপস্থিতিরা বলেন, ‘সারাদেশে তৌহিদী জনতার হৃদয়ে যে আগুন জলে উঠেছে সেটা বঙ্গোপসাগরের পানিতেও নিভবে না। তাই প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন ভোলার যে ঘটনা ঘটেছে সেটার কঠোর বিচার করেন। নতুবা সামনে কঠিন পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে।’

জেলা ওলামা দলের সভাপতি ও হেফাজতের আমীর মাওলানা আবদুল আউয়াল বলেন, ‘নবীর বিরুদ্ধে কটূক্তি হবে আর তৌহিদী জনতা ঘরে বসে থাকবে সেটা হয় না। যারা এ ঘটনায় জড়িত তাদের ফাঁসি কাষ্ঠে ঝুলাতে হবে।’

ওলামা পরিষদ নারায়ণগঞ্জ জেলার অন্যতম নেতা মাওলানা ইসমাইল হোসেন সিরাজী বলেন, একজন অমুসলিম মুসলমানদের হৃদয়ের স্পন্দন, মুসলমানদের দিলের টুকরা (সা:) কে গালি দিল আর মুসলমানদের কলিজায় কুঠারের আঘাত করল। মুসলমানেরা সেই কুঠারের ব্যথায় ব্যথিত হয়ে রাজপথে সেই জালেমের বিচার চাইলো আর সেই ব্যথিত মুসলমানদের উপর একদল জালেম জাতি ভাইয়েরা কোন কারণ ছাড়াই কারো পক্ষ নিয়ে কারো দালালি করে বুকের উপর নির্বিচারে গুলি চালালো। কিসের আশায় কিসের লোভে তারা গুলি চালালো আমি জানি না। তারা স্ব জাতি ভাই আমাদের। এই স্ব জাতি ভাই হয়ে আমাদের ব্যথিত হৃদয়ে মুসলমানদের পাখির মত নির্বিচারে গুলি চালিয়েছে কাদের ইশারায়?

তিনি বলেন, সরকারকে বলি আপনি যদি সত্যি দেশকে ভালোবেসে থাকেন আপনি যদি সত্যি ৯৯ভাগ জনগনকে মুহব্বত করে থাকেন তাহলে ইসকন নামের হিন্দু উগ্রবাদী সংগঠনকে নিষিদ্ধ করুন। রসুলকে যে গালি দিয়েছে, মুসলমানদের হৃদয়ে যে আঘাত করেছে তাকে প্রকাশ্যে ফাঁসি দিন। যদি আপনি ওই মুসলমানদের ব্যাথাকে পূরণ না করেন তাহলে মনে রাখবেন মুসলমানদের হৃদয়ে যে আগুন জ্বলেছে সেই আগুন আপনাকে ধ্বংস করে ছেড়ে দিবে।

আরো বক্তব্য রাখেন খেলাফত মজলিশের সভাপতি সিরাজুল মামুন, মহানগরের সভাপতি ডা. মোসাদ্দেক, হেফাজত নেতা আবদুল কাদির, মহানগর ইসলামী আন্দোলনের সভাপতি মুফতি মাসুম বিল্লাহ, মাওলানা ইসমাইল হোসেন সিরাজি, হারুন অর রশিদ, কামালউদ্দিন দায়েমী প্রমুখ।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর