rabbhaban

বিএনপিতে এবার নেতা বানাবেন তৃণমূল


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:৪১ পিএম, ২১ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার
বিএনপিতে এবার নেতা বানাবেন তৃণমূল

দেশের অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দল হওয়া সত্ত্বেও বিএনপি অনেকদিন ধরে ক্ষমতার বাইরে রয়েছে। সেই সাথে বিএনপিতেও সৃষ্টি হয়েছে অচলাবস্থা। যার ধারাবাহিকতায় নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপিও দলীয় আন্দোলন সংগ্রামে কোন ভূমিকা রাখতে পারছে না। তবে এ অবস্থার মধ্যে থাকতে চাচ্ছে না বিএনপি।

নিজেদের অচলাবস্থার উত্তরণ ঘটাতে চান। সেই লক্ষ্যে বিএনপির কমিটিগুলোকে সচল করবেন তারা। প্রত্যেকটি কমিটিই নতুন করে সাজানোর উদ্যোগ নিয়েছেন কেন্দ্রীয় বিএনপি। আর সেই নেতা সৃষ্টি হবে বিএনপির তৃণমূল পর্যায় থেকে। তৃণমূল বিএনপির নেতারাই নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপির নেতা নির্বাচন করবেন।

সূত্র বলছে, ২০১৭ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারী নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির ২৩ সদস্য ও জেলা বিএনপিতে ২৬ জনের আংশিক কমিটির তালিকা প্রকাশ করা হয়। এর একদিন আগে ১৩ ফেব্রুয়ারী নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাবেক তিনবারের এমপি অ্যাডভোকেট আবুল কালামকে সভাপতি ও বিলুপ্ত নগর বিএনপির সেক্রেটারী এটিএম কামালকে সাধারন সম্পাদক করে মহানগর বিএনপির কমিটি গঠন করা হয়। একইসাথে জেলা বিএনপির সাবেক কমিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী মনিরুজ্জামানকে সভাপতি ও জেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক মামুন মাহমুদকে সাধারণ করে জেলা  বিএনপির কমিটি গঠন করা হয়। তবে ওই কমিটি নারায়ণগঞ্জ তেমন একটা প্রভাব ফেলতে পারেনি। কমিটি গঠনের অনেকদিন পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত জেলা ও মহানগর বিএনপির অপূর্ণাঙ্গই থেকে যাচ্ছে।

বিএনপি সূত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপির নতুন কমিটি ঘোষণা হওয়ার পর থেকে পুলিশের ভয়ে রাজপথ থেকে হারিয়ে যান নেতাকর্মীরা। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একের পর এক হামলা-মামলায় নেতাকর্মীরা হয়ে পড়েন ঘরছাড়া। নেতাকর্মীদেরকে বেশিরভাগ সময় কাটে আদালতের বারান্দায় কিংবা কারাগারে। গ্রেফতারের ভয়ে শীর্ষ নেতাকর্মীদের থাকতে হয় কর্মসূচির বাইরে। কর্মসূচি পালনকালে তাদের নেতাকর্মীর সংখ্যাও কমে যায়। ফলে তাদের আন্দোলন সংগ্রামও তেমন জোরদার হয়ে উঠে না।

এরই মধ্যে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদ- দেন আদালত। এই রায়কে ঘিরেও নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা তেমন কোন জোড়ালো আন্দোলন গড়ে তুলতে পারেননি। পরবর্তীতে গত ৩০ অক্টোবর সেই সাজা বেড়ে ১০ বছর হওয়াতেও নারায়ণগঞ্জ বিএনপির আন্দোলন জমেনি। শুধুমাত্র নামকাওয়াস্তেই কর্মসূচি পালন করে গেছেন। তাদের দলীয় প্রধান মাসের পর মাস কারাভোগ করলেও আন্দোলন সংগ্রামে নিস্ক্রীয়ই থেকে যান নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা।

একই সাথে গত ১০ অক্টোবর বুধবার ২১ আগস্ট চালানো গ্রেনেড হামলা মামলায় সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর, উপমন্ত্রী আবদুস সালাম পিন্টুসহ ১৯ জনের মৃত্যুদ- দেন আদালত। এই মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, হারিছ চৌধুরী, সাবেক সাংসদ কায়কোবাদসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবন দেওয়া হয়। এই রায়কে ঘিরে নেয়া কর্মসূচিগুলোতেও ফ্লপ মেরেছেন নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা। তারা শুধুমাত্র মুখে আর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেই আন্দোলন করে যান। বাস্তবে এর কোন প্রতিফলন দেখা যায়নি।

এদিকে চলতি গত ২৩ মার্চ দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান এবং সেক্রেটারী অধ্যাপক মামুন মাহমুদ সহ ২০৫ জনের পূর্ণাঙ্গ কমিটির ঘোষণা দিয়েছেন। সেই সাথে মহানগরেরও পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হলে নেতাকর্মীদের আপত্তির ভিত্তিতে স্তগিত হয়ে যায়। তবে এবার নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির স্থগিত হয়ে যাওয়া কমিটিও পূর্ণাঙ্গ হচ্ছে। আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই হয়তো মহানগর বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হবে।

বিএনপির একটি সূত্র জানিয়েছে, নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির পক্ষ থেকে যে কমিটি জমা দেয়া হয়েছিল অল্প সময়ের জন্য সেই কমিটিই অনুমোদন দেয়া হবে। পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদনের পর পরই মহানগর বিএনপির নিয়ন্ত্রণে থাকা ২৭ টি ওয়ার্ডের কমিটি খুব অল্প সময়ের মধ্যেই গঠন করা হবে। ২৭ টি ওয়ার্ডের কমিটি গঠন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পর পরই মহানগর বিএনপির নতুন কমিটি ভেঙ্গে দিয়ে নির্ধারিত সময়ের জন্য নতুন করে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির কমিটি গঠন করা হবে। আর এই কমিটি হবে কাউন্সিলের মাধ্যমে। কাউন্সিলের সদস্য হবেন প্রত্যেক ওয়ার্ডের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকরা। তাদের ভোটের মাধ্যমেই নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির নতুন কমিটি হবে। ফলে তৃণমূল বিএনপির মাধ্যমেই মহানগর বিএনপির নেতা নির্বাচিত হবেন।

একই ভাবে অল্প সময়ের মধ্যে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপিরও অধীনে থাকা বিভিন্ন থানা কমিটিগুলোও নবায়ন করা হবে। এরপর নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির কাউন্সিল হবে এবং সেই কাউন্সিলের ভোটার হবেন থানা কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। তারাই ভোট দিয়ে জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বানাবেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর