পদ হারাতে পারেন গাজী ও বাবু


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:৪৪ পিএম, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, সোমবার
পদ হারাতে পারেন গাজী ও বাবু

ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের প্রধান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ হচ্ছে কোনো এমপি যেন উপজেলা পর্যায়ে পদপ্রার্থী না হয়। কিন্তু এর আগেই নারায়ণগঞ্জের দুই উপজেলায় আওয়ামী লীগের আংশিক কমিটি ঘোষণা হয়ে গেছে। আর সেই কমিটির শীর্ষ পদে জায়গা করে নিয়েছেন আওয়ামী লীগের মন্ত্রী ও সাংসদ। ফলে মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী এমপি ও এমপি নজরুল ইসলাম বাবু যদি তাদের স্থানীয় উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি পদ ধরে রাখেন তবে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অমান্য করা হচ্ছে। যদিও তাদেকে অপসারণ করা হবে কিনা তা নিয়ে স্পষ্ট কোন ঘোষণা আসেনি, তাই এখনো বহাল আছে। এই পদ ধরে রাখার ফলে তাদেরকে দলীয় অন্য কোন বড় প্রাপ্তি থেকে মাইনাস করা হবে কি না তা নিয়ে নানা প্রশ্ন রয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, আওয়ামীলীগের নীতিনির্ধারকদের নির্দেশনা অমান্য হলে ও তার ব্যত্যয় হলে কঠিন শাস্তি পেতে হয়। ইতোপূর্বে যার অসংখ্য উদাহরণ রয়েছে। মন্ত্রী এমপি গাজী ও বাবু এবার সেই ভুলে পা দিয়েছে। এখন ভুল না শুধরে নিলে এর জন্য পরবর্তীতে কঠিন খেসারত দিতে হতে পারে। এমনকি দলীয় নানা পুরষ্কার থেকে বঞ্চিত হতে পারে। দলীয় নির্দেশনা মান্যকারীদের, বঞ্চিতদের আওয়ামীলীগ বিভিন্ন সময় পুরষ্কৃত করে আসছেন যা থেকে বঞ্চিত হতে পারে এই দুজন।

জানা যায়, নারায়ণগঞ্জ জেলায় আওয়ামীলীগের থানা কমিটিগুলোতে দীর্ঘ প্রায় দেড় যুগ পর নতুন কমিটি করার উদ্যোগ নেয় নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের শীর্ষ পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। সেই লক্ষ্যে গত ১৩ জুলাই ২ নং রেলগেইট আওয়ামীলীগের কার্যালয়ে জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেই সভায় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী রূপগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের তারিখ ১৬ জুলাই এবং আড়াইহাজার থানা আওয়ামী লীগের সম্মেলন ১৯ জুলাই ঘোষণা করা হয়। পরে আড়াইহাজার থানা আওয়ামী লীগের সম্মেলন ২২ জুলাই নির্ধারিত করা হয়।

বর্ধিত সভায় সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা অনুসারে রূপগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। গত ১৬ জুলাই সম্মেলনের মাধ্যমে রুপগঞ্জ থানা কমিটিতে সভাপতি পদে বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর ও সাধারণ সম্পাদক পদে শাহজাহান ভূঁইয়া রয়েছেন। গোলাম দস্তগীর গাজী টানা তিনবারের এমপি এবং সর্বশেষ মন্ত্রীও হয়েছেন। তারপরেও তিনি রূপগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি পদে অধিষ্ঠিত হয়েছেন।

গত ২২ জুলাই আড়াইহাজার থানা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেখানে সভাপতি পদে নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু নির্বাচিত হয়েছেন। রূপগঞ্জে সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা হলেও আড়াইহাজার সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হয়নি। ফলে রূপগঞ্জ ও আড়াইহাজার থানা আওয়ামী লীগের কমিটি নিয়ে তৃণমূলে অনেক আলোচনা সমালোচনা রয়েছে।

এদিকে কেন্দ্রীয় সম্মেলনের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। আগামী ২০ ও ২১ ডিসেম্বর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে। যার সূত্র ধরে সারাদেশেই আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে সম্মেলনের প্রস্তুতি চলছে।

এরই মধ্যে ১৫ নভেম্বর রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহণ সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, দলের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশ দিয়েছেন কোনো এমপি দলের উপজেলা পর্যায়ে পদপ্রার্থী হতে পারবেন না। এটা আমরা নিরুৎসাহিত করছি। উপজেলা পর্যায়ে সংসদ সদস্যদের আমরা অনুরোধ করছি, তারা যেন সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদে না এসে ত্যাগী ও দুঃসময়ের নেতাকর্মীদের সুযোগ করে দেন। কারণ তাদেরও অধিকার আছে। তারা এমপিও হতে পারেনি, দলে নেতৃত্বও পাবেন না, এটা তো হয় না।

দলীয় সাধারণ সম্মাদকের এই ঘোষণায় রূপগঞ্জ ও আড়াইহাজারে ফের নতুন করে নেতৃত্ব পরিবর্তনের সম্ভাবনা রয়েছে। অন্যথায় যারা রূপগঞ্জ ও আড়াইহাজার থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে অধিষ্ঠিত হয়েছে তাদের দলীয় প্রধান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ উপেক্ষা করে থাকতে হবে। এখন কোন দিকে যাবেন এই মন্ত্রী এমপিরা তা নির্ভর করছে তাদের সিদ্ধান্তের উপর।

সূত্র বলছে, মন্ত্রী এমপি গাজী ও বাবু নির্দেশনার আগেই পদে অধিষ্ঠিত হয়েছেন। তাই বিষয়টিকে তারা এড়িয়ে যাচ্ছেন। যদিও নীতিনির্ধারকরা আগে বা পরে নয় কেন্দ্রীয় নির্দেশনা মানা হচ্ছে কিনা তার মনিটরিং করে থাকে। সে হিসেবে তারা দুজন দলীয় শৃঙ্খলা ও নির্দেশনা অমান্যকারী হিসেবে গন্য হবে। এর ফলে ভবিষ্যতে তাদের প্রমোশনের স্থালে উল্টো ডিমোশন হওয়ার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে। আর তাতে করে বিভিন্ন সুযোগ ও পদ থেকে মাইনাস হতে পারে তারা দুজন।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর