নারায়ণগঞ্জ সদর থানায় সম্মেলনের আগেই কমিটি চূড়ান্ত!


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:১১ পিএম, ০৩ ডিসেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার
নারায়ণগঞ্জ সদর থানায় সম্মেলনের আগেই কমিটি চূড়ান্ত!

কেন্দ্রীয় নির্দেশনা অনুযায়ী আওয়ামী লীগে লেগেছে সম্মেলনের হাওয়া। যার ধারাবাহিকতায় সারাদেশের মতো নারায়ণগঞ্জেও চলছে বিভিন্ন পর্যায়ে সম্মেলন। উপজেলা থেকে শুরু করে বিভিন্ন ওয়ার্র্ড ও ইউনিয়নগুলোতে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ইতোমধ্যে কয়েকটি উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়ে গেছে। সামনে আরও কয়েকটি থানার সম্মেলন অনুুষ্ঠিত হবে। তবে এই সম্মেলনের শুরু থেকেই সম্মেলনের পদ্ধতি নিয়ে ছিল বিতর্ক।

প্রায় প্রত্যেকটি উপজেলাতেই সম্মেলনের নামে আইওয়াশ হয়েছে। আগে থেকেই ঠিক করা হয়ে গিয়েছিল নেতৃত্ব। এবারও সেই সম্মেলনের নামে আইওয়াশ হতে যাচ্ছে সদর থানা আওয়ামী লীগে। সদর থানা আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে কে কে আসছেন সেটা আগে থেকেই চূড়ান্ত হয়ে গেছে। সম্মেলনের দিন শুধুমাত্র আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের নাম ঘোষণা করা হবে। আর এই প্রক্রিয়াই ক্ষোভ প্রকাশ করছেন প্রতিদ্বন্দ্বীতা করার ইচ্ছা পোষণকারী নেতারা। তারা সরাসরি কিছু না বললেও আড়ালে তাদের ক্ষোভ জমিয়ে রেখেছেন।

সূত্র বলছে, ২০০৩ সালের ডিসেম্বর মাসে সাহাবউদ্দিন আহমেদ মন্ডলকে সভাপতি ও মো. হায়দার আলীকে সাধারন সম্পাদক করে ৬৭ সদস্য বিশিষ্ট সদর থানা আওয়ামীলীগের কমিটি গঠন করা হয়েছিল। পরবর্তীতে মো. হায়দার আলী দলীয় কর্মকান্ডে নিস্ক্রিয় হয়ে যাওয়ার অভিযোগে আল মামুনকে ২০০৬ সালে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক করা হয়। পরবর্তীতে ২০১৪ সালে তাকে ভারমুক্ত করে সাধারণ সম্পাদক করা হয়।

সেই সাথে দীর্ঘ ১৬ বছর আগের করা কমিটি নিয়েই চলে আসছিল সদর থানা আওয়ামী লীগের কার্যক্রম। এইর মধ্যে সভাপতি সাহাবউদ্দিন আহমেদ মন্ডল মারা গেছেন। তার জায়গায় নারায়ণগঞ্জ সদর থানা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে মজিবুর রহমান শিকদার দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন।

এদিকে নেতাকর্মীদের বহু আলোচনা সমালোচনার মুখে থানা পর্যায়ে নতুন কমিটি করার উদ্যোগ নেয় নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ।

ইতোমধ্যে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন ইউনিয়ন ও উপজেলা গুলোর সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় আগামী ৫ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জের সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এদিন ডিক্রিরচর ঈদগাহ মাঠে এই সম্মেলন অনুুষ্ঠিত হবে যেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান উপস্থিত থাকার কথা। এছাড়া নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাইও থাকতে পারেন।

তবে স্থানীয় আওয়ামী লীগের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের সূত্রে জানা যায়, নারায়ণগঞ্জ সদর থানা আওয়ামী লীগের সম্মেলন শুধুমাত্র আনুষ্ঠানিকতা। আগামী দিনের জন্য সদর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে কারা আসছেন সেটা আগে থেকেই নির্ধারিত হয়ে গেছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সূত্র জানান, আগামী দিনের জন্য সদর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে আসতে পারেন নাজির মাদবর যিনি গোগনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালনরত অবস্থায় রয়েছেন। সাধারণ পদে আসছেন আল মামুন যিনি চলমান কমিটির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। কিন্তু সম্মেলনের এই প্রক্রিয়াকে মেনে নিতে পারছেন প্রতিদ্বন্দ্বীতা করার ইচ্ছা পোষণকারী অন্যান্য নেতারা।

তাদের মতে, সম্মেলনই ভাল হতো। তৃণমূলের নেতাকর্মীরা আগামী দিনের জন্য তাদের যোগ্য নেতৃত্ব বেছে নিতে পারতো। আগামী দিনের জন্য সদর থানা আওয়ামী লীগের কান্ডারী হিসেবে যাদেরকে বাছাই করা হয়েছে তাদের কোন যোগ্যতাই নেই। কোন সভা সমাবেশে ১০ জনের মতো লোক যোাগান দেয়ার ক্ষমতা নেই তাদের। এমননিতেই অনেক দিন ধরে সদর থানা আওয়ামী লীগ নিস্ক্রিয় ছিল। নেতৃত্ব দানের জন্য যাদেরকে বাছাই করা হয়েছে, তাদের দ্বারাও সদর থানা আওয়ামী লীগ নিস্ক্রীয়ই হবে। বরং আগের চেয়ে আরও দুর্বল হয়ে আসবে সদর থানা আওয়ামী লীগ। তারপরেও সম্মেলনের মাধ্যমে যদি তারাই নির্বাচিত হতেন তাতে কোন আপত্তি ছিল না। কিন্ত সেই সম্মেলন তো আর হচ্ছে না।

সম্মেলনে সদর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে আলোচনায় ছিলেন সদর থানা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ্ব মজিবুর রহমান শিকদার, গোগনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নাজির আহম্মেদ, গোগনগর ইউনিয়ন নিয়ে সভাপতি মোঃ ইব্রাহীম মোল্লা, সদর থানা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব জসিম উদ্দিন।

সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় ছিলেন সদর থানা আওয়ামীলীগের বর্তমান সাধারন সম্পাদক আল মামুন, আলীরটেক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক নুরুজ্জামান সরকার, গোগনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এবিএম আজহারুল ইসলাম, জেলা কৃষক লীগের দপ্তর সম্পাদক সওদাগর খান।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর