জান্নাতুল ফেরদৌসের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারীরা বিএনপিতে নাই : তৈমূর


সিটি করেসপন্ডেন্ট | প্রকাশিত: ০৯:৩৯ পিএম, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, শনিবার
জান্নাতুল ফেরদৌসের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারীরা বিএনপিতে নাই : তৈমূর

বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা তৈমূর আলম খন্দকার বলেছেন, জান্নাতুল ফেরদৌস মাঠের মানুষ ছিল। ঘরে ঘরে তার বিচরণ ছিল বিভিন্ন ভাবে শুধু এক পরিচয়ে না। আমি তাকে চিনি যখন সে হাফ প্যান্ট অবস্থায় ছিল। পরবর্তিতে তাকে রাজনৈতিক সহযোগি হিসেবে তাকে পাই। তার মৃত্যু অত্যন্ত করুন মৃত্যু, পুলিশ তাকে বেধড়ক পেটানোর পর ঘুরে দাঁড়াতে পারে নাই। আজকে নারায়ণগঞ্জে আসার পাথে দেখি বড় ব্যানারে পোস্টারে লেখা থাকে পুলিশের ছবি সহ “পুলিশ জনগণের বন্ধু”। পুলিশ জনগণের বন্ধু এই কথা বিশ্বাস করি না, পুলিশের আচরণের কারণে। কারণ পুলিশ জানে এই ঘটনা ঘটে নাই তারপরও একটি গয়েবী মামলা দিতে হবে রাজনৈতিক কারনে ক্ষমতাসীনদের খুশি করতে একটি নিরীহ লোককে ধরে নিয়ে তাকে দিনকে দিন জেলে আটকায় রাখবে।

পুলিশ ক্ষমতার বন্ধু, যার কাছে ক্ষমতা পুলিশ তার বন্ধু এবং তাকে ক্ষমতায় রাখার জন্য জনগণের উপর যা যা অত্যাচার নির্যাতন করা দরকার পুলিশ তা করে। কিন্তু আমরা তো এটা চাই না, আমরা পুলিশকে জনগণের বন্ধু হিসেবে দেখতে চাই। কারণ পুলিশের বেতন ভাতা এটা জনগণের পক্ষ থেকে আসে। আমার সে দিন চোখে পানি এসে গেছে এটিএম কামালের কথায় জান্নাতুল ফেরদৌসের জানাযার পূর্বে যে বক্তব্য, পুলিশ জানে আমরা কোন চোর না ডাকাত না। আমরা রাজপথে দাড়িয়ে জনগণের কথা বলি।

তৈমূর আরো বলেন, ১/১১ এর সময় যখন জেলখানায় তখন আমি নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সেক্রেটারী। জেলখানা থেকে জানতাম অনেকেই বিএনপির হালুয়া রুটি খেয়ে দলের সাথে বেঈমানী করেছে। কিন্তু এটিএম কামাল, জান্নাতুল ফেরদৌস, টিপু সে সময় জীবনের ঝুকি নিয়ে সে সময় কাজ করেছে। জেলা বিএনপির কমিটি ভেঙ্গে দিয়ে আমাকে যখন আহ্বায়ক করা হয় তখনও আমি জেলখানায়। জেলখানা থেকে বের হওয়ার পর আমার হাতে যে তালিকা দেয়া হলো। তালিকায় দেখি জান্নাতুল ফেরদৌসের নাম নেই। এখন এই পুঁজিপতি সমাজ ব্যবস্থায় ট্রেজিশন হলো এই যারা রাজপথের নেতাকর্মী যারা রাজপথে মানুষের জন্য আন্দোলন সংগ্রাম করে তাদের অবস্থা হলো এই নিচে কুমির উপরে সাপ। এদিক দিয়ে পুলিশে পেটায় আর একদিকে কেন্দ্রের খাতায় নাম থাকে না। যাদের ষড়যন্ত্রের কারণে জান্নাতুল ফেরদৌসের নাম আসে নাই, এখন তারা আবার বিএনপির মধ্যে নাই।

প্রয়াত বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ, নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সহ সভাপতি সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠক জান্নাতুল ফেরদৌস স্মরণে নাগরিক শোক সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

১৪ ডিসেম্বর শনিবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে নাগরিক শোক সভা উদযাপন কমিটির ব্যানারে শোক সভাটি পালিত হয়।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর