হেরে গেলেন গাজী আইভী বাবু সহ ৩৮!


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৩:৪৩ পিএম, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বৃহস্পতিবার
হেরে গেলেন গাজী আইভী বাবু সহ ৩৮!

সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটি নিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছিল। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ বাদলের একক সিদ্ধান্তে ঘোষিত কমিটি দাবী করে জেলা আওয়ামী লীগের অন্য নেতারা সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটিকে কোনভাবেই মেনে নিতে পারছিলেন না।

সেই কমিটির প্রতি অনাস্থা জানিয়ে ৭৪ সদস্য বিশিষ্ট জেলা আওয়ামী লীগের কমিটির মধ্যে ৩৮ জন স্বাক্ষরিত একটি অভিযোগ নিয়ে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সাথে সাক্ষাৎ ও জমা দিয়েছিলেন। যেখানে স্বাক্ষর রয়েছে জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী, সহ সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী, সদস্য ও নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজী ও নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল্লাহ আল কায়সার হাসনাতের মতো প্রভাবশালী নেতাদের।

কিন্তু শেষ পর্যন্ত সভাপতি আব্দুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ বাদলের একক সিদ্ধান্তে ঘোষিত সোনারগাঁ আওয়ামী লীগের সেই আহবায়ক কমিটিই থেকে যাচ্ছে।

১৯ ফেব্রুয়ারী কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঢাকা বিভাগীয় সকল সাংগঠনিক জেলার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের নিয়ে অনুষ্ঠিত যৌথসভায় সোনারগাঁ আওয়ামী লীগের সেই আহবায়ক কমিটিই অনুমোদন দেয়া হয়েছে। আর এই অনুমোদনের মধ্য দিয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ বাদলের সিদ্ধান্তে কাছে হেরে যেতে হয়েছে অভিযোগে স্বাক্ষরকারী প্রভাবশালী নেতাদেরকে।

জানা যায়, ২০১৯ সালের ১৩ জুলাই জেলা আওয়ামী লীগের ওই বর্ধিত সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আওয়ামীলীগের অন্যান্য থানা কমিটিগুলো আগষ্টের পরে ঘোষণা দেয়ার কথা থাকলেও হঠাৎ করে কাউকে না জানিয়েই সোনারগাঁ থানা আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছিল। ১৫ জুলাই এ কমিটির অনুমোদন দেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই এবং সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ বাদল।

কমিটিতে সামসুল ইসলাম ভূইয়া আহবায়ক এবং সোনারগাঁয়ের পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমানকে যুগ্ম আহবায়ক করা হয়েছে। কমিটির বাকি সদস্যরা হলেন জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক প্রফেসর ডা. আবু জাফর চৌধুরী বিরু, জেলা আওয়ামীলীগের শিল্প ও বানিজ্য বিষয়ক সম্পাদক এস এম জাহাঙ্গীর, মোগরাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আরিফ মাসুদ বাবু, সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান বাবু ওমর, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদা আক্তার ফেন্সী ও সামসুদ্দিন খান আবু।

এদের মধ্যে জেলা আওয়ামীলীগের শিল্প ও বানিজ্য বিষয়ক সম্পাদক এস এম জাহাঙ্গীর ও মোগরাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আরিফ মাসুদ বাবুও এই কমিটির প্রতি অনাস্থা জানিয়ে দেয়া অভিযোগে স্বাক্ষর করেছিলেন।

জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের দাবী ছিল, সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটি গঠন উপলক্ষে কমিটি গঠন উপলক্ষ্যে কোনো বর্ধিত সভা কিংবা সম্মেলনও হয়নি। সেই সাথে জেলা আওয়ামী লীগের অন্যান্য নেতাদেরকেও এ বিষয়ে কোনো অবগত করা হয়নি। ফলে জেলা আওয়ামী লীগের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ কোনভাবেই এই কমিটিকে মেনে নিতে পারছেন না। আর তাই সোনাারগাঁ আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটির প্রতি অনাস্থা জানিয়ে অভিযোগ করেছিলেন।

অনাস্থা জানিয়ে দেয়া অভিযোগে বাকী স্বাক্ষরকারীরা ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জজামান আসাদ, সহ সভাপতি আরজু রহমান ভূইয়াঁ, সহ সভাপতি, আব্দুল কাদির, সহ সভাপতি আদীনাথ বসু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক খালিদ হাসান, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ইসহাক মিয়া, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক নুর হোসেন, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডাঃ মোঃ নিজাম আলী, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক রানু খন্দকার, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মরিয়ম কল্পনা, অর্থ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনির, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ সুন্দর আলী, শিক্ষা ও মানব বিষয়ক সম্পাদক ফেরদৌসী আলম নিলা, শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক এস.এম জাহাঙ্গীর হোসেন, যুব ও ক্রিড়া সম্পাদক মোঃ মানজারী আলম (টুটুল), কাউসার আহমেদ পলাশ, সদস্য মোঃ শহীদ উল্লাহ, ইউসুফ ভূঁইয়া, মোঃ শামসুজ্জামান ভাষাণী, মোঃ আব্দুল কাদির, মোঃ ছাদেকুর রহমান, মজিবুর রহমান ম-ল, অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান দিপু, অ্যাডভোকেট ইসহাক মিয়া, মুজাহিদুর রহমান হেলো সরকার, হালিম সিকদার, শাহজাহান মিয়া, বি.এম কামরুজ্জামান ফারুক, শীলা রাণী পাল, আবুল বাশার টুকু, মাহফুজুর রহমান কালাম ও শাহজাহান ভূইয়াঁ।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর