বিএনপির কমিটিতে আধিক্য থাকবে তরুণদের


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৯:৫৮ পিএম, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বুধবার
বিএনপির কমিটিতে আধিক্য থাকবে তরুণদের

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির কমিটি ভেঙ্গে দেয়ার পর নতুন কমিটি গঠন নিয়ে চলছে কাজ। এ নিয়ে দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মতামত নিচ্ছেন কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্তরা। দলের সর্বোচ্চ নেতা ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান নিজে কমিটির বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেবেন। দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মতে, কমিটিতে তরুণদের অগ্রাধিকার দেয়া হলে আগামীতে রাজপথে অবস্থান থাকবে বিএনপির আর এতে উপকৃত হবে দল। আর তাই দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের উপর তারুণ্যনির্ভর কমিটির বিষয়ে আস্থা রাখছে তৃণমূল।

এ নিয়ে চলছে দলের সার্ভে। এ সার্ভে করছেন দলের দলের ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, শহিদুল ইসলাম বাবুল। তারা দলীয় নেতাকর্মীদের কাছ থেকে বক্তব্য গ্রহণ করছেন।

দলীয় একাধিক সুত্রে জানা যায়, এবারের কমিটিতে আধিক্য থাকবে তরুণদের। তরুণ নেতৃত্বকে কাজে লাগিয়ে রাজপথে সক্রিয়তা ও দলের হারানো ঐতিহ্য রাজপথের অবস্থান ফেরানো হবে। আর সেজন্য তরুণ ও সাবেক ছাত্রনেতাদের দায়িত্ব দিতে চায় দল। তবে সিনিয়রদের রাখা হবে তাদের পরামর্শ ও সামনে থেকে ছাত্রনেতাদের সাহস যোগানোর জন্য। এ নিয়ে ইতোমধ্যেই কথা হয়েছে দলের সিনিয়র নেতাদের সাথেও।

তরুণ ও সাবেক ছাত্র নেতাদের মধ্যে কেন্দ্রীয় যুবদলের ঢাকা বিভাগীয় সহ সম্পাদক মোশারফ হোসেন, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদ হাসান রোজেল, মাসুকুল ইসলাম রাজীব, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আনোয়ার সাদাত সায়েম, সাবেক ছাত্রনেতা রিয়াদ মোহাম্মদ চৌধুরী এবং এ সারির নেতাদের রাখা হচ্ছে জেলা বিএনপির শীর্ষ পদের অগ্রাধিকার তালিকায়। এদেরকে দায়িত্ব দিয়ে দল রাজপথের সক্রিয়তায় নেতাকর্মীদের ফেরাতে চায় এবং এসব নেতারাও রাজপথের পরিক্ষিত ও দলের প্রতি আনুগত্য নেতা হিসেবে ইতোমধ্যে দলের আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন।

নেতাকর্মীদের মতে, তরুণ নেতৃত্বই পারে দলের নেতাকর্মীদের নিয়ে রাজপথে জোরালো অবস্থান তৈরি করতে। আর এ মুহূর্তে ও আগামী দিনের আন্দোলনে রাজপথের অবস্থানটিই দলের সবচেয়ে বেশী প্রয়োজন। এ কারণেই নেতাকর্মীরাও চাচ্ছেন তরুণদের দলের নেতৃত্বে।

২১ ফেব্রুয়ারি সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান ও সাধারণ সম্পাদক মামুন মাহমুদের নেতৃত্বাধীন জেলা বিএনপির কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়। দলের সহ-দফতর সম্পাদক মুহাম্মদ মুনির হোসেন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়ে। তবে কি কারণে কমিটি বিলুপ্ত করা হয়েছে তা বিজ্ঞপ্তিতে স্পষ্ট করে কিছু জানানো হয়নি।

ওই প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, নতুন কমিটি গঠন না করা পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জের সব উপজেলা ও পৌর বিএনপির কার্যক্রম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও সহ-সাংগঠনিক সম্পাদকদের পরামর্শে পরিচালিত হবে।

২০১৭ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি কাজী মনিরুজ্জামান মনিরকে সভাপতি ও মামুন মাহমুদকে সাধারণ সম্পাদক করে জেলা বিএনপির আংশিক কমিটি ঘোষণা করে বিএনপি। এর দু’বছর পর জেলা বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়। দুই বছর মেয়াদী এ কমিটি তিন বছর আট দিনের মাথায় কেন্দ্র থেকে বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর