‘শকুনের দোয়ায় গরু মরে না’


স্টাফ করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ১০:২৯ পিএম, ১৩ জুলাই ২০২০, সোমবার
‘শকুনের দোয়ায় গরু মরে না’

নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু হাসনাত শহীদ বাদল প্রসঙ্গে আবারো কথা বলেছেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসরের এমপি সেলিম ওসমান।

রোববার ১২ জুলাই সন্ধ্যায় বন্দর উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কেন্দ্রে সরকার হতে প্রাপ্ত সংসদ সদস্যের ঐচ্ছিক তহবিলের অনুদানের চেক বিতরন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বাদলকে ইঙ্গিত করে বলেন, কয়দিন আগে আমার এমপি পদ বদলে দেওয়া হলো। কেউ কেউ মনে চায় আমি মারা গেলে তারা এমপি হবে। শকুনের দোয়া গরু মরে না।

তিনি আরো বলেন, দেশে এখন যে দুর্যোগপূর্ণ পরিস্থিতি চলছে এটা রাজনীতি করার সময় না। যারা এই মুহূর্তে রাজনীতি করছেন তারা মৃত্যুর কথা ভুলে গেছেন। একদিন আমাদের সবাইকে মরতে হবে। এখন শুধু মানুষের জন্য কিছু করার সময় রাজনীতি করার সময় না। করোনা হলে আপনি মরবেন না এই কথাটা বললে আমাদের মারাত্মক ভুল হবে। আপনার হয়তো রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার কারনে আপনি বেচে যেতে পারেন। কিন্তু আপনি যদি সাথে করে ভাইরাসটা বাসায় নিয়ে যান তবে আপনার পরিবারে বয়স্ক মা বাবা, আপনার সন্তান আক্রান্ত হতে পারে। তাই আপনারা নিজে সুরক্ষিত থাকবেন। পরিবারকে সুরক্ষিত রাখবেন এবং আপনার পাশের মানুষটিকে সুরক্ষিত রাখবেন।

প্রসঙ্গত বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে ফরাজিকান্দা গুডলাক ক্লাবের আয়োজনে গত ২৯ জুন বৃক্ষরোপণ ও ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। আর এই কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখতে গিয়ে এক পর্যায়ে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ বাদল বলেন, ‘বন্দরে আওয়ামী লীগের কোনো এমপি নেই। বন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রশিদ ভাই বন্দরের এমপি।’

আর এর জবাব দিতে গিয়ে সেলিম ওসমানও বাদলকে ছাড় দিয়ে কথা বলেননি। গত ২ জুলাই দুপুরে শহরের খানপুর এলাকায় ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে করোনা রোগীদের জন্য আইসিইউ ইউনিট উদ্বোধন উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি সেলিম ওসমান বলেন, ‘আজকে একটি পত্রিকায় দেখলাম আমার ছবি সহ একটি সংবাদ প্রকাশ হয়েছে বন্দরের একটি ঘটনায়। তিনি চাষাঢ়া রেলওয়ে হেড কোয়ার্টারে থাকতেন। একজন এমপি সাহেবের আশীর্বাদে ওনি বলে এখন লেতা (নেতা)। ওনি নাকি এখন লেতা। এ লেতা বন্দরে গিয়ে বললো, ‘সেলিম ওসমান বন্দরের এমপি না। বন্দরের উপজেলা চেয়ারম্যান বন্দরের এমপি। প্রশ্ন থাকবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে, এমপি সিট বদলায় দিতে পারে এটি কি করে সম্ভব হতে পারে। দুই দিনের যোগি না ভাতেরে অন্য বইলেন না। আমরা দেশটা স্বাধীন করেছি। আমরা মুক্তিযোদ্ধা। হাজার বার বলি সেলিম ওসমানের থাবা বাঘের চেয়েও ভয়ংকর। বাঘের চেয়েও ভয়ংকর সেলিম ওসমানের থাবা।’

তিনি বলেন, মতলব থেকে থেকে এসে নেতা হয়েছেন। ধানমন্ডিতে অট্টালিকা করেছেন। দুই নাম্বার স্কুল বানিয়েছেন। কত টাকার মালিক হয়েছেন সেলিম ওসমান দেখিয়ে দিবে। দেখবো আপনি আমাকে সরাতে পারেন কি না। ওনাকে আবার মতলব ফিরে যেতে হবে। আপনি আওয়ামী লীগ করেন যাই করেন সেটা দেখার বিষয় না।

১০ জুলাই বিকেলে বন্দরের দড়ি সোনাকান্দায় একটি অনুষ্ঠানে আবার বাদল বলেন, প্রয়োজন ছিলো। বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন ছাত্রলীগের ইতিহাস বাঙালীর ইতিহাস আমি সেই ছাত্রলীগের সংগঠনের লোক। যারা পত্রিকার মাধ্যমে অপব্যাখ্যা করতে চান তাদেরকে বলতে চাই আপনারা কেন আসেন। বিবেকে বাধে না। আপনাদের কি হাত কাঁপে না। বিভিন্ন জেলা থেকে অনেকেই নারায়ণগঞ্জে এসেছিলেন। নারায়ণগঞ্জ সবার। এই মাটি পবিত্র মাটি। এইমাটিকে অপবিত্র হতে দিব না। যারা লেখনির মাধ্যমে লেখালেখি করেন তারা সাবধান হয়ে যান হুশিয়ার হয়ে যান। ছাগলের ৩টা বাচ্চা ২ টা খাইয়া লাফায় একটা না খাইয়া লাফায়। সুতরাং আপনারা লাফাইয়েন না। আপনারা কি আমার নেতা শামীম ওসমানের বিজয়ের কথা শুনেন নাই।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর