হেফাজতে ইসলামের ঘোষণার পর কাদিয়ানীদের পরিচিতি সভা বাতিল


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ১০:৩৫ পিএম, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বৃহস্পতিবার
হেফাজতে ইসলামের ঘোষণার পর কাদিয়ানীদের পরিচিতি সভা বাতিল

কাদিয়ানীদের অমুসলিম ঘোষণার দাবীতে লাখো জনতার উপস্থিতিতে সমাবেশ ঘোষণার পরে পাল্টা যে পরিচিতি সভা আহবান করা হয়েছিল সেটা স্থগিত করা হয়েছে। ৭ ফেব্রুয়ারী শুক্রবার ওই পরিচিতি সভা আহবান করা হয়েছিল। সেখানে হেফাজতে ইসলামের নেতাদের উপস্থিতি থাকার ঘোষণা এসেছিল।

শুক্রবার ৭ ফেব্রুয়ারী বিকেল ৪টায় শহরের মিশনপাড়ায় পরিচিতি সভা ডেকেছিল আহমদীয়া জামাতের নেতারা। তারাই মূলত কাদিয়ানী সম্প্রদায় হিসেবে পরিচিত। গত ১ ফেব্রুয়ারী নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় ঈদগাহে বৃহৎ সমাবেশের পর আহমদীয়া মুসলিম জামাত শুক্রবার এ পরিচিতি সভার আহবান করে। এতে গণমাধ্যম সহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার লোকজনদের থাকার আহবান জানানো হয়েছে।

আহমদীয়া মুসলিম জামাতের আমীর ফজল মাহমুদ বলেন, এ পরিচিতি সভায় মূলত আহমদীয়া মুসলিম জামাতের আদর্শ, ধর্মীয় অবস্থান এবং তাদের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ তোলা হচ্ছে তার ধর্মীয় ব্যাখা প্রদানের কথা ছিল। কারণ আমাদের অমুসলিম বলে প্রপাগান্ডা ও অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। আমাদের বক্তব্য জানতে পারছেন না। এতে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হচ্ছিল। সে কারণেই আমরা শুক্রবার পরিচিতি সভা ডেকেছিলাম। তবে অনিবার্যকারণ বশত সেটা স্থগিত তথা আপাতত বাতিল করা হয়েছে। পরবর্তীতে করা হলে জানানো হবে।

তবে এ পরিচিতি সভায় উপস্থিত থাকার চেষ্টা করবেন জানিয়েছিলেন হেফাজতের সমন্বয়ক মাওলানা ফেরদাউসুর রহমান। তিনি নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘আমরা মূলত আমাদের সঙ্গে তাদের মতের বিরোধী পয়েন্টগুলো উত্থাপন করবো। এবং তাদের কাছ থেকে উত্তর নেওয়ার চেষ্টা করবো। সেখানে আমাদের কয়েকজন আলেম ওলামা যাবেন। আমরা চেষ্টা করবো তাদের সেই পরিচিতি সভায় উপস্থিত থাকতে। কারণ তাদের দাবী আমরা নাকি কাদিয়ানীদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছি।’

সাম্প্রতিক সময়ে ওই সমাবেশ ছিল দেশের সবচেয়ে বড় সমাবেশ যেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আল্লামা আহমদ শফি।

কাদিয়ানীদের অমুসলিম ঘোষণা করার দাবীতে নারায়ণগঞ্জে বিশাল সমাবেশে লাখো জনতার বিভিন্ন স্লোগানে পুরো শহর কেঁপে উঠেছিল। সমাবেশকে কেন্দ্র করে পুরো শহরেই ছড়িয়ে পড়া সমাবেশের আগতদের মুখে স্লোগান ‘নবীর পরে নবী নাই, সংসদে আইন চাই, কাদিয়ানী কাদিয়ানী কাফের কাফের’ স্লোগানে পুরো নারায়ণগঞ্জকে প্রকম্পিত করে তুলেছিল তারা।  

ওই সমাবেশে প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে হেফাজতে ইসলামের আমীর আল্লামা আহমদ শফি বলেন, প্রধানমন্ত্রীকে একটি কথা বলছি। আগেও অনেক মানুষের মাধ্যমে জানিয়েছে যে কাদিয়ানীকে সরকারি ভাবে অমুসলিম ঘোষণা করেন। সরকারি মানুষ এখানে আছেন। আপনারা গিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে বলেন যেন অতিসত্ত্বর কাদিয়ানীদেরকে কাফের ঘোষণা করে। আপনি যদি মুসলমান হন, সত্যিই যদি আপনি মুসলমান হন তাহলে কাদিয়ানিদের অতিসত্ত¡র কাফের ঘোষণা করেন। নাহলে এই দেশ কি হবে জানি না। প্রধানমন্ত্রী আপনি দেশের ১৬কোটি মুসলমান সবাইকে জিজ্ঞেস করেন। সবাই এক মত। কাদিয়ানিদের অমুসলিম ঘোষণা করেন তবে আমরা আপনার সাথে থাকবো। না হলে আমরা থাকবো না। আপনাকে বারবার বলা হয়েছে। কিন্তু আপনি কর্ণপাত করছেন না। জলদি কর্ণপাত করেন। কাদিয়ানীদেরকে অমুসলিম ঘোষণা করেন। তাঁরা এই দেশে অমুসলিম হয়ে থাকতে পারবে। কিন্তু মুসলমান হয়ে থাকতে পারবে না।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর