‘লা মাজহাবীরা জঙ্গী গোষ্ঠীদের মদদ দিয়ে থাকে’ (ভিডিও)


সিটি করেসপন্ডেন্ট | প্রকাশিত: ১০:১৬ পিএম, ১৮ জুলাই ২০২০, শনিবার
‘লা মাজহাবীরা জঙ্গী গোষ্ঠীদের মদদ দিয়ে থাকে’ (ভিডিও)

নারায়ণগঞ্জ মহানগরের পাঠানটুলি গোরস্থান এলাকার বাইতুল মামুর জামে মসজিদের খতিব মাওলানা আব্দুর রহীম বলেছেন, জামাতের পর মোনাজাত এটা একটা প্রসিদ্ধ আমল। রাসূলের যুগ থেকে এটা হয়ে আসছে। এই মোনাজাত নিয়ে ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে আসছে আহলে হাদিস ও লা মাজহাবীদের মুখপাত্র শায়েখ আহমাদুল্লাহ। আহলে হাদীস ও লা মাজহাবীরা আব্দুর রহমান শায়েখের মতো জঙ্গী গোষ্ঠীদের মদদ দিয়ে থাকে। এদেরকে অনতিবিলম্বে পাকড়াও করতে হবে। এরা যে ইমান বিধ্বংসী কথাবার্তা বলে সরকারীভাবে এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া উচিত।

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের ভূমি পল্লী জামে মসজিদ কমপ্লেক্সের বিতর্কিত খতিব শায়েখ আহমাদুল্লাহর ভুল ও মনগড়া ফতুয়া বন্ধ করার দাবীতে আয়োজিত সংবাদ সমম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

১৮ জুলাই শনিবার বেলা ১১টায় নারায়ণগঞ্জ শহরের হোটেল সিনেমনে ভূমি পল্লী জামে মসজিদ কমপ্লেক্সের মুসল্লিদের পক্ষে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

মাওলানা আব্দুর রহীম বলেন, আমরা কখনও উস্কানিমূলক কাজ করি না। আমরা চাই সমাধান। তাদের উলট পালট কথাবার্তা বন্ধ করতে হবে। আমরা চাই না তারা গোমরাহী হোক। আমরা কখনও মোনাজাতকে নামাজের অংশ বলি না। মোনাজাত নিয়ে কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই। কোন বিষয় সরাসরি নিষেধাজ্ঞা না থাকলে এটা হালাল। কোন ব্যক্তি যদি হালালকে হারাম বলে ঘোষণা দেয় এটা মারাত্বক সমস্যা।

বন্দর কুশিয়ারা পশ্চিমপাড়া জামে মসজিদের ইমাম ও খতীব মাওলানা দ্বীন ইসলাম আনছারীর সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, মাওলানা সরকার মুহাম্মদ আবু বকর সিদ্দিক, মাওলানা দিদারুল ইসলাম, মাওলানা মোহাব্বাতুল্লাহ, আব্দুল খালেক, মাহদী হাসান, ইমাম হোসেন, হাফেজ আব্দুল্লা, মাওলানা রফিকুল ইসলাম, আদনান পলক, মোঃ আলিফ, শফিকুল ইসলাম ও ক্বারী মহিউদ্দিন সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

মাওলানা সরকার মুহাম্মদ আবু বকর সিদ্দিক বলেন, তথাকথিত লা মাজহাবীরা বাংলাদেশের মুসলমানদের ঐক্য নষ্ট করছে। আহলে হাদীস তথা লা মাজহাবীরা হলি আর্টিজোনের হামলার সাথে জড়িত। তাদের সাথে জঙ্গীগোষ্ঠী আইএসের যোগাযোগ রয়েছে। তারা সমাজকে নষ্ট করছে। বাংলার জমিনে থাকার অধিকার নেই তাদের।

এসময় আরও দুইটি দাবী পেশ করা হয়, সেগুলো হলো- অনতিবিলম্বে ভূমি পল্লী জামে মসজিদে নামাজের পর সম্মিলিত মোনাজাত চালু করতে হবে ও বারবার ভুল ফতোয়া প্রদানকারী ও লা-মাজহাবি মতাদর্শের প্রবক্তা আহমাদুল্লাহকে খতিব পদ থেকে অব্যাহতি দিতে হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর