rabbhaban

এসপির বদলীতে ফেসবুকে মাতামাতি না করতে শামীম ওসমানের নির্দেশ


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৯:৫০ পিএম, ০৪ নভেম্বর ২০১৯, সোমবার
এসপির বদলীতে ফেসবুকে মাতামাতি না করতে শামীম ওসমানের নির্দেশ

প্রায় সময়েই সাংগঠনিক ও নানা ইস্যুতে দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে শামীম ওসমানের রুদ্ধদ্বার বৈঠক হলেও পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদের বদলীর আদেশের পরের দিনের বৈঠক ছিল সবার নজরে। তবে এ বৈঠকে শামীম ওসমান পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ সম্পর্কে নেতিবাচক কিছু না বললেও নেতাকর্মীদের কিছু বিষয়ে সতর্ক থাকতে বলেছেন।

৪ নভেম্বর সোমবার সন্ধ্যায় শহরের চাষাঢ়ায় নারায়ণগঞ্জ রাইফেল ক্লাবে ঘণ্টাব্যাপী শামীম ওসমানের সঙ্গে ওই রুদ্ধদ্বার বৈঠকে আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগি সংগঠনের শীর্ষ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

তাঁদের মধ্যে ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর সোহেল, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি চন্দন শীল, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজাম, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইসরাত জাহান স্মৃতি, ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাইফউল্লাহ বাদল, সেক্রেটারী শওকত আলী প্রমুখ।

এছাড়াও আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ সহ সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও সিটি করপোরেশন এলাকার বেশ কয়েকজন কাউন্সিলরও ছিলেন।

বৈঠকে নেতাকর্মীরা বলেন, ‘বিগত ১১ মাস ধরে আমরা বেশ চাপে ছিলাম। কোন কারণ ছাড়া শুধুমাত্র রাজনীতি করার কারণে হয়রানি করা হয়েছে। অহেতুক মামলা দেওয়া হয়েছে। কোন কাজে থানায় যেতে পারি নাই। ওসিরাও আমাদের সঙ্গে অশোভন আচরণ করেছে। ক্ষমতায় থাকার পরেও আমরা ছিলাম নির্যাতিত।’

বৈঠকে উপস্থিত একাধিক নেতা নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘মূলত সোমবার সকালেই জানানো হয় বিকেলের বৈঠকের বিষয়টি।’

বৈঠকে এতে এমপি শামীম ওসমান আমাদের অতি উৎসাহী কিছু না করার নির্দেশনা দিয়েছেন।

‘পুলিশ সুপারের চাকরি কোন জেলাতেই স্থায়ী না। তারা কিছু সময়ের জন্য আসেন। ডিসি এসপি সহ সরকারী কর্মকর্তারা আমাদের মেহমান। তারা আসে আবার চাকরির প্রয়োজনেই চলে যান। পুলিশ সুপারও এসেছিলেন। সরকার তাকে মনে করেছিল নারায়ণগঞ্জ দিতে, দিয়েছিল। এখন আবার মনে করেছে বদলী করতে বা অন্যত্র স্থানান্তর করতে করেছে। এটা নিয়ে আমাদের কোন মাতামাতি, ফেসবুকে স্ট্যাটাস, গণমাধ্যমকে বক্তব্য প্রদান, নেতিবাচক কিছু বলবেন না। এখন এসব নিয়ে আমাদের চিন্তা করার সময় নাই। আগামীতে আওয়ামী লীগের সম্মেলন সেটা নিয়ে চিন্তা করতে হবে। পুলিশ সুপারের বদলী নিয়ে অন্য কোন পুলিশ কর্মকর্র্তাকে খোঁচাখুচি করার প্রয়োজন নাই।’’ নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন শামীম ওসমান জানিয়েছেন বৈঠকে থাকা একাধিক নেতা।

তিনি আরো জানান, শামীম ওসমান এও বলেছেন ‘দেশে বড় ধরনের ষড়যন্ত্র চলছে। সেটা নিয়ে আমাদের সজাগ থাকতে হবে। পুলিশের কিছু কারণে হয়তো আমাদের অনেক ছেলে নেতাকর্মী হয়রানির শিকার হয়েছেন কিন্তু সেটা নিয়ে এখন ক্ষোভ জানাতে গেলে আমাদের দলের সুনাম নষ্ট হবে। তাই এখন সেগুলো দরকার নাই। অনেকেই খেলছেন। আওয়ামী লীগকে দুর্বল করতে খেলেছেন। পর্দার আড়ালের খেলোয়াড়রাও চিহ্নিত হয়ে আছে। সময়মত তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যারা প্রকৃত আওয়ামী লীগার তারা এমন ষড়যন্ত্র হয়রানির শিকার হতে হতেই পোক্ত হয়েছেন। সুতরাং এসব নিয়ে আমাদের প্রতিক্রিয়া দেখানোর কিছু নাই।’

গত রোববার ৩ নভেম্বর রাষ্ট্রপতির আদেশে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এক প্রজ্ঞাপনে পুলিশ হেড কোয়ার্টারে বদলি করা হয় জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদকে।

গত বছরের ২ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার হিসেবে বদলী হয়ে আসেন হারুন অর রশিদ।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর