দ্বিতীয় বিভাগ ক্রিকেটে ক্রিয়েটিভের বিদায়ে টিকে রইল সিদ্ধিরগঞ্জ


প্রেস বিজ্ঞপ্তি | প্রকাশিত: ০৫:১৯ পিএম, ২৫ ডিসেম্বর ২০১৯, বুধবার
দ্বিতীয় বিভাগ ক্রিকেটে ক্রিয়েটিভের বিদায়ে টিকে রইল সিদ্ধিরগঞ্জ

আগের দিন শিরোপা নির্ধারিত হলেও কারা যাবে রেলিগেশন তা নিয়েই ছিল উৎকন্ঠা। শেষ রাউন্ডের শেষ ম্যাচ। বাঁচা-মরার সংগ্রাম। ক্রিয়েটিভ স্পোর্টিং ক্লাব ও সিদ্ধিরগঞ্জ ক্রিকেট একাডেমী। লীগে টিকে থাকার লড়াইয়ে ব্যস্ত দু’দল। পুরনো ক্রিয়েটিভ হেরে বিদায় নিল (রেলিগেশন)। একই সাথে তারা ক্রীড়া সংস্থার এফিলিয়েশনও হারালো।

নারায়ণগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে বুধবার ২৫ ডিসেম্বর ম্যাচে আম্পয়ারদ্বয় মাঠ পরীক্ষা করে ৫০ ওভারের ম্যাচ ৪২ ওভাওে নির্ধারণ করে দেন। সামসুজ্জোহা ক্রীড়া কমপ্লেক্সের ক্রিকেট গ্রাউন্ডে সকালে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে পাঠান ক্রিয়েটিভকে।

৪১ ওভারে তারা সাকুল্যে সংগ্রহ করে ১৩২ রান। লীগে টিকে থাকার জন্য এ রান মোটেই নিরাপদ নয়। কিন্তু ক্রিকেটে অনেক কিছুই হয়। লো স্কোরিং ম্যাচে জয় যে কোন দলেরই হতে পারে। জয় পেল সিদ্ধিরগঞ্জ। লীগে এ যাত্রায় তারা টিকে গেল। তারা জয় পেয়েছে ৩ উইকেটে। ক্রিয়েটিভের নূরে আলম করেন ৪২ রান ৫২ বলে ৬ চারের সাহায্যে। পেসার নাজমুল অপরাজিত থাকেন ২২ রানে ১ ছক্কা ও ১ চারে। উইকেট কিপার সামির ৬১ বল খেললেও রান পেয়েছেন ১৪টি। উদিয়মান সাজেদুর দ্রুতই আউট হয়েছেন ১২ বলে ১০ রানে ১ ছক্কা ও ১ চারে। ফয়সাল ১ চারে ফিরেন ১০ রানে। বল খেলেছেন ৪৬টি। সিদ্ধিরগঞ্জের লেগ স্পিনার শেখ সোহান একটানা বল করে ৮ ওভারে ৫ মেডেন নিয়ে ৪ রানে পান ১ উইকেট। ওকেশনাল বোলার হিসেবে দাপট দেখান আবু বক্কর সিদ্দিক। ততক্ষণে সিদ্ধিরগঞ্জের ৭ উইকেট ক্রিয়েটিভের পকেটে। পেসার ফয়জুল্লা ফাহিম সুযোগ হাত ছাড়া করতে নারাজ। ৫ বলে ১ ছক্কা ও ২ বাউন্ডারিতে শেষ পর্যন্ত ১৫ রানে অপরাজিত থেকে দলকে বিপদমুক্ত করেন।

লের সকল খেলোয়াড়েরা বড় নিশ^াস ফেলে মাঠে নেমে পড়ে প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়দের সাথে করমর্দনে। ক্রিয়েটিভের লেগ স্পিনার সাফায়েত ইসলাম প্রতিপক্ষের উপর কিছুটা হলেও প্রভাব রেখেছেন। ৯ ওভারে ৫ মেডেন নিয়ে ১৪ রানে পান ৩ উইকেট। পেসার মোস্তাফিজুর ৯ ওভারে হাফ ছেড়ে ৫ ওভারে ২১ রানে নেন ৩ উইকেট। অধিনায়ক আশরাফুল ৭ ওভারে ১ মেডেন নিয়ে ১৯ রানে তুলে নেন ৩ উইকেট। বাদশা ২৭ রানে ২টি উইকেট পান। ১৩৩ রানের টার্গেট। সিদ্ধিরগঞ্জের ব্যাটসম্যানেরাও কাঁপছিলেন ক্রিয়েটিভের বোলারদের দাপটে। তাদের সাব্বির ১ ছক্কায় ফিরেন ১১ রানে। ওপেনার শাওন অনেকক্ষণ ক্রিজে থেকে প্যাভিলিয়নে ফিরেন ২০ রানে। নাদির খেলছিলেন দাপটের সাথে। কিন্তু তিনিও ফাঁদে পড়েন। ৩ চার ও ১ ছক্কায় ২৭ রানে ফিরলে দলের বেঞ্চে ভয় জাগে পরাজয়ের। মাঠে নেমেই আব্দুল হাকিম তান্ডব শুরু করেন। ২৪ বলে ৪ ছয় ও ১ বাউন্ডারিতে অপরাজিত থাকেন ৩৩ রানে। পেসার ফয়জুল্লা ফাহিম ৫ বলে ১ ছয়ে ও ২ চারে ১৫ রানে অপরাজিত থেকে দলকে বিজয়ী করেন। ক্রিযেটিভের সাফায়েত ইসলাম ৯ ওভারে ৫ মেডেন নিয়ে ১৪ রানে পান ৩ উইকেট। পেসার মোস্তাফিজুর ৯ ওভাওে ২৪ রানে পান ২ উইকেট। এ ম্যাচের মধ্য দিয়ে ২য় বিভাগ ক্রিকেট লীগের পর্দা নামলো।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর