rabbhaban

বক্তাবলীর শহীদ পরিবাররা মূল্যায়ন পায়নি : আল আমিন সিদ্দিকি


সিটি করেসপন্ডেন্ট | প্রকাশিত: ১০:১৭ পিএম, ২৮ নভেম্বর ২০১৮, বুধবার
বক্তাবলীর শহীদ পরিবাররা মূল্যায়ন পায়নি : আল আমিন সিদ্দিকি

একটি আসনে একাধিক প্রার্থী দেয়া বিএনপির একটি নির্বাচনী কৌশল। যেহেতু এখন পর্যন্ত বিএনপি ইসির নিকট দাবী করে আসছে লেভেল প্লেইং ফিল্ড সমান নেই তাই সকল দিক বিবেচনায় এই পদক্ষেপ। একজন প্রার্থী ঘোষিত হলে তাকে আইনি জটিলতায় ফেলে দেয়া হলে সেই আসনে বিএনপি দুর্বল হয়ে পরতে পারে এমনটাই মনে করেন সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী আল আমিন সিদ্দিকি।

মঙ্গলবার (২৬ নভেম্বর) নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সংবাদ নিয়ে নিউজ নারায়ণগঞ্জের সংবাদ বিশ্নেষণধর্মী অনুষ্ঠান টক অব দ্যা নারায়ণগঞ্জ এ আলোচনায় এসব মন্তব্য উঠে আসে আলোচকের কাছ থেকে। অনুষ্ঠানের সঞ্চালনায় ছিলেন নিউজ নারায়ণগঞ্জের স্টাফ করেসপনডেন্ট সাবিত আল হাসান।

তবে একাধিক প্রার্থীর ক্ষেত্রে কোন্দল বাড়ার কোন সম্ভাবনা নেই বলেও দাবী করেন তিনি। যদি কেউ আদর্শবাদী রাজনীতি ধারন করেন এবং দলের সিদ্ধান্তকে প্রাধান্য দেয় তাহলে তাদের দ্বারা কোন কোন্দল হওয়া সম্ভব নয়। তবে তৃণমূলের কর্মীরা একটু আবেগী হওয়ায় তাদের দ্বারা ছোটখাট ঘটনা জন্ম হওয়াটা অস্বাভাবিক নয় বলেও জানান তিনি।

বিভিন্ন সময়ে বক্তবলীতে অঘটন ঘটা প্রসঙ্গে তিনি বলেন বক্তবলীতে যেই গ্রামটিতে টেটাযুদ্ধের মত দুঃখজনক ঘটনা ঘটেছে সেই গ্রামের নাম আকবর নগর। এই আকবর নগর গ্রাম ৩টি স্থানে পড়েছে। তার একদিকে বক্তবলী, অন্যদিকে মুন্সিগঞ্জ ও অপরদিকে কেরানীগঞ্জ। বিভিন্ন সময়ে জায়গা জমি ও ইট ভাটা সক্রান্ত বিরোধ থাকায় এখানে এ ধরণের ঘটানা দেখা যায়, তবে বক্তবলীর অন্যান্য সকল স্থানের মানুষ যথেষ্ট শান্তিপূর্ণ।

এছাড়া ২৯ নভেম্বর বক্তাবলী হত্যাকান্ডের দিবস সম্পর্কে জানতে চাইলে বলেন, এইদিনটি বক্তাবলীবাসীর জন্য অত্যন্ত দুঃখজনক দিন। এই দিনে ২৪ ঘণ্টায় ১৩৯ জনকে হত্যা করে পাকবাহিনীরা। ১দিনে একসাথে এতজনকে হত্যাকরা দেশের অন্যকোন স্থানে আছে কিনা আমার জানা নেই। তার চাইতেও কষ্টদায়ক ব্যাপার হলো ১৩৯ জনের শহীদ পরিবারকে কোন মূল্যায়ন করা হয়নি এখন পর্যন্ত। যেখানে সমাহিত করা হয়েছে সেখানে আমরা বধ্যভুমি ঘোষণা করে সংরক্ষন করার দাবী জানিয়ে আসলেও তা করা হয়নি। আমরা বিভিন্ন সময়ে জেলা প্রশাসক ও সংশ¬ীষ্টদের সুদৃষ্টি কামনা করলেও তা পায়নি এখানকার মানুষজন। সর্বশেষ ২০০৫ সালে একটি স্মৃতি স্তম্ভ তৈরী করা হলেও সেটি কোন তথ্য বহুল নয়। এখানে শহীদদের নাম থাকা প্রয়োজন ছিল। বক্তাবলীর এই ঘটনাবহুল স্থানটির সংরক্ষণ ও শহীদ পরিবারকে মূল্যায়ন করার দাবী জানান তিনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর