৩০ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪, শুক্রবার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭ , ১২:৫৮ পূর্বাহ্ণ

অঝোর ধারায় কান্নার নোনা জলে নাড়িছেড়া ধনের সন্ধান প্রার্থনা


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:২৩ পিএম, ৬ ডিসেম্বর ২০১৭ বুধবার | আপডেট: ০২:২৩ পিএম, ৬ ডিসেম্বর ২০১৭ বুধবার


অঝোর ধারায় কান্নার নোনা জলে নাড়িছেড়া ধনের সন্ধান প্রার্থনা

মাইকটি যখন বাবার হাতে তখন কথা বলতেই তিনি বার বার কেঁদে উঠেন। হাউমাউ কান্নার আড়ালে ভেসে আসে যে করুণ আর আক্ষেপের সুর সেখানটার একটাই দাবী ছিল ‘আমি আমার ছেলেকে ফেরত চাই। আমার যে কোন কিছুর বিনিময়ে সন্তান চাই।’ বাবার সেই কান্নার চিৎকার আর দাবীতে যখ সবাই মাথা নেড়ে সায় দেয় কখন কান্নার সঙ্গে সঙ্গে উপস্থিতিদের অনেকেই চোখের জল আটকাতে পারেনি। বরং তারাও চোখের নোনা জল ফেলেছেন নিরভে নিভৃতে আড়ালে।

দেড় বছরের শিশু সাদমান সাকিকে উদ্ধারের দাবিতে ৬ ডিসেম্বর বুধবার বেলা ১১টায় শহরের চাষাঢ়ায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘উল্লাস’ এর ব্যানারে মানববন্ধন চলাকালে অবতারণা ঘটে এ হৃদয়বিদারক দৃশ্যের।

দেড় বছরের শিশু সাদমান সাকি। আদু আদু করে মাত্রই ডাকতে শিখছে। সেটাও বাবা-মা ছাড়া কিছুই ডাকতে পারে না। সঙ্গে ছোট ছোট পায়ে সারদিনই এক রুম থেকে অন্য রুমে ছুটাছুটি করে। সেদিনও (শুক্রবার) সকাল ১১টায় ঘুম থেকে উঠে মায়ের সঙ্গেই ঘরে ভিতরে রান্নার আসবাবপত্র নিয়ে খেলা করছিল। কখনো মাকে জড়িয়ে ধরে আবার মায়ের রান্নার সরঞ্জাম নিয়ে। তাতেই মা হাবিবা আক্তার লিপি ঘরে দরজা খুলে দেয়। পরে বাইরে উঠানে চাচাতো ভাই তাহসিনের সঙ্গে খেলা করতে থাকে। এর মধ্যে ভাই তাহসিন বাসা ঢুকে পড়ে আর সাদমান বাইরে খেলতে থাকে। যখন হাবিবা আক্ততা লিপি সাদমানের খোঁজে আসেন আর খুঁজে পাননি।’

শিশু সাদমান সাকি নিখোঁজ হওয়ার ঘটনা এভাবে বর্ণনা দেন মা হাবিবা আক্তার লিপি।

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের সঙ্গে কারো কোন বিরোধ নেই। নেই কোন শত্রুও। তারপরও কেন আমার সন্তানকে নিয়ে গেলো কিছুই জানি না। আমি শুধু আমার ছেলেকে ফিরে পেতে চাই।’ কথা গুলো বলতে বলতে চোখে জল মুছেন মা হাবিবা আক্তার লিপি।

নিখোঁজ শিশু সাদমান সাকি শহরের দেওভোগ কাঠের দোতলা বড় জামে মসজিদ এলাকার সৈয়দ ওমর খালেদ এপনের দ্বিতীয় ছেলে। সৈয়দ ওমর খাদে এপন একই সঙ্গে নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি ছিলেন।

এর আগে গত ০১ ডিসেম্বর দুপুর দেড়টায় কাঠের দোতালা এলাকার মুক্তিযোদ্ধা দুলাল মিয়ার বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়। এ ঘটনায় বাবা সৈয়দ ওমর খালেদ নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় সাধারণ ডায়রী করেন।

সাদমান সাকির বাবা সৈয়দ ওমর খালেদ এপন বলেন, ‘জুম্মার নামাজে যাওয়ার জন্য অজু করতে গিয়েছি। যাওয়ার সময় গেইটের সামনে খেলা করতে দেখে গেছি। আর ৮ থেকে ১০ মিনিটের মধ্যে অজু করে এসে দেখি আমার ছেলে নেই।’

তিনি আরো বলেন, ‘গত সিটি করপোরেশনে কাউন্সিলর নির্বাচন করেছি। আবার জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি ছিলাম। এসব কিছুর কারণেই হয়তো শত্রুতা করে আমার ছেলেকে অপহরণ করে নিয়ে গেছে। কিন্তু এখনও পর্যন্ত কেউ কোন মুক্তিপণ দাবি করেনি।’

কান্না জড়িত কণ্ঠে সৈয়দ ওমর খালেদ এপন বলেন, ‘আমি আমার ছেলেকে ফিরে পেতে চাই। যে কোন কিছুর বিনিময়ে হলেও আমার সন্তানকে ফিরিয়ে দিন। প্রশাসন চাইলে ২৪ ঘন্টার মধ্যে আমার সন্তাকে ফিরিয়ে আনতে পারে। কিন্তু আজ ৬দিন হয়ে গেলো কিন্তু এখনও আমার সন্তানকে ফিরে পাচ্ছি না। প্রশাসন সহ সকল কাছে অনুরোধ আমার সন্তানকে ফিরিয়ে দিন।’

মানববন্ধনে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম আরাফাত বলেন, ‘অবিলম্বে শিশু সাদমানকে উদ্ধার  করতে হবে। দ্রুত সাদমান সাকি উদ্ধার না করা হলে কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে।’

সাদমান সাকির চাচা মাহমুদ সুপনের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন সাকির দাদি শাহিনা বেগম, উল্লাস সংগঠনের সভাপতি ওয়াহিদ মুরাদ, সহ সভাপতি মাসুদুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক সেলিম হাসান দিনার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ নয়ন, সংগঠনিক সম্পাদক জিএম কুদরত, কোষাধ্যক্ষ মো. হাইউল্ল, এলাকাবাসীর পক্ষে মো. বাবুন, রাকিব, ইকবাল, কাজল প্রমুখ।

নারায়ণগঞ্জ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক অঞ্চল) মো. শরফুদ্দিন বলেন, ‘আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। আমরা চেষ্টা করছি দ্রুত শিশুটিকে উদ্ধার করার জন্য। তবে তেমন কোন রহস্য না থাকায় দেরি হচ্ছে। কিন্তু উদ্ধার অভিযান অব্যাহত আছে।’

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

মহানগর -এর সর্বশেষ