৭ কার্তিক ১৪২৫, মঙ্গলবার ২৩ অক্টোবর ২০১৮ , ৩:৫০ পূর্বাহ্ণ

UMo

শহরে যানজট : গড়ে ২ কর্মঘণ্টার ক্ষতি সঙ্গে ভোগান্তি


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:৩২ পিএম, ১৬ এপ্রিল ২০১৮ সোমবার


শহরে যানজট : গড়ে ২ কর্মঘণ্টার ক্ষতি সঙ্গে ভোগান্তি

শহরের যানজটের ভোগান্তি দিয়েই নগরবাসী শুরু করলো বাংলা নববর্ষ ১৪২৫। ১৪ এপ্রিল থেকে টানা তৃতীয় দিনেও যানজটের দুর্ভোগ পিছু ছাড়ছে না নগরবাসীর। মাত্র কয়েক মিনিটের রাস্তা নগরবাসীকে যানবাহনে বসে থাকতে হচ্ছে ঘণ্টার পর ঘণ্টা। এতে করে দুর্ভোগের পাশাপাশি কর্মঘণ্টাও নষ্ট হচ্ছে কর্মজীবী মানুষের।

১৬ এপ্রিল সোমবার সকাল থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত শহরের চাষাঢ়া গোল চত্ত্বর এলাকায় দেখা গেছে ছোট বড় সকল ধরনের যানবাহনের জটলা। যার কারণে নগরীর ২নং রেল গেট এলাকা থেকে চাষাঢ়া বঙ্গবন্ধু সড়কের দুই পাশের মধ্যে পশ্চিম পাশের ঢাকামুখী রাস্তা ছিল যানজট। নগরীর প্রবেশ ও বাইরের দুই মুখই বন্ধ হয়ে গিয়েছিল সেসব গাড়ির কারণে। ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোড ও ঢাকা-পাগলা ও নারায়ণগঞ্জ (ফতুল্লা-পঞ্চবটি) পুরাতন সড়কে ইঞ্জিন থামিয়ে চালকদের বসে থাকতে দেখা যায়। শুধু তাই নয় মূল সড়কের যানজট ভোগান্তি বিভিন্ন পাড়া মহল্লার অলিগিলিতেও দেখা যায়।

নিতাইগঞ্জ থেকে চাষাঢ়া যাওয়ার যাত্রী হানিফ বলেন, ‘রিকশায় ভালো ভাবেই নিতাইগঞ্জ থেকে ২নং রেল গেট পর্যন্ত আসি। কিন্তু রেল গেট পার হতে না হতেই যানজট। কয়েক মিনিটের রাস্তায় আধা ঘণ্টা ধরে বসে আছি। রিকশা এগুতো পাড়ছে না। তার উপরে রিকশার রাস্তায় বড় বড় বাস ঢুকে রাস্তা বন্ধ করে রেখেছে। এছাড়াও রাস্তার পাশে প্রাইভেটকারগুলো পার্কিং করে রাস্তা আরো সংকুচিত করে ফেলেছে।

কেন এ যানজট জানতে উৎসব পরিবহনের গাড়ি চালক কামরুল ইসলাম বলেন, ‘চাষাঢ়া মোড়ে ট্রাক ঘুরছে। তাই যানজট।’

রিকশা চালক আবু তালেব বলেন, ‘সকাল থেকেই চাষাঢ়ায় যানজট। একজন যাত্রী নিয়ে চাষাঢ়া পৌঁছাতে গিয়ে কয়েক ঘণ্টা শেষ হয়ে যায়। তাই চাষাঢ়ার যাত্রী নিচ্ছি না।’

সিএনজি চালক সোহেল বলেন, ‘উল্টো রাস্তা গাড়িগুলো ঢুকে বেশি যানজট সৃষ্টি করে। ট্রাক গুলো চাষাঢ়া গোল চত্ত্বর ঘুরতে গিয়ে যানজট বাড়িয়ে দেয়। এমনিতে তেমন যানজট থাকে না তবে নতুন করে এ গাড়িগুলো প্রবেশ করছে বলেই যানজট বাড়ছে।’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ট্রাফিক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘মূলত এইচএসসি পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে সকাল ৯টা থেকে ১০টা পর্যন্ত মহিলা কলেজ ও তোলারাম কলেজের রাস্তায় যাতে যানজট সৃষ্টি না হয় সেই জন্য বিশেষ নজর থাকে। একই সঙ্গে শহরের অন্যান্য কলেজের যাত্রীদের জন্যও বেশ কিছু সময় অন্য গাড়ি চলাচল বন্ধ করে শিক্ষার্থীদের যাওয়ার ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়। একই ভাবে পরীক্ষা শেষও করা যার জন্য যানজট সৃষ্টি হয়।

তিনি আরো বলেন, ‘বাকি সময় যানজট হয় ট্রাক, রিকশা, সিএনজি ও প্রাইভেটকারগুলোর জন্য। মূলত গাড়ি নিময় ভেঙে উল্টোপথে চালাতে গেলেই যানজট সৃষ্টি হয় বেশি। বিশেষ করে ট্রাকগুলো চাষাঢ়া গোল চত্ত্বর ঘুরে বিসিক এলাকা কিংবা নিতাইগঞ্জ এলাকায় যাওয়ার আসা করতে গেলেই যানজট বেশি সৃষ্টি হয়। তাছাড়া প্রাইভেটকারগুলো যত্রতত্র পার্কিং করে রাস্তা বন্ধ করে দেয়। এগুলো ছাড়াও রিকশা ও সিএনজি গুলো একটু ঘুরে যাওয়ার কষ্টের জন্য উল্টোপথে চলা শুরু করে। যার ফলে দুই দিক দিয়ে গাড়ি চলাচলে যানজট সৃষ্টি হয়।

দৈনিক সময়ের নারায়ণগঞ্জ পত্রিকার সম্পাদক জাবেদ আহমেদ জুয়েল বলেন, ‘সময়ের চেয়ে জীবনের মূল্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ হলেও বর্তমানে সময়ের মূল্য অনেক বেশি। নিতাইগঞ্জ থেকে চাষাঢ়া পর্যন্ত পৌছাতে যেখানে সর্বোচ্চ ৫ থেকে ১০ মিনিটের পথ সেখানে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে বসে থাকে প্রতিদিন গড়ে ২ ঘন্টা করে আমাদের কর্মঘণ্টা নষ্ট হচ্ছে। এতে যেমন আমরা নিজেরা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছি তেমনি দেশে অর্থনীতিতেও ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এ বিষয়ে পুলিশ প্রশাসন, জেলা প্রশাসন, সিটি করপোরেশন ও সংসদ সদস্যদেরও পদক্ষেপ নেওয়া জরুরী।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

মহানগর -এর সর্বশেষ