৬ কার্তিক ১৪২৫, সোমবার ২২ অক্টোবর ২০১৮ , ৬:১৯ পূর্বাহ্ণ

UMo

হকার ইস্যুতে উত্তেজনা বাড়ছে


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৭:৫৩ পিএম, ২৩ এপ্রিল ২০১৮ সোমবার


ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

নারায়ণগঞ্জ শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কের ফুটপাতে হকার বসা নিয়ে আবারও উত্তেজনা বেড়ে চলেছে। ইতোমধ্যে হকার নেতারা জানিয়েছেন ১ মে তারা বৃহত্তর কর্মসূচী দিবে। আর পুলিশ বলছে বঙ্গবন্ধু সড়কে কোন ভাবেই হকার বসতে দেওয়া যাবে না।

নগরবাসী বলছে, গত ২৫ ডিসেম্বর থেকে শহরের ফুটপাত দিয়ে লোকজন অনায়াসে চলাফেরা করতে পারছে। এখন আসন্ন রোজায় কিংবা রোজার আগে যদি আবারও বঙ্গবন্ধু সড়কের ফুটপাতে হকার বসতে দেওয়া হয় তাহলে ফের যানজট থেকে শুরু করে শহরে বড় ধরনের বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হবে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, বঙ্গবন্ধু সড়কের চাষাঢ়া থেকে মন্ডলপাড়া পর্যন্ত সড়কের দুই পাশের মধ্যে নয়ামাটি রাস্তা, চেম্বার রোড, প্রেসক্লাবের দক্ষিণ দিকের বালুর মাঠ এলাকার প্রবেশ সড়ক, পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারের উত্তর দিকে গলি, লুৎফা টাওয়ারের গলি, প্রেসিডেন্ট রোড গলি, সলিমুল্লাহ রোড, হকার্স মার্কেট সহ সিরাজউদ্দৌলা সড়ক, শায়েস্তাখান সড়কে প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত প্রচুর হকার বসছে।

হকারদেরকে বসতে দেয়ার দাবিতে ২২ এপ্রিল রোববার বেলা ১১ টায় চাষাঢ়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সমাবেশ এবং নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন।

ওই সমাবেশে হাফিজুল ইসলাম বলেন, হকার ছিল হকার আছে হকার থাকবে। হকারদের আন্দোলন থেমে যায়নি। পুনর্বাসন না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে। আমরা সকলে একত্রিত হয়ে উচ্ছেদের বিরুদ্ধে, গরীব মানুষের উপর অন্যায় আচরনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করবো। হকাররা যানজটের জন্য দায়ী নয়। হকাররা তো এখন বসে না, তাহলে এখন কেন যানজট হয়। হকারদের বসতে দেয়ার দাবিতে প্রয়োজনে অবস্থান ধর্মঘট, মশাল মিছিল, লাঠি মিছিল, রাস্তা অবরোধ, বিক্ষোভ মিছিল ও ভূখা মিছিলসহ কঠোর আন্দোলন করবো। মনে করবেন না হকারদের লোক নেই। হকররা কোথাও যায়নি, যখনই যত লোক প্রয়োজন হবে তখন তত লোকই আমরা আনবো।

হকার সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি আসাদুল ইসলাম আসাদ বলেন, আমরা আর কারো আশায় আশান্বিত হবো না। সবাই আমাদেরকে আশা দিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু আমরা আর চুপ থাকবো না। আন্দোলন করে আমাদের দাবি আদায় করে নিতে হবে। আগামী মে দিবসে সকাল ৯ টায় আমরা সকলেই একত্রিত হবেন, আমাদেরকে বসতে দেয়া না হলে কঠোর কর্মসূচির ঘোষণা দেয়া হবে। আমরা আমাদের কর্মসংস্থানে ফিরে যেতে চাই।

এসময় উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সহ-সভাপতি আব্দুল হাই শরীফ, সাধারণ সম্পাদক বিমল কান্তি দাস ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন, হকার ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক হযরত আলী ও হকার্স লীগের সভাপতি আব্দুর রহিম মুন্সিসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি কামরুল ইসলাম জানান, হকার ইস্যুতে ১৬ জানুয়ারীর ঘটনার পর মামলাটি তদন্ত চলছে। আর বঙ্গবন্ধু সড়কে কোনভাবেই হকার বসতে দেওয়া হবে না।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

মহানগর -এর সর্বশেষ