ভ্যানেটি ব্যাগে ‘কনডম’ পরকীয়া সন্দেহে স্ত্রী রুমানাকে হত্যা

ফতুল্লা করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:১৭ পিএম, ১৬ মে ২০১৮ বুধবার

ভ্যানেটি ব্যাগে ‘কনডম’ পরকীয়া সন্দেহে স্ত্রী রুমানাকে হত্যা

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় গৃহবধূ রুমানা আক্তারকে (২৪) হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে স্বামী রাজু আহমেদ। পরকীয়া সন্দেহে দীর্ঘদিন ধরে তাদের স্বামী স্ত্রীর মধ্যে কলহ চলছিল। এনিয়ে স্ত্রীকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়।

১৬ মে বুধবার বিকেলে কোর্ট পুলিশের এসআই হানিফ মিয়া জানান, ১৫ মে মঙ্গলবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আশেক ইমামের আদালত রাজু আহমেদের দেয়া জবানবন্দি রেকর্ড করেছেন। এরপর আদালত রাজু আহমেদকে জেল হাজতে প্রেরন করেন।

জবানবন্দির বরাত দিয়ে পুলিশের একটি সূত্র জানায়, হত্যার আগের দিন রুমানা আক্তারের ভ্যানেটিব্যাগ তল্লাশী করে জন্মনিরোধক কনডম দেখতে পায় রাজু। এনিয়ে তর্কে জড়িয়ে পড়ে স্বামী স্ত্রী। এক পর্যায়ে রুমানা তার বাবার বাড়ি চলে যায়। পরের দিন রাতে ফের স্বামীর বাড়িতে আসলে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে আবারো তর্ক হয়। এক পর্যায়ে রুমানাকে এলোপাথাড়ি ছুরিকাঘাত করে রাজু। এরপর আশপাশের লোকজন ছুটে এসে রুমানাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই আমিনুল ইসলাম জানান, পরকীয়া সন্ধেহে রাজু তার স্ত্রী রুমানাকে ছুড়িকাঘাত করে হত্যা করেছে বলে আদালতে জবানবন্দি দিয়ে দোষস্বীকার করেছে। এঘটনায় আরো তদন্ত চলছে।

উল্লেখ্য, ১৩ মে সোমবার সকালে ফতুল্লার পশ্চিম দেলপাড়া এলাকার আহসান উল্লাহর ভাড়াটিয়া বাসায় রাজু আহমেদ তার স্ত্রীকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে। নিহত রুমানা আক্তার পশ্চিম দেলপাড়া এলাকার রবিউল মিয়ার মেয়ে এবং রাজু রাজধানী ঢাকার ধোলাইখাল এলাকার খালেক মিয়ার ছেলে। রাজু ধোলাইখাল এলাকায় মোটর পার্টসের ব্যবসা করেন। ৮বছর পূর্বে রুমানা ও রাজুর বিয়ে দেয়া হয়। তাদের সাত বছর বয়সের একটি পুত্র সন্তান আছে।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও