শীর্ষ দশের তালিকাতে দ্বিতীয় ‘ফেন্সী’ কবির সুযোগ পেয়েও বদলায়নি

৩১ শ্রাবণ ১৪২৫, বুধবার ১৫ আগস্ট ২০১৮ , ১:২০ অপরাহ্ণ

শীর্ষ দশের তালিকাতে দ্বিতীয় ‘ফেন্সী’ কবির সুযোগ পেয়েও বদলায়নি


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:১৫ পিএম, ২৩ মে ২০১৮ বুধবার | আপডেট: ০২:১৫ পিএম, ২৩ মে ২০১৮ বুধবার


শীর্ষ দশের তালিকাতে দ্বিতীয় ‘ফেন্সী’ কবির সুযোগ পেয়েও বদলায়নি

দুই বছর আগে নারায়ণগঞ্জ বন্দর উপজেলার ধামগড় ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের ভোটারদের কাছে আকুতি মিনতি করে জনপ্রতিনিধি হওয়ার সুযোগ চেয়েছিলেন চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ী কবির হোসেন ওরফে ফেন্সী কবির। ওয়াদা করেছিলেন আর কখনোই মাদক ব্যবসা করবেন না। তবে ওয়াদার ছিটেফোটাও পালন করেননি মেম্বার নির্বাচিত হওয়া ফেন্সি কবির। বরং জনপ্রতিনিধি হওয়ার আড়ালে আবারো গড়ে তুলেছেন মাদকের সা¤্রাজ্য। মাদক বিকিকিনিতে গড়ে তুলেছেন বিশাল একটি সিন্ডিকেট। এমনকি তার শ্বশুর বাড়িতে সম্প্রতি মিলেছে ইয়াবা তৈরীর কারখানা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকাবাসী জানান, কবির হোসেন ওরফে ফেন্সী কবিরের বাবা ছিলেন দাড়োয়ান ও মা ফেরী করে কাপড় বিক্রি করতেন। তবে মাদক বিক্রির মাধ্যমে ফেন্সী কবির বর্তমানে অঢেল অর্থের মালিক বনে গেছেন। তার বিরুদ্ধে ইতিমধ্যে নারায়ণগঞ্জেই ১৮টি মাদক মামলা বিচারধীন রয়েছে। তবে কুমিল্লা, ব্রাক্ষনবাড়ি ও মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া থানাতেও তার বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে। ২০১৬ সালের মাঝামাঝিতে অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনের কয়েকদিন পূর্বে জামিনে বেরিয়ে এসে নির্বাচনে অংশ নেন কবির হোসেন ওরফে ফেন্সী কবির। ওই সময় এলাকাবাসীর কাছে আকুতি মিনতি করে অনেক মুরব্বীর হাতে পায়ে ধরে তাদের কাছে ভোট প্রার্থনা করেন এবং একবারের মতো সুযোগ চান। পরে নারায়ণগঞ্জের বন্দরের ধামগড় ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের মেম্বার নির্বাচিত হন চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ী ফেন্সী কবির। তবে এলাকাবাসী জানান সুযোগ পেয়েও বদলায়নি ফেন্সী কবির। জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হওয়ার পরে তার দাপট যেন আরো বেড়েছে। সে গড়ে তুলেছে মাদকের একটি বিশাল সিন্ডিকেট। আর ওই সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রন করছে সাগর, প্রদীপ, সজীব, শাহীন, জিলানী, শাহআলীসহ ১৫ জনের একটি দল।

এদিকে আগে ফেন্সী কবির বিক্রি করতো ফেন্সিডিল। বর্তমানে সে ইয়াবার কারবার গড়ে তুলেছে। এলাকাবাসী আরো জানান, সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার হরিপুরে একটি ইয়াবা তৈরির কারখানা থেকে সরঞ্জামাদিসহ এক নারীকে গ্রেপ্তার করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর। মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তর মাদক ব্যবসায়ী ঘর তল্লাশী করে ২’শ পিছ ইয়াবা ট্যাবলেট ও ইয়াবা তৈরি লাল, গোলাপী, সবুজ, হলুদ ও সাদা রং এর ২ কেজি পাউডার, ৩’শ গ্রাম ক্যামিকেল, ২’শ মিলি তরল পদার্থ, ৩টি ডাইস মেশিন, ২টি সিসি ক্যামেরা, ১টি মনিটর, ১টি ডিভাইস ও ১টি মোবাইল সেট উদ্ধার করে। অভিযানে নেতৃত্বদানকারী নারায়ণগঞ্জ সার্কেলের সহকারী পরিচালক (এডি) বিপ্লব কুমার বলেন, অভিযানে টিনসেড বাড়ির তিনটি কক্ষের প্রত্যেকটিতে ইয়াবা তৈরির উপকরণ মজুদ পাওয়া গেছে। একটি কক্ষে পাওয়া যায় ইয়াবা তৈরির মেশিন। পুরো বাড়িটি সিসি ক্যামেরা দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। ওই বাড়ির বাসিন্দা হাবিবুর রহমান দীর্ঘদিন ধরে ইয়াবা তৈরি করে আসছিল। তিনি নিজ নেটওয়ার্কে ইয়াবা সাপ্লাই দিতেন। তাকেও ধরার চেষ্টা চলছে। অভিযানের বিষয়টি টের পেয়ে মূলহোতা হাবিবুর রহমান হবি পালিয়ে গেলেও ধরা পড়ে তার স্ত্রী লাকী আক্তার। পলাতক ওই হাবিবুর রহমান হবি হচ্ছে ফেন্সী কবিরের সমন্ধী। অর্থাৎ হাবিবুর রহমান হবির বোনকে বিয়ে করেছিল ফেন্সী কবির।

এদিকে ২০১৭ সালের ১৯ জুনবন্দর থানার ৫টি মাদক মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী ধামগড় ইউপি ৬নং ওয়ার্ড মেম্বার কবির হোসেন ওরফে ফেন্সী কবিরকে (৪০) গ্রেফতার করে ধামগড় ফাঁড়ি পুলিশ। গ্রেফতারকৃত ফেন্সী কবির গকুলদাশের বাগ এলাকার আব্দুল রব মিয়ার ছেলে। ২০১৮ সালের ১০ এপ্রিল আবারো ফেন্সী কবির গ্রেফতার হয়।

এ বিষয়ে জানতে কবির হোসেন ওরফে ফেন্সী কবিরের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে বন্দর থানার ওসি শাহীন মন্ডল জানান, সম্প্রতিই আমরা কবির হোসেন ওরফে ফেন্সী কবিরকে গ্রেফতার করেছি। মাদক ব্যবসায়ী যেই হোকনা কেন তাদেরকে ছাড় নেই।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

মহানগর -এর সর্বশেষ