শেষ সময়ে বেড়েছে বেচাকেনা, জমে উঠছে মার্কেটগুলো

সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৩৬ পিএম, ১৩ জুন ২০১৮ বুধবার

শেষ সময়ে বেড়েছে বেচাকেনা, জমে উঠছে মার্কেটগুলো

নারায়ণগঞ্জে শেষ সময়ে বিভিন্ন মার্কেটে জমে উঠেছে বেচাকেনা। একই সাথে বাহারি ক্রেতাদের আগমনে জমে উঠেছে ঈদের মার্কেটগুলো। ঈদ যতই ঘনিয়ে আসছে বেচাবিক্রি ততই পাল¬া দিয়ে বাড়ছে বলে জানান বিক্রেতারা তবে বেশী বিক্রি হচ্ছে শহরের হকার্স মার্কেট ও ফুটপাতগুলোতে।

দেশের নামীদামী ব্রান্ডের বিভিন্ন শো রুম এখন নারায়ণগঞ্জে। শহরের চাষাঢ়া থেকে শুরু করে ২ নং রেলগেট পর্যন্ত একাধিক বড় বড় মার্কেটকে ঘিরে গড়ে উঠেছে এসব শো রুম তবে দামের খুব বেশী তারতম্য থাকার এসব দোকানে তেমন ভীড় দেখা যাচ্ছেনা। দু’একটি দোকানে ভীড় দেখা গেলেও বেচাবিক্রি একেবারেই কম। শহরের চাষাঢ়াতে আল জয়নাল ট্রেড সেন্টারে এস্টেসী, মিপল, অঞ্জনস, ক্লাব মার্কেটের বিপরীতে লা রিভ, কান্ট্রিবয়, আড়ং, উকিলপাড়ায় টপ টেনসহ বিখ্যাত নামীদামী ব্রান্ডের দোকানে এবার ঈদ উপলক্ষে দেখা গেছে নতুন নতুন কালেকশন।

দেশের চলমান ঊর্ধ্বমুখী দ্রব্যমূল্য ও সকল কিছুর খরচ বৃদ্ধিতে নারায়ণগঞ্জের নিম্ন ও মধ্যবিত্তের এখন প্রধান আস্থায় পরিণত হয়েছে হকার্স মার্কেট। বড় বড় মার্কেটগুলোতে এবার জামা কাপড়ের মূল্য ক্রয় সীমার উপরে থাকায় এবং ফিক্সড প্রাইজ (নির্ধারিত মূল্য) থাকার তাই এখন সাধারণ মানুষ হকার্স মার্কেট থেকেই তুলনামূলক বেশী কেনাকাটা করছেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, প্রতিটি মার্কেটের চেয়ে হকার্স মার্কেটে ক্রেতাদের ভীড় বেশী এবং ক্রেতারাও হকার্স মার্কেট থেকে বেশী বেশী কেনাকাটা করছেন। ক্রেতারা যেমন এখান থেকে কেনাকাটা করে স্বস্তি পাচ্ছে, বিক্রেতারাও একই সাথে বিক্রি করে খুশী।

নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন মার্কেটে কাপড়ের দোকানের পাশাপাশি বিভিন্ন পোশাক তৈরীর ট্রেইলারের বেড়েছে ভীড়। কাপড় তৈরীর বাড়তি চাপ সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে টেইলর কারিগরদের। ঈদ ছাড়াও স্বাভাবিক ভীড় থাকে টেইলার্সে কিন্তু ঈদ আসলেই তাদের ব্যস্ততা বেড়ে যায় কয়েকগুনে। ঈদের দিন সকালে নতুন জামা পড়ে নামাজে যাওয়া, বাড়িতে নতুন জামা পড়ে সকলের সাথে বসে আড্ডা দেয়া, নতুন জামা পড়ে বাচ্চাদের আনন্দ করে ঈদের সালামি আদায় করাসহ সকল ক্ষেত্রেই ঈদে প্রয়োজন হয় নতুন পোশাকের। বেশীরভাগ মানুষ এখন রেডিমেট জামাকাপড় কিনলেও এখনো অনেক মানুষই নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী কাপড় কিনে নিজের শরীরের মাপে পোশাক তৈরী করিয়ে নেন। মেয়েরা বেশী করেন। ৮০ ভাগ নারী এখনো নিজের ঈদসহ সকল বিশেষ দিনের কাপড় কিনে নিজের শরীরের মাপে কাপড় বানিয়ে নেন। এতে করে কাপড় পড়তে যেমন স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন তারা তেমনি কাপড়ও হয় মানানসই। আর তাই কাপড় বানানোর দিকেই প্রথম নজর থাকে নারীদের ও পাঞ্জাবী প্রিয় পুরুষের।

প্রতি বছরের ন্যায় এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। এবারও তাই কাপড়ের দোকানগুলোতে ঈদ উপলক্ষে বিশেষ চাপ লক্ষ করা গেছে। প্রায় প্রতিটি টেইলার্সে দম ফেলার ফুরসত নেই। ঈদের আগের দিন অর্থাৎ চাঁদরাত পর্যন্ত তাদের গ্রাহকদের দেয়া হচ্ছে ডেলিভারির তারিখ।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও