২ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, শুক্রবার ১৬ নভেম্বর ২০১৮ , ৮:৪৬ অপরাহ্ণ

rabbhaban

প্রবীরের মুক্তিপণ বাবদ হাতিয়ে নেয় দেড় লাখ টাকা ‘যা ছিল এসএমএসে’


স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:৪৫ পিএম, ১০ জুলাই ২০১৮ মঙ্গলবার


প্রবীরের মুক্তিপণ বাবদ হাতিয়ে নেয় দেড় লাখ টাকা ‘যা ছিল এসএমএসে’

নারায়ণগঞ্জ শহরের কালীরবাজারের স্বর্ণ ব্যবসায়ী প্রবীর ঘোষ গত ১৮ জুন থেকে নিখোঁজ হয়। ৯ জুলাই উদ্ধার করা হয় লাশ। এরই মধ্যে একটি চক্র প্রবীর ঘোষের ভাইয়ের মোবাইলে এসএমএস পাঠিয়ে জানিয়েছিলেন যে সে অপহৃত হয়েছে। এ চক্রটি বিকাশের মাধ্যমে পরিবারের কাছ থেকে হাতিয়ে নেয় প্রায় দেড় লাখ টাকা।

১০ জুলাই মঙ্গলবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, প্রবীর ঘোষের ঘনিষ্ঠ পরিচিত ছিল পিন্টু দেবনাথ। তার স্বর্ণের দোকানের কর্মচারী ছিল বাপেন ভৌমিক বাবু। প্রবীরকে হত্যার পর বাপেন কুমিল্লা সীমান্তবর্তী এলাকাতে চলে যায়। সেখান থেকে প্রবীরের মোবাইলের সীম ব্যবহার করে নারায়ণগঞ্জে বিভিন্নজনের কাছে ম্যাসেজ পাঠায় বিষয়টি ভিন্ন দিকে নেওয়ার জন্য। তখন প্রবীরের সেই মোবাইল নাম্বারটি বন্ধ করে ফেলে বাপেন। পরবর্তীতে বাপেন শহরের কালীরবাজার চলে আসে। সেখানে এসে মোবাইল সীম পরবর্তনের পর ট্র্যাকিংয়ে বাপেন ধরা পড়ে। সোমবার বাপেন ও প্রবীরকে আটক করা হলে বেরিয়ে আসে মূল তথ্য। বাপেনের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় প্রবীরের মোবাইল ফোন।

এর আগে মধ্যে প্রবীরের পরিবারের কাছে পাঠানো এসএমএসে লেখা ছিল ‘কালীরবাজারের রাঘাববোয়ালরা এর সঙ্গে জড়িত। উনাকে বিবি রোড থেকে তুলে নেয়া হয়েছে। ওকে পেতে মুক্তিপণ লাগবে ১ কোটি টাকা। চলে আসবে গুলিস্তান ফ্লাইওভারের নিচে।’

১৮ জুন কালীরবাজার স্বর্ণ মার্কেট ও বঙ্গবন্ধু সড়কের একটি বেসরকারি ব্যাংকের সিসি টিভি ফুটেজে দেখা গেছে, প্রবীর ঘোষ রাত ৯টা ২৫ মিনিটে কালীরবাজার রোড থেকে মূল সড়কে বেরিয়ে আসছেন। এরপর সর্বশেষ তাকে জাতীয় পার্টির কার্যালয় ঘেঁষা গলি দিয়ে রাত ৯টা ৩১ মিনিটে বের হতে দেখা গেছে।

প্রসঙ্গত নিখোঁজের ২১ দিন পর সোমবার ৯ জুলাই রাত ১১টায় শহরের আমলপাড়া এলাকার ঠান্ডু মিয়ার ৪ তলা ভবনের নিচে সেপটিক ট্যাংক থেকে প্রবীরের লাশ উদ্ধার করা হয়। তাকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে। টুকরো টুকরো করে লাশ ফেলে দেওয়া হয় ভবনের সেপটিক ট্যাংকে। পঁচন ধরে যায় লাশের মধ্যে। প্রবীরকে হত্যা করা হয়েছে মাথ, পা, হাত ও শরীরকে বিচ্ছিন্ন করে। হত্যার পর অংশগুলো সিমেন্টের ব্যাগে ভরে ফেলে দেওয়া হয়।

প্রবীর ঘোষ কালীরবাজার ভোলানাথ জুয়েলার্সের মালিক। গত ১৮ জুন থেকে সে নিখোঁজ ছিল। তাঁর সন্ধান দাবীতে ২১ দিন ধরে বিভিন্ন সময়ে ব্যবসায়ী, নিহতের স্বজন, বিভিন্ন সংগঠন ও পরিবারের লোকজন মানববন্ধন ও সমাবেশ করে আসছিল। এর মধ্যে নিহতের পরিবার প্রশাসনের কাছে স্মারকলিপিও প্রদান করেছিল।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

মহানগর -এর সর্বশেষ