শিক্ষার্থীদের কাছে সময় নিলেন শামীম ওসমান, রোববার মাঠে নামার ঘোষণা

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৪:৫০ পিএম, ৩ আগস্ট ২০১৮ শুক্রবার



শিক্ষার্থীদের কাছে সময় নিলেন শামীম ওসমান, রোববার মাঠে নামার ঘোষণা

নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাঢ়াতে আন্দোলনকারীরা তাদের কর্মসূচী সাময়িকভাবে প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছে। একদিন মানববন্ধন ও পরের টানা দুইদিন সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত চাষাঢ়ায় অবস্থান করে নারায়ণগঞ্জের সঙ্গে রাজধানীর যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া আন্দোলনকারীরা শুক্রবার ৩ আগস্ট ফের জমায়েত হলে হাজির হন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমান যিনি এক সময়ে ছাত্র রাজনীতি করেই বর্তমান এমপি হয়েছেন।

বুধবার ও বৃহস্পতিবার টানা দুইদিন নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাঢ়ায় সকাল ১০টা হতে বিকেল ৪টা পর্যন্ত অবস্থান করেছিল শত শত শিক্ষার্থী। এছাড়া সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল ও সাইনবোর্ড এলাকাতেও ছিল অবস্থান। এতে করে নারায়ণগঞ্জের সঙ্গে রাজধানী সহ আশেপাশের জেলার সকল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। দুইদিনে শিক্ষার্থীরা গাড়ির লাইসেন্স পরীক্ষা করেন যেখানে বাদ পড়েনি সরকার দলীয় এমপি, রাজনীতিক, পুলিশ, সাংবাদিকও।

শুক্রবার ৩ আগস্ট দুপুর থেকে আবারো চাষাঢ়াতে অবস্থান নেয় বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী। তারা আটক করে বেশ কয়েকটি গাড়ির চাবি যাদের লাইসেন্স ছিল না। তবে দুপুর ২টায় শামীম ওসমান আসেন চাষাঢ়াতে। সেখানে তখন চলছিল এক গ্রুপ শিক্ষার্থীদের অবস্থান। শামীম ওসমানের বক্তব্যের পর অবস্থানকারীরা সরে যায় ও জব্দ করা চাবিগুলো পুলিশের কাছে তুলে দেয়।

শামীম ওসমান উপস্থিতিদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘ট্রাফিক সিস্টেম নিয়ন্ত্রণে আমি নিজেও অনেকবার মাঠে নেমেছি। আমি মাঠে নামলে কিন্তু যানজট থাকেনা। পুলিশ ও ট্রাফিকদের তাদের দায়িত্ব পালন করতে দাও। আজ শুক্রবার ও কাল শনিবার তোমরা দেখো। রবিবারের মধ্যে যদি তোমরা যেভাবে চাও সেভাবে ট্রাফিক সিস্টেম ঠিক না হয় তাহলে আমি নিজে রবিবার থেকে মাঠে থাকবো।

তিনি বলেন, আমি তোমাদের গত দুদিনের আন্দোলনের ছবিগুলো দেখেছি। সেখানে তোমাদের মাঝে ঢুকে গেছে এমন কিছু মামলার আসামী আছে যারা শিবির ও জঙ্গীবাদের সঙ্গে জড়িত। তোমাদের মধ্যে এরা কোন অঘটন ঘটিয়ে দিতে পারে। এসব বিষয় উদ্বেগের। তোমাদের মধ্যে অনেকেই ছিল যারা ছাত্র নয় তোমরা নিজেরাও খেয়াল করলে দেখতে পাবা।

উপস্থিত থাকা ফতুল্লা মডেল থানার ওসি মঞ্জুর কাদের ও নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার কামরুল ইসলামকে শামীম ওসমান বলেন, আপনারা (পুলিশ) আপনাদের কাজ করুন ট্রাফিক সিস্টেম ঠিক করুন। যদি তা না পারেন তাহলে নারায়ণগঞ্জ থেকে অন্য জায়গায় চলে যান। আমার কাউকে দরকার নেই। আমার এই ছাত্ররা থাকলেই আমার চলবে। আমি তো কাউকে বলিনি আমি বললে হাজার হাজার ছেলেমেয়ে আসবে। যদি রবিবার মধ্যে সব ঠিক না হয় তাহলে আমি তোমাদের নিয়ে মাঠে থাকবো, সবাইকে নিয়ে কাজ করবো।

তিনি বলেন, তোমাদের দাবিগুলো একসাথে নিয়ে সকল ছাত্রছাত্রীরা আমার কাছে রবিবার আসবে। ছাত্রলীগের রিয়াদ তোমাদের সহযোগিতা করবে। তারপর দাবিগুলো নিয়ে আমি কাজ করবো। তোমরা আমাদের দেশের যেমন সম্পদ, তোমাদের পরিবারেরও সম্পদ। বাসায় ফিরে যাও মা বাবার দোয়া নাও। এই দুইদিন তোমরাও থাকো দেখো পুলিশ সঠিকভাবে তাদের দায়িত্ব পালন করে কিনা।

এসময় শিক্ষার্থীরা ফুটওভার ব্রিজের দাবি করলে শামীম ওসমান বলেন, আমি ছাত্রছাত্রীদের দাবির প্রেক্ষিতে সিটি করপোরেশনকে এখানে একটি ফুটওভার ব্রিজ করে দেয়ার দাবি জানাচ্ছি। আর সিটি করপোরেশনের ময়লা যেখানে সেখানে ফেলে না রাখতে আমাকে বলে লাভ নেই সেটি আমার ছোট বোন আইভীকে বলতে হবে তোমাদের।

পরে সকাল থেকে আটক করা যানবাহনের চাবিগুলো সদর মডেল থানার ওসির হাতে শিক্ষার্থীদের তুলে দিতে আহবান করেন শামীম ওসমান। সেই আহবান রক্ষা করেন শিক্ষার্থীরা।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও