১০ আশ্বিন ১৪২৫, বুধবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , ১:৫১ পূর্বাহ্ণ

হাটে হাটে উঠছে গরু, বাড়ছে ক্রেতাদের ভীড়


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:৩৬ পিএম, ১৭ আগস্ট ২০১৮ শুক্রবার


হাটে হাটে উঠছে গরু, বাড়ছে ক্রেতাদের ভীড়

আর মাত্র ৪ দিন পরেই ঈদ। মুসলমানদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব ঈদ-উল-আযহা। এই ঈদে পশু কুরবানীকে সবচেয়ে গুরুত্ব দেয়া হয় বলে অনেকে কুরবানীর ঈদ হিসেবে উল্লেখ করে থাকে। এই উৎসবকে সামনে রেখে অস্থায়ী পশুর হাটগুলো পুরোপুরি কেনা-বেচার জন্য প্রস্তুত। সারাদেশ থেকে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন হাটে গরু আসতে শুরু করেছে। তবে অধিকাংশ গরুই আসছে দেশের উত্তরবঙ্গ থেকে। গরুর মালিক ও বেপারী উভয়ই গরু নিয়ে ভীড় করছে হাটগুলোতে। পাশাপাশি উৎসুক দর্শনার্থীরাও গরু দেখতে আসছেন হাটে।

গত ২ বছর ধরে ঈদের আগের ২ দিন পশুর দাম অস্বাভাবিক ভাবে উঠা নামা করায় গরুর বেপারীদের কেউ কেউ হয়েছেন ক্ষতিগ্রস্ত আবার কেউ কেউ দ্বিগুণ মুনাফা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন। তবে এবার শুরু থেকেই ভারতীয় গরু দেশে প্রবেশ করায় লাভ নিয়ে চিন্তিত দেশী গরুর খামারের মালিক ও বেপারীরা। তবে ভারতীয় গরু আমদানিতে দাম স্বাভাবিক থাকার আশা প্রকাশ করে খুশী হচ্ছেন অনেক ক্রেতারা। তবে ওষুধ প্রয়োগে গরু মোটাতাজা করা নিয়ে ক্রেতারা বেশ চিন্তিত রয়েছেন। অভিজ্ঞতার অভাবে অসুস্থ গরু কিনে ঠকে যাবার আশঙ্কা রয়েছে তাদের। কিন্তু বরাবরের মতই এসব অভিযোগ অস্বীকার করে অপরের গায়ে দোষ চাপিয়ে এড়িয়ে যান গরুর বেপারীরা।

সরজমিনে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা লঞ্চঘাট সংলগ্ন ডিআইটি মাঠ ও ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোড সংলগ্ন জালকুড়ি হাটে গিয়ে দেখা যায়, প্রায় ৩/৪ শত গরু ছাগল ইতিমধ্যে এসে পৌঁছেছে। উৎসুক দর্শনার্থীদের ভীড় রয়েছেও যথেষ্ট। কিছুক্ষন পর পর বিভিন্ন ট্রাক, পিকআপ ভ্যান ও ট্রলারে করে গরু নিয়ে আসছে বেপারীরা। দূর থেকে ক্রেতাদের হাটে আকৃষ্ট করতে স্থাপন করা হয়েছে বিশাল ওয়াচ টাওয়ার। মাইকে কিছুক্ষণ পর পর গরুর বেপারী ও ক্রেতাদের সতর্কবানী জানানো হচ্ছে। এছাড়া যে কোন সমস্যায় ওয়াচ টাওয়ারে যোগাযোগের কথা বলা হচ্ছে বার বার।

তবে হাটে ভীড় করা অধিকাংশ মানুষই কেবল পশুর বাজারদর দেখতে এসেছেন। কামরুল ইসলাম নামে এক ব্যবসায়ী নিউজ নারায়ণগঞ্জকে জানান, হাটের কাছেই আমার দোকান। এবার কোরবানীর জন্য বাজেট করছি ৭০ হাজার টাকা। তাই একটু বাজারদর দেখতে আসলাম। প্রথম দিকে একটু চড়া দাম চাইবে বেপারীরা। তাছাড়া এখনো সব গরু উঠে নাই। যা উঠছে সব বড় বড়, ছোট গরু আসবো কয়েকদিন পর। ঈদের ২দিন আগে থেকে অরজিনাল দাম বুঝা যাবে।

ফতুল্লা হাটে ২টি ফ্রিজিয়ান ও অস্ট্রেলিয়ান জাতের গরু এনেই নজর কেড়েছেন পাবনার আব্দুল কাদের। কালো সাদা একটি ফ্রিজিয়ান গরুর দাম হেঁকেছেন ২০ লক্ষ টাকা, পাশেই আরেকটি কালো অস্ট্রেলিয়ান গরুর দাম হেঁকেছেন ১৬ লাখ টাকা। পুরো হাট জুড়ে এর চাইতে বড় গরু আর নেই। জানান দীর্ঘ সাড়ে ৪ বছর লালন পালন করেছেন গরু দুটোকে। এর আগেও এই হাটে গরু নিয়ে এসেছেন তিনি। তার আশাবাদ গরুটা ভালো দামেই বিক্রি করতে পারবেন ডিআইটি হাটে।

সিরাজগঞ্জ থেকে আবুল কাশেম নামে আরেক বেপারী নিউজ নারায়ণগঞ্জকে জানান, পথিমধ্যে দু-এক যায়গায় ৫০ টাকা চাঁদা দিয়েই চলে আসতে পেরেছেন। আরো দেরী করলে পথে চাঁদার পরিমাণ আরো বাড়ত।

এছাড়া ভারতীয় গরু আসায় লাভ নিয়ে চিন্তিত কিনা জানতে চাইলে বলেন, লাভ লোকসান আল্লাহ ভালো জানে। গরুর হাট লটারির মত। কপালে যা থাকে তাই হয়। অনেকে লাভ কইরাও বাড়ী যাইয়া ঈদ করতে পারে না, পথে মলম পার্টি সব নিয়া যায়। তাই আল্লাহর হাতে ছাইড়া দিসি।

হাটের দায়িত্বে থাকা এক সদস্য জানায়, হাট জমবে শনিবার থেকে। এছাড়া আমাদের এখানে নিরাপত্তা নিয়ে কোন চিন্তা করতে হবে না ক্রেতা ও বেপারীদের। জাল টাকা শনাক্তকরার মেশিন আছে এখানে। টাউট বাটপার পকেটমার হতে ক্রেতাদের নিজেদেরই সতর্ক হতে হবে। তাছাড়া চুরি ঠেকাতে আমরা গেটে সিসি ক্যামেরা বসিয়েছি।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

মহানগর -এর সর্বশেষ