২ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, শুক্রবার ১৬ নভেম্বর ২০১৮ , ১২:১৮ অপরাহ্ণ

rabbhaban

শেষ মুহূর্তে যানজটে অস্থির নগরী


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:৪৬ পিএম, ১৯ আগস্ট ২০১৮ রবিবার


শেষ মুহূর্তে যানজটে অস্থির নগরী

ঈদকে ঘিরে নারায়ণগঞ্জ শহরে যানজট তীব্র হচ্ছে। যদিও প্রায়শই যানজটের চিত্র দেখা গেলেও ঈদের আগে যানজটের তীব্রতা কয়েকরাশ বেড়ে যায়। ঈদের আগ মুহূর্তে শহরের বিপণীবিতান সহ বিভিন্ন স্থানে ক্রেতা সমাগমের ভিড়ের কারণে এমনিতে জটলার সৃষ্টি হয়। এদিকে ট্রাফিক পুলিশের তৎপরতা আগের তুলনায় বাড়লেও যানজট নিরসনের তা অনেকটাই অপ্রতুল। তাই যানজটের তীব্রতা কুড়ে কুড়ে খাচ্ছে নারায়ণগঞ্জবাসীকে। তবে যাত্রীরা বলছেন, ‘সড়কে যানবাহনের বিশৃঙ্খলার কারণে মূলত যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।’

১৯ আগস্ট রোববার দিন ব্যাপী শহরের প্রধান প্রধান সড়কগুলোতে তীব্র যানজটের চিত্র দেখা যায়। কখনো থেমে থেমে আবার কখনো একটানা যানজটে যাত্রীদের ভোগান্তিতে পড়তে হয়।

সরেজমিনে দেখা যায়, ‘শহরের প্রাণকেন্দ্র চাষাঢ়া গোল চত্বরের চারপাশের সড়কগুলোতে তীব্র যানজট দেখা যায়। আর সেই যানজট ধীরে ধীরে পুরো শহরে ছড়িয়ে পড়ে। এসময় বিশৃঙ্খলাভাবে অনেক যানবাহনকে চলাচল করতে দেখা গেছে। সড়কের আইন লঙ্ঘন করে চলাচল করা এসব যানবহনের এদিকে লিংক রোডের বেহাল দশা ও গাড়ির স্ট্যান্ডগুলোতে বিশৃঙ্খলাতার কারণে অধিকাংশ সড়কজুড়ে তীব্র যানজটে দেখা দেয়। এদিকে পাগলা-ফতুল্লা (পুরাতন ঢাকা) সড়কে যানজটের চিত্র নতুন কিছু নয়। যেকারণে সে সড়কে প্রায়শই যানজটের চিত্র দেখা যায়।

যাত্রী সূত্র বলছে, ‘ছাত্র আন্দোলনের পর থেকে কিছুদিন সড়কে শৃঙ্খলা বজায় থাকলেও ধীরে ধীরে ফের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়। এতে করে সড়কের যানবাহনগুলো আরো বেপরোয়া হয়ে উঠে। এছাড়া সড়কের কোন আইন মানছেনা যানবাহনের চালকরা। যেকারণে অযথা যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। এদিকে ঈদের আগ মুহূর্তে এসে সড়কে ভিড়ের মাত্রা একটু বেড়ে যাওয়া স্বাভাবিক। কিন্তু স্বাভাবিক সময়ে এই সড়কে যানজট থাকে সেখানে ঈদের এই সময়ে তীব্র যানজট থাকাটা অনেকটাই স্বাভাবিক চিত্র বটে।’

শহরের প্রণকেন্দ্র চাষাঢ়া থেকে কালীর বাজার মোড় ও পূর্ব দিকে ডন চেম্বারের অনেকটা সড়ক জুড়ে যানজটের চিত্র দেখা যায়। এদিকে লিংক রোড ও পাগলা-ফতুল্লা সড়কের বেহাল চিত্র ভাষায় প্রকাশ করার মত নয়। এদিকে শহরের বিপণীবিতানগুলোতে প্রচন্ড ভিড় লক্ষ্য করা যায়। সেই ভিড়ের প্রভাব অনেকটা সড়কেও পড়েছে। এদিকে সড়কের ফুটপাতগুলোতে হকারদের দৌরাত্ম্যের কারণে জটলা দৃশ্যমান হচ্ছে।

সাঈদ নামের এক যাত্রী অভিযোগ করে বলে, ‘যানজট নিরসনের পুলিশ প্রশাসন তেমন কোন উদ্যোগ নেয়নি। আর যদি নিত তাহলে এখনো সড়কের এরুপ বেহাল দশা থাকতোনা। অথচ ছাত্র আন্দোলনের ছোট ছোট শিক্ষার্থীরা একদিনে সড়কের চিত্র পাল্টে দিয়েছে। তাদের কাছ থেকেই পুলিশ কিছু শিখতে পারেনি। যেকারণে সড়কের যানজটের ভয়াবহ চিত্র কিছুতেই দূর করা সম্ভব হচ্ছেনা।’

নগরবাসী বলছে, ‘সড়কের মোড়ে মোড়ে অবৈধ গাড়ি স্ট্যান্ড। আর সেসব স্ট্যান্ডের গাড়িগুলো এালোপাথারিভাবে রাখা হয়; যেকারেেণ অহরহ যানজটের চিত্র দেখা যাচ্ছে। পুলিশ প্রশাসন এসব অবৈধ স্ট্যান্ড সরাতে ব্যর্থ হচ্ছে। এছাড়া সড়কের চলাচলরত যানবাহনের চালকদের শৃঙ্খলাবদ্ধভাবে চলাচলে বাধ্য করতে পারছেনা। যেকারণে সড়কে উল্টো বিশৃঙ্খলতা সৃষ্টি হচ্ছে। আর যানজট সৃষ্টির পেছনে এগুলোই মূল কারণ।’

পিংকি নামের এক শিক্ষার্থী বলছে, ‘পুলিশ প্রশাসন তো এককভাবে আইন প্রয়োগ করছেনা। যেভাবে ছাত্র আন্দোলনের শিক্ষার্থীরা সবার গাড়ির লাইসেন্স চেক করেছে। আর অবৈধ গাড়ির চাবি জব্দ করেছে। এক্ষেত্রে সে যেই হোকনা কেন। তাতে কেউ বাদ পড়েনি। একারণে সড়কে শৃঙ্খলা ফিরে এসেছে। আর যানজটতো দূরের কথা উল্টো সড়কের লেন মেনে সকল চালককে গাড়ি চালতে দেখা গেছে। কিন্তু পুলিশ প্রশাসন ক্ষমতাসীনদের ক্ষেত্রে একরকম আইন প্রয়োগ করছে। আর সাধারণের জন্য ভিন্ন রকম। যেকারণে সড়কে শৃঙ্খলা ফিরছেনা। উল্টো যানজটের মত দুর্ভোগ সহসাই দেখা যাচ্ছে।’

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

মহানগর -এর সর্বশেষ