৭ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, বুধবার ২১ নভেম্বর ২০১৮ , ১২:২৯ অপরাহ্ণ

rabbhaban

দুর্ধর্ষ চাঁদাবাজ পলাশের মামলায় তিন সাংবাদিকের পূর্ণ জামিন


স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০১:৫৩ পিএম, ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ মঙ্গলবার


দুর্ধর্ষ চাঁদাবাজ পলাশের মামলায় তিন সাংবাদিকের পূর্ণ জামিন

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার বহুল আলোচিত ও সমালোচিত দুর্ধর্ষ চাঁদাবাজ হিসেবে পরিচিত শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির শ্রমিক উন্নয়ন ও কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কাউসার আহমেদ পলাশের দায়ের করা তিনটি পৃথক মামলায় পূর্ণ জামিন পেয়েছেন তিনজন সাংবাদিক।

১১ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার নারায়ণগঞ্জের পৃথক তিনটি আদালতে ওইসব মামলার শুনানী শেষে এ আদেশ দেওয়া হয়। পরবর্তী তারিখে মামলার চার্জ গঠনের দিন ধার্য করা হয়েছে।

ওই তিনজন হলেন ইত্তেফাকের জেলা প্রতিনিধি ও ডান্ডিবার্তার সম্পাদক হাবিবুর রহমান বাদল, সময়ের নারায়ণগঞ্জের সম্পাদক জাবেদ আহমেদ জুয়েল ও যুগান্তরের ফতুল্লা প্রতিনিধি আলামিন প্রধান।

এর মধ্যে নারায়ণগঞ্জের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদুল মোহসীনের আদালতে হাবিবুর রহমান বাদল, আহমেদ হুমায়ূন কবিরের আদালতে জাবেদ আহমেদ জুয়েল ও জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মেহেদী হাসানের আদালতে আলামিন প্রধানের ওই শুনানী অনুষ্ঠিত হয়। তিনটি আদালতেই কাউসার আহমেদ পলাশ উপস্থিত ছিলেন।

এর মধ্যে হাবিবুর রহমান বাদলের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি হাসান ফেরদৌস জুয়েল, সাবেক সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন খান, সিনিয়র আইনজীবী শাহ্ মাজহারুল ইসলাম, রাকিবুল ইসলাম শিমুল ও সরকার হুমায়ূন কবির প্রমুখ।

জাবেদ আহমেদ জুয়েলের পক্ষে ছিলেন জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি হাসান ফেরদৌস জুয়েল, সেক্রেটারী মোহসীন মিয়া, সাবেক সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন খান, সহ সভাপতি আজিজ আল মামুন, শরীফুল ইসলাম শিপলু প্রমুখ।

আলামিন প্রধানের পক্ষে ছিলেন সিনিয়র আইনজীবী শাহ্ মাজহারুল ইসলাম।

হাসান ফেরদৌস জুয়েল নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘শুনানীতে আমরা বলেছি বাদী যে পন্থায় মামলাগুলো দায়ের করেছে সেটার কোন ভিত্তি নাই। কারণ মামলার এজাহারে সুস্পষ্ট যে প্রকাশিত সংবাদে বাদীর কোন নাম নাই। তাছাড়া একটি মামলার আর্জিতে প্রথম ৫টি পাতা জুড়ে বাদীর নিজের পক্ষের গুনগান গেয়েছেন। যে মামলাতে বাদীর নাম নাই সে মামলার এজাহারই তো সঠিক না।’

অ্যাডভোকেট শরীফুল ইসলাম শিপলু জানান, মামলাটি যে শুধুমাত্র হয়রানির উদ্দেশ্যে করা হয়েছে সেটা প্রমাণিত। যে সংবাদের কারণে মামলা ওই সংবাদের কোথাও বাদীর নাম নাই। এতেই প্রতীয়মান যে হয়রানির জন্যই বাদী মামলাটি করেছে।

উল্লেখ্য গত ৩ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জে আরেক ‘নূর হোসেন ফতুল্লার গডফাদার পলাশ ও তার চার খলিফা’ শিরোনামে দৈনিক যুগান্তর পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হয়। এছাড়া একটি সংবাদের রেশ ধরে ডান্ডিবার্তা ও সময়ের নারায়ণগঞ্জের বিরুদ্ধে মামলা হয়।  এর মধ্যে দৈনিক যুগান্তরের ফতুল্লা প্রতিনিধি আলামিন প্রধানের বিরুদ্ধে ১০ কোটি, ইত্তেফাকের নারায়ণগঞ্জ সংবাদদাতা ও স্থানীয় দৈনিক ডান্ডিবার্তা পত্রিকার সম্পাদক হাবিবুর রহমান বাদলের বিরুদ্ধে ৫ কোটি এবং দৈনিক সময়ের নারায়ণগঞ্জ পত্রিকার সম্পাদক জাবেদ আহমেদ জুয়েলের বিরুদ্ধে ৫ কোটি টাকার মানহানি মামলা করেন।

ওই সংবাদ প্রকাশের পর শুধু মামলা নয় তার বাহিনীর সদস্যরা ফতুল্লায় মিছিল করে সাংবাদিকদের চামড়া তুলে নেওয়ার হুমকি দেয়।

তবে গত ৫  মে ‘এক পলাশেই সর্বনাশ’ শিরোনামে ও  নারায়ণগঞ্জে শ্রমিকলীগের নাম তা-ব, চাঁদার জন্য ৩৬ শিল্প-কারখানা বন্ধ, এলাকা ছাড়ছেন ব্যবসায়ীরা’ বিশেষণে বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হয়। কিন্তু ওই সংবাদের পরে তিনি আর কোন মামলা করেনি।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

মহানগর -এর সর্বশেষ