২৯ কার্তিক ১৪২৫, মঙ্গলবার ১৩ নভেম্বর ২০১৮ , ১:৪০ অপরাহ্ণ

UMo

ভুলচিকিৎসায় মা ও শিশুর মৃত্যু, হাসপাতাল মালিক ডাক্তারসহ আটক ৬


স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০২:২৩ পিএম, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ শনিবার


ভুলচিকিৎসায় মা ও শিশুর মৃত্যু, হাসপাতাল মালিক ডাক্তারসহ আটক ৬

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় নিউ পপুলার নামে একটি বেসরকারী জেনারেল হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় মা ও শিশুর মৃত্যুর অভিযোগে বিক্ষুদ্ধ জনতা হাসপাতালে ভাঙচুর চালিয়েছে। এসময় বিক্ষুদ্ধদের শান্ত রাখতে পুলিশ হাসপাতালের চার জন মালিক ও ডাক্তার, নার্সকে আটক করেছে।

২৯ সেপ্টেম্বর শনিবার সকাল ৯টায় ফতুল্লার পাগলা বাজার এলাকায় অবস্থিত নিউ পপুলার হাসপাতালে এঘটনা ঘটে।

নিহত শিল্পি বেগম (৩২) ফতুল্লার পূর্ব দেলপাড়া এলাকার রং মিস্ত্রি  আলমগীর হোসেনের স্ত্রী।

আটককৃতরা হলেন হাসপাতালের মালিক ডা. মজিবুর রহমান, মাসুম আহমেদ, আহম্মদ আলী খান, কামরুন্নাহার, মেডিকেল অফিসার ডা. জামিল আহমেদ ও নার্স সুরমা বেগম।

আলমগীর হোসেন জানান, তার স্ত্রী শিল্পি বেগম ৫ মাসের অন্তঃসত্বা ছিল। হঠাৎ অসুস্থ্যবোধ করলে তাকে পাগলা বাজার এলাকায় অবস্থিত নিউ পপুলার জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাই। সেখানে ডাক্তার জেসিকা রিজভী তামান্না পরীক্ষা করে বলেন গর্ভের বাচ্চা নরমাল আছে তবে পানি ভাঙ্গছে। কয়েকদিন হাসপাতালে ভর্তি রাখতে হবে। এতে শিল্পিকে বৃহস্পতিবার বিকেলে হাসপাতালে ভর্তি করি। শুক্রবার দুপুর থেকেই হাসপাতালের লোকজন বলছে অপারেশন করতে হবে। তখন আমি জানতে চাই গর্ভের সন্তান নরমাল থাকলে অপারেশন কেনো। তারা বললো রক্ত নিয়ে আসেন দ্রুত। এতে আমি রক্ত আনতে যাই। এর মধ্যে আমার স্ত্রীকে কোন অনুমতি ছাড়াই অপারেশন করে সন্তান বের করে। এসময় সন্তান সহ আমার স্ত্রী মারা যায়। আমি রক্ত নিয়ে এসে দেখি শিশুটির গলা কাটা আর আমার স্ত্রীর নিথর দেহ বেডে পড়ে আছে। নার্স ও ডাক্তাররা বলছে আপনার স্ত্রীকে ঢাকা মেডিকেলে নিতে হবে। তখন তারাই অ্যাম্বুলেন্সে উঠিয়ে দেয়। এতে আমার সন্ধেহ হয়।  এরপর তাদের লোকজনই জানায় সে মারা গেছে। আমি এর বিচার চাই।

হাসপাতাল মালিক কামরুন্নাহার জানান, যখন পেটের পানি ভাঙ্গা শুরু হয়েছে তখনই বলেছি রোগীকে অপারেশন করতে হবে রক্ত সংগ্রহ করেন। কিন্তু রোগীর স্বামী তা যথা সময় করেনি। রোগীর অবস্থা আশংকাজনক হলে বৃহস্পতিবার রাত ১২ টায় তাকে অপারেশন করা হয়। অপারেশনের সময় রোগী হার্ড ষ্টোক করেন। এরমধ্যেই অপারেশন করে ৫ মাসের শিশুটি পেট থেকে মৃত অবস্থায় বের করা হয়। তখন রোগীটির অবস্থা গুরুতর মনে হলে আমরা তাকে শুক্রবার রাত ১ টায় ঢাকা মেডিকেলে প্রেরন করি।  আমাদের চিকিৎসায় কোন ভুল ছিলোনা।

ঘটনাস্থলে যাওয়া ফতুল্লা মডেল থানার এসআই দিদারুল আলম জানান, ঘটনাটি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। ৬ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। হাসপাতাল কিছুটা ভাংচুর করেছে বিক্ষুদ্ধ জনতা। পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

মহানগর -এর সর্বশেষ