১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, বৃহস্পতিবার ১৫ নভেম্বর ২০১৮ , ৩:০৬ অপরাহ্ণ

UMo

দ্রুত সময়ে ফতুল্লাকে সিটি কর্পোরেশনে অন্তর্ভুক্ত করার দাবী


স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:১৯ পিএম, ১৬ অক্টোবর ২০১৮ মঙ্গলবার


দ্রুত সময়ে ফতুল্লাকে সিটি কর্পোরেশনে অন্তর্ভুক্ত করার দাবী

রাজধানী ঢাকা হতে নারায়ণগঞ্জ শহরের প্রবেশ মুখে প্রথমেই পার হতে হয় জেলার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ থানা ফতুল্লা। গুরুত্বপূর্ন এই থানায় প্রায় সাড়ে ৬ লক্ষাধিক লোকের বসবাস। দীর্ঘদিন ধরে সিটি কর্পোরেশনের প্রবেশ দ্বারের সাথে থেকেও সিটি কর্পোরেশনের সুবিধা ভোগ করার সুযোগ হয়নি ফতুল্লাবাসীর। ২০১১ সালের সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে অবহেলিত এই জনপদকে সিটি কর্পোরেশনের আওতায় আনার কথা বললেও দীর্ঘ ৭ বছরে তা সম্ভব হয়ে উঠেনি।

৭ অক্টোবর নাসিক মেয়র আইভি এক অনুষ্ঠানে এসকল অবহেলিত ইউনিয়নগুলোকে সিটি কর্পোরেশনে অন্তর্ভুক্তির কথা জানান। তার এমন ঘোষণার পর আবারো আশায় বুক বাধতে শুরু করেছে ফতুল্লাবাসী। মেয়রের ঘোষণাকৃত ইউনিয়নগুলোর ভেতরে ফতুল্লার কাশীপুর, এনায়েতনগর ও কুতুবপুরের একাংশ অন্তর্ভুক্ত হবার কথা রয়েছে। এছাড়া সদর থানার গোগনগরকেও অন্তর্ভুক্ত করা হবে বলে জানা যায়।

ফতুল্লার স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, নারায়ণগঞ্জ শহরের চাইতে কম সময়ে আমরা ঢাকায় যেতে পারি। আমাদের দুই দিকে দুইটি সিটি কর্পোরেশন (একটি নারায়ণগঞ্জ ও অপরটি ঢাকা) অথচ আমরা মাঝে থেকে সেই সুফল ভোগ করতে পারছি না। এটি অত্যান্ত দুঃখজনক ও হতাশার। দেশ বিখ্যাত খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম সহ দেশের নামীদামী কলকারখানা রয়েছে এই ফতুল্লায়। আছে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, কারগার সহ অনেক সরকারী ও রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান। প্রায় ৬ লাখেরও বেশী লোক এখানে বসবাস করে। কিন্তু এই এলাকার মানুষ পানি, রাস্তাঘাট, সড়কবাতি সহ বিভিন্ন সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। ভাঙা ও জলাবদ্ধ রাস্তায় জনগনের দুর্ভোগ, সড়কবাতির অভাবে চুরি ছিনতাই আর পানির হাহাকার নিত্যদিনের সঙ্গী এদের।

কুতুবপুর ইউনিয়ন এলাকার মুদি দোকানী সোহেল নিউজ নারায়ণগঞ্জকে জানান, আমাদের এলাকার জনপ্রতিনিধীদের দিয়ে আদৌ কোন উন্নতি হচ্ছে না আমাদের। এলজিইডির রাস্তা ব্যাতিত অধিকাংশ স্থানীয় রাস্তা ভাঙ্গাচোরা। ময়লা আবর্জনা পরে থাকে যেখানে সেখানে। ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মেম্বাররা উন্নয়নের কথা বলে যা অনুদান পায় তার কানাকড়িও ব্যয় করে না তারা। নির্বাচিত হবার পরেই ভুলে যায় ভোটারদের সমস্যাগুলো। মোটাদাগে চরম অব্যবস্থাপনা বিরাজ করছে এলাকাজুড়ে। তার বিশ্বাস দ্রুত যদি এলাকাগুলোকে সিটি কর্পোরেশনের আওতায় আনা যায় বদলে যেতে পারে অবহেলিত নগরটি।

প্রায় একই কথা বলেন ফতুল্লা ইউনিয়নের লালপুরের বাসিন্দা তারিক। তিনি বলেন, লালপুরের পৌষারপুকুর পাড়ের রাস্তায় প্রায় ১২ মাস জলাবদ্বতা লেগেই থাকে। ইউনিয়নের এক জটিল মামলায় অনুষ্ঠিত হয়না কোন নির্বাচন। ফলে এই চেয়ারম্যানের পদ হারানোর সম্ভাবনাও নেই। ফলে উন্নতির মুখ আর দেখা হয়না তাদের। জনপ্রতিনিধিদের অবহেলায় দিনে দিনে ভোগান্তি বাড়ছে এসব এলাকার বাসিন্দাদের।

তবে মেয়রের ঘোষণার পর পরেই নড়েচড়ে বসেছে এসব ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মেম্বাররা। দীর্ঘদিন একচেটিয়া রাজত্ব কায়েম করে আসা চেয়ারম্যান মেম্বাররা যেন হারাতে যাচ্ছে সোনার ডিম পাড়া হাস। সিটি কর্পোরেশনের অন্তর্ভুক্তি ঠেকাতে উঠেপড়ে লেগেছে তারা। বিভিন্ন দফতরে লবিং শুরু করে দিয়েছেন ইতোমধ্যেই। গরীব জনগোষ্টির ট্যাক্স দেয়ার সাধ্য নেই এমন সস্তা জনদরদীর ভান দেখিয়ে এলাকাবাসীকে অন্ধকারেই রাখতে চান তারা।

তবে স্বার্থবাদী জনপ্রতিনিধিদের হাত থেকে উদ্ধার পেতে দ্রুত মেয়রের প্রতি বিনীত অনুরোধ জানিয়েছেন তারা। মেয়রের মাধ্যমে বন্দর ও সিদ্ধিরগঞ্জের অবহেলিত জনপদ আমূল পরিবর্তনের ছোয়ায় যুক্ত হতে চায় এলাকাবাসী। জাতীয় নির্বাচন শেষে অতি শীঘ্রই যেন ফতুল্লার ঘোষণাকৃত ইউনিয়নগুলো চলে আসে সেই আশায় বুক বাধছেন অবহেলিত এই বাসিন্দারা।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

মহানগর -এর সর্বশেষ