১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, বৃহস্পতিবার ১৫ নভেম্বর ২০১৮ , ৩:০২ অপরাহ্ণ

UMo

ঢাকের বাদন সিদুর খেলায় মুখর ছিল নারায়ণগঞ্জের পূজামন্ডপগুলো


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:০৪ পিএম, ১৯ অক্টোবর ২০১৮ শুক্রবার


ঢাকের বাদন সিদুর খেলায় মুখর ছিল নারায়ণগঞ্জের পূজামন্ডপগুলো

শুক্রবার ১৯ অক্টোবর বিজয়া দশমীতে মর্ত্য ছেড়ে কৈলাসে ফিরবেন দশভুজা। অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে শুভ কল্যান এবং শান্তি ও সম্প্রীতির আকাঙ্খা নিয়ে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে দেবী দুর্গাকে বিদায় জানানো হয়। এ বিদায়ের মধ্য দিয়ে শেষ হবে হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা।

শুক্রবার বিজয়া দশমীতে শহরের বিভিন্ন মন্দির ও মন্ডপে সিদুর খেলার মধ্য দিয়ে দেবী দুর্গাকে বিদায় জানান নারীরা। ধারণা করা হয় এ খেলা আনুমানিক ৪০০ বছর আগে শুরু হয়। তখন সবে মাত্র দুর্গাপূজা উৎযাপন শুরু হয়েছে। দেবী দুর্গার প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা থেকেই এই সিদুর খেলার আয়োজন করেন বিবাহিত নারীরা।

সিদুর বিবাহিত নারীর প্রতিক। ফলে সিদুর খেলার প্রথাটা শুধু মাত্র বিবাহিত নারীদের মধ্যেই দেখা যায়। ধর্মমতে অবিবাহিত এবং বিধবা নারীদের সিদুর খেলায় বাধা নিষেধ রয়েছে বলে জানা যায়।

বিকেল ৫টায় বিজয়া দশমী উপলক্ষে শ্রী শ্রী বলদেব জিউর আখরা ও শিব মন্দিরে সরেজমিনে দেখা যায়, বিবাহিত নারীরা সিদুর খেলার উৎসবে মেতে উঠেছে। তবে শুধু বিবাহিত নারীরাই নয় অনেক অবিবাহিত নারীদেরও সিদুর খেলায় মাততে দেখা যায়। মায়েদের সাথে শিশুরা এসেছে দেবী দুর্গাকে বিদায় জানাতে।

ছোট মেয়ে লাবন্যের সাথে কথা হয় নিউজ নারায়গঞ্জের। লাবন্য নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলে, ‘মায়ের জন্য মন খারাপ হচ্ছে। তবে এক বছরই তো, আসছে বছর মা আবার আসবে। তাই আর মন খারাপ হচ্ছেনা।’

তবে নিজের বা নিজের পরিবারের জন্যই শুধু নয় সকলের মঙ্গল ও সুস্বাস্থ্য কামনার জন্যই দেবী দুর্গার কাছে শেষ বার প্রার্থনা করছেন নারীরা।

এ বিষয়ে এক নারী নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘মার কাছে শেষ বারের মতো প্রার্থনা করছি মা যেন সবার মঙ্গল করে, দেশের মঙ্গল করে। সবার স্বাস্থ্য ভালো রাখে।

এদিকে ঢাকের বাদন, মূর্হুমূর্হু উলুধ্বনী, পুরোহিতের মন্ত্রপাঠ, ধূপের গন্ধ আর ভক্তদের পদচারনা মিলিয়ে শারদীয় দূর্গাপূজার এই কয়েকটা দিন নারায়ণগঞ্জের প্রত্যেকটি পূজা মন্ডপ সেজেছিল নতুন রুপে। মহাষষ্ঠির দিন থেকেই নারায়ণগঞ্জের প্রাণ কেন্দ্র নিতাইগঞ্জ থেকে চাষাঢ়া পর্যন্ত সড়কের অলিগলিতে বর্নিল আলোকসজ্জা, তোরণ আর নিত্যনতুন সাজে সাজানো হয়েছিল। আর প্রায় প্রতিটি পূজা মন্ডপেই ছিল ভক্তদের উপচেপড়া ভিড়। শারদীয় দূর্গা পূজার এই দশমী অর্থাৎ শেষ দিনে অন্যান্য দিনের তুলনায় প্রচুর দর্শনার্থী লক্ষ করা গেছে। শুক্রবার ১৯ অক্টোবর ছিল বিসর্জনের দিন।

নারায়ণগঞ্জের দেওভোগ আখড়া, মিশনপাড়া, নন্দিপাড়া, পালপাড়া, নিতাইগঞ্জ, ফতুল্লার শীষমহল, ধর্মগঞ্জ, চৌধুরী বাড়ি, ডিআইটি মাঠ সংলগ্ন ঋৃষি বাড়ি, ভোলাইল, পিলকুনি রাম মন্দিরের বীরেন চন্দ্র দাসের পূজা মন্ডপ পরিদর্শন করে দেখা গেছে এসব চিত্র।

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি দিলীপ কুমার মন্ডল জানান, পূজা উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা বাহীনির সদস্যরা সজাগ দৃষ্টি রেখেছিল। কোথাও কোনো ধরনের অপ্রিতীকর ঘটনা ঘটেনি। প্রত্যেকটি পূজা মন্ডপ গভীর রাত পর্যন্ত দর্শর্নার্থী এবং ভক্তদের উপস্থিতিতে ছিল সরগরম।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

মহানগর -এর সর্বশেষ