২৯ কার্তিক ১৪২৫, মঙ্গলবার ১৩ নভেম্বর ২০১৮ , ১:৪০ অপরাহ্ণ

UMo

ডাস্টবিনের বহুমুখী ব্যবহার ‘সাক্ষী গোপাল’ নাসিক


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:৩৮ পিএম, ২০ অক্টোবর ২০১৮ শনিবার


ডাস্টবিনের বহুমুখী ব্যবহার ‘সাক্ষী গোপাল’ নাসিক

গায়ে লেখা রয়েছে ‘ইউজ মি’ বা ‘আমাকে ব্যবহার করুন’। ব্যবহারও হচ্ছে। তবে আবর্জনা ফেলবার কাজে আর নয়। কোনো হকার কাঁধে ঝোলানো টুকরি রাখার কাজে, কেউবা বসবার জন্য ব্যবহার করছেন সেটি নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ডাস্টবিনকে। এমনই নানামুখী ব্যবহর দেখা গেছে চাষাঢ়া মোড়ে (সমবায় মার্কেটের সামনে) রাখা নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের একটি ডাস্টবিনের।

নাসিকের অনিয়মে সৃষ্ট আবর্জনা দুর্ভোগে দিন দিন অসহনীয় হয়ে উঠছে নগরবাসীর জীবন যাপন। একদিকে অনিয়ম অন্যদিকে পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের হেয়ালিপনার মাশুল গুনছে সাধারণ জনগণ। নগর পরিচ্ছন্নকর্মীদের কিছুটা সুবিধার জন্যে ও নগরীকে আরেকটু বেশি চকচকে করে রাখার লক্ষ্যেই শহরের গুরুত্বপূর্ণ কিছু পয়েন্টে কয়েকটি ডাস্টবিন স্থাপন করে নাসিক। যে ডাস্টবিনগুলো এখন প্রায় চোখেই পড়ে না। থাকার মধ্যে যে একটি ডাস্টবিন থাকলেও সেটা কবে থেকে আবর্জনায় পূর্ণ হয়ে আছে তা জানেনা পরিচ্ছন্নতা কর্মীরাও। তাই পিতা-মাতাহীন ডাস্টবিনের ঢাকনা খোলেন না পথচারীরাও।

আবর্জনা নিয়ে কম যুদ্ধ দেখেনি নারায়ণগঞ্জবাসী। কখনও নাসিককে বাধা দিয়ে জেলা প্রশাসন। কখনও জেলা প্রশাসকের বাড়ির সামনে রাখা হয়েছে নাসিকের আবর্জনা গাড়ি। আবার কখনো নাসিকের পরিচ্ছন্নকর্মীদের সাথে কাশীপুরের চেয়ারম্যান সাইফউল্লাহ বাদলের রগচটা মুহূর্তেরও সাক্ষী হয়েছেন তারা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত নাসিকের পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের অনিয়ম ও হেয়ালিপনায় এখনও আবর্জনা দুর্ভোগ পিছু ছাড়েনি নগরবাসির।

সিটি কর্পোরেশন সূত্র বলছে, ‘নগরবাসীর মধ্যে কিছুটা পরিচ্ছন্নতাবোধ জাগ্রত করার লক্ষ্যে ২০১৭ সালের শেষ দিকে শহরের প্রাণকেন্দ্র চাষাঢ়ার গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি স্পটে ৫টি ও ২ নং গেইট এলাকায় ২টি প্লাস্টিকের ডাস্টবিন স্থাপন করে নাসিক। যেগুলোর মধ্যে চাষাঢ়ার ১টি ডাস্টবিনের হদিসই রয়েছে এখন পর্যন্ত। বাকিগুলো সম্পর্কে কোনো তথ্য জানা না গেলেও সরেজমিনে শহরের এ সকল সড়কগুলোতে হেঁটে তাদের কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি।

এদিকে একমাত্র যে ডাস্টবিনটি সমবায় মার্কেটের সামনে রয়েছে সেটিও পূর্ণ আবর্জনায়। সকাল-বিকেল-কিংবা রাত কখনোই সেটি পরিষ্কার করতে দেখেনি বলে জানিয়েছেন সমবায় মার্কেটের নীচ তলার বেশ কিছু দোকানী ও মার্কেটের বাইরে বসা হকারগণ। শুধু কয়েকদিন বা সপ্তাহ নয়। কয়েকমাস ধরেই ডাস্টবিনটি পরিষ্কার করতে দেখেননি বলে জানিয়েছেন তারা।

আবার ডাস্টবিন হিসেবে ব্যবহৃত না হলেও এখন সেটির ভিন্নরূপ ব্যবহারও দেখা যাচ্ছে মাঝেমধ্যে। কাঁধে টুকরি নিয়ে যে সকল হকার এদিকটায় হাঁটাহাঁটি করেন তারা এই সুযোগে ডাস্টবিনটিকে স্ট্যান্ড হিসেবে ব্যবহার করতেও ভুল করেন না।

ডাস্টবিনটিকে স্ট্যান্ড হিসেবে ব্যবহারকারী এক সিগেরেট বিক্রেতা জানান, এটি ডাস্টবিন হিসেবে ব্যবহার হয়না বলেই তাকে মাঝেমধ্যে স্ট্যান্ড হিসেবে ব্যবহার করেন তিনি। শুধু তিনিই নন আরো অনেকেই ব্যবহার করে এটিকে। একেক জনের ব্যবহারের ধরণও একেক রকম কেউই ডাস্টবিন হিসেবে এটিকে ব্যবহার করেন না বলেও জানান তিনি।

এদিকে সচরাচর নাসিকের পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের দিকে কোনরূপ আঙুল উঠলেই পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা আলমগীর হিরণ লোকবল সংকট বলে বিষয়টি এড়িয়ে যান। তবে জানা গেছে মূলত কতৃপক্ষের যথেষ্ট তদারকির অভাবেই নাসিকের পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের হেয়ালীপনা দিন দিন বাড়ছে।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

মহানগর -এর সর্বশেষ